যায় দিন ভালো, আসে দিন কঠিন

12 points off 4 games…
And top of the Latin America WCQ table…
১২ গোল দেওয়া হয়েছে – ১টা খাওয়া হয়েছে..
কিন্তু সিলেকশন ব্লান্ডার এখনো পুরোদমে। পাউলিনিয়ো আর অগাস্টো স্রেফ কোচের সাথে আগে কাজ করেছে বলে প্রতি ম্যাচের স্টার্টার? আসলেই??
আলভেজ, মিরান্ডা, পাউলিনিয়ো এদের কাঁধে ঘাড়ে নিয়ে আপনি আসলেই ২০১৮ এর দিকে তাকাচ্ছেন??আসলেই? ক্যাসেমিরো ছাড়া এই দলের মিডফিল্ড আসলে কী?? কিছুই না!
সিলেকশন ব্লান্ডার থেকে আস্তে আস্তে না উঠতে পারলে দুঙ্গার ২০১০ এর দলটার মত ভাগ্য হবে। প্রচুর লিবার্তোদরেস খেলাতে ল্যাটিন আমেরিকার ফুটবলটা তিতের চেয়ে ভালো কম লোকই জানে। কিন্তু এর বাইরে? জার্মানি, ইতালি, স্পেইন?
প্রথম ম্যাচের দল নিয়ে মানুষ মুখ খোলে নাই। হয়তো সাফল্য যতদিন পাবে, ততদিন খুলবেও না। কিন্তু এই কথাটা মাথায় থাকা দরকার, ব্রাজিলের জন্যে বিশ্বকাপে ফার্স্ট রাউন্ডে বাদ পড়াও যা, রানার আপ হওয়াও তা। সেইফ সাইড থেকে আস্তে আস্তে এক্সপেরিমেন্ট করে করে উন্নতির জায়গাটা বের করতে হবে। একটা জায়গায় থেমে থেকে হেক্সা আসবে না। কোনভাবেই আসবে না! প্রথম দলটা কোচের চেনা লোকদের নিয়ে হবে এক্সপেক্টেড ছিলো। কিন্তু দিন গড়াতে ইউরোপের প্লেয়ার আর সেরা পারফর্মারেরা না আসলে অনেক বড় শঙ্কা থেকে যায়।
সুপারক্লাসিকোর জন্যে অনেক শুভকামনা..

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

3 × 4 =