মেসির ফিরে আসার নেপথ্যে…

সবাই খুঁজে আবেগ। আবেগের কারণেই নাকি অবসর, আবেগের কারণেই নাকি ফিরে আসা। তবে আমার মনে উঁকি দিচ্ছে অন্য দুইটি সম্ভাবনা।

  • ফেডারেশনের দুর্নীতি
    টাটা মার্টিনো তো রীতিমত ফেরেশতা।সিমিওনে সাম্পাওলিরা যেখানে বারবার ফিরিয়ে দিচ্ছেন বিনা বেতনের এই কোচিং এর চাকরি, সেখানে তিনি সাত মাস বিনা বেতনে চাকরি করেছেন ২০১৬ সালে।তার উপর, এই অলিম্পিকেও তারা নিয়ে যেতে পারেনি পছন্দের সব খেলোয়াড়। ক্রিকেটের পাকিস্তান, জিম্বাবুয়ে আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ এর মতোই হাল আর্জেন্তিনা ফুটবল ফেডারেশনের।মেসি ফিরে আসার সময় বলেছিলেন, “এমনিতেই আর্জেন্টিনা ফুটবল (ফেডারেশনের) নানা সমস্যায় জর্জরিত। আমি চাইনা আমার থাকা না থাকা নিয়ে সমস্যাটা আরো বাড়ুক।”
  • স্পন্সর এবং ফিন্যান্স
    কোপা আমেরিকার ফাইনালের ভেন্যুতে যেতে একদিন দেরি হয় আলবিসেলস্তেদের। সেদিনই ফেডারেশনের উপর চড়াও হওয়াটা চরমে পৌছে ফুটবলারদের। মেসি তো বলেই বসেন, “Absolute disgrace.” যাই হোক, নিজেদের স্পন্সর দিয়ে যখন গত সাত মাস অসাধারণ কিছু ফুটবল উপহার দিয়েও শেষতক শিরোপা বঞ্চিত থাকতে হয়, তখন নিজেদের সংগ্রামের চেয়ে হয়তো বোর্ডের অপারগতাটাই চোখে বেশি পড়ে। এই দিক থেকে, আপনারা যদি গেইল, মাসাকাদজাদের স্যালুট দিয়ে আলবিসেলেস্তেদের ফাইনালে হারা নিয়ে মক করবেন সেটা হবে ডাবল স্ট্যান্ডার্ড।যাই হোক, মেসির আর্জেন্টিনার হয়ে না খেলাটা ফেডারেশনের আর্থিক ক্ষতি এজন্য যে, শুধু মেসি খেলবে এই প্রচারণায় আপনারা প্রীতি ম্যাচগুলাতে যে টু-পাইস কামাবেন আর দর্শক পাবেন, সে চলে গেলে এর অর্ধেকও পাবেন না। ২০১১ সালে মেসি ছাড়া আর্জেন্টিনা আসলে কি এত মাতামাতি করতেন। নিশ্চই বলতেন “ধুর মেসিই নাই, কি আর্জেন্টিনা আসছে !”
    তাছাড়া, অ্যাডিডাস এরও একটা বিশাল ক্ষতি হয়ে যেত আর্জেন্টিনার মেসি না খেললে। শুধু মেসি খেললে বিশ্বকাপে অ্যাডিডাস যে প্রচার ও প্রসার পাবে, সেটা মেসি ছাড়া পাওয়া বিস্তর কঠিন। এই অ্যাডিডাসই কিন্তু একটা ভিডিও বানিয়েছেল মেসিকে নিয়ে। বিশ্বকাপ না জিতায় সেটি আর প্রকাশ করা হয়নি।

অতএব, মেসির চলে যাওয়াটা আমাদের মত ফ্যানদের জন্য যতটা না ক্ষতিকর, ফুটবলের জন্য যতটা না ক্ষতিকর, তার চেয়ে বেশি ক্ষতিকর ঐ দুর্নীতিগ্রস্থ ফেডারেশনের- তার ইমেজ ক্ষুন্ন হবে বলে। কিংবা সেই অ্যাডিডাস এর যার প্রচারণার একটা বিশাল অংশ জুড়ে থাকে আইকনেরা। আর, ফেম ইজ মানি এটা নিশ্চয় আপনার আমার চেয়ে ফেডারেশান কিংবা অ্যাডিডাস কেউই বুঝে না 🙂

যাই হোক, বিশ্বকাপ ২০১৮ এর রানার্সআপ দলের অধিনায়ক মেসিকে স্বাগতম।
( যতক্ষণ না তারা তাদের ভাগ্য নিজেরা পরিবর্তন করে ) মাঠে নেমে দুই একটা টান মারবি আর কিছু অস্থির লবড থ্রু দিবি। আর কিছু চাই না। তিনটা আন্তর্জাতিক ট্রফি তো বেঞ্চে বইসা পেপে রেইনাও পায়।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

3 × 1 =