ফেল্পস এর শেষ কোথায়?

২০০০ সালের সিডনি অলিম্পিক থেকেই তিনি প্রতিযোগী, তবে সেবারের সব আলো কেড়ে নিয়েছিলেন ইয়ান থর্প। ২০০৪ এ প্রাচীন সভ্যতার লীলাভূমি গ্রীসে তিনি কেবল কড়ি, ফোটার মনেহয় ছিল অনেক দেরি। তার আসল রুপ দেখা গেলো চীনে, ২০০৮ সালের বেইজিং অলিম্পিকে। আট আটটি স্বর্ণ জিতে ভেঙে দেন স্পিতজ এর রেকর্ড। ২০১২ তে লন্ডনেও পারফরমেন্স ছিল ভালো। তবে এরপর অবসরের পর পথ হারানো শুরু। তখন যদি কেউ বলতেন ফেল্পস রিওতে স্বর্ণ জিতবেন, তবে নিঃসন্দেহে তাকে পাগল বলে আখ্যায়িত করা হতো। তবে ফেল্পস পেরেছেন! তীব্র ইচ্ছাশক্তির জোরে মানুষ যে যে কোন বাঁধার বিন্ধাচল গুড়িয়ে দিতে পারে, তা ফেল্পস প্রমাণ করেছেন। রিও অলিম্পিকেও তিনি স্বর্ণ জিতেছেন! তাও একটি নয়!

বয়সকে শুধুই একটা সংখ্যা প্রমাণ করেছেন ৩১ বছর বয়সী এই জলমানব। এখন শুধু একটাই প্রশ্ন, কোথায় থামবেন তিনি? তার আত্মজীবনীতেও কিন্তু তিনি প্রচ্ছন্ন ভাবে এর উত্তর দিয়েছেন, নো লিমিটস!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

15 − seven =