ফিন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা টিম প্রিভিউ : ডায়নামিক ডেভিলস এফসি

ফিন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা টিম প্রিভিউ : ডায়নামিক ডেভিলস এফসি

আগামীকাল সকাল সাড়ে আটটা থেকে বাড্ডার ফর্টিস স্পোর্টস গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এক ফুটবলীয় মিলনমেলা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা র‍্যাংকস এমএসিএল এর সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজন করতে যাচ্ছে “ফিন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা” এর সর্বপ্রথম আসর। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক সিক্স-এ-সাইড এই আসরে এবার অংশ নিচ্ছে আটটি দল, প্রত্যেকটি দলের খেলোয়াড়, ম্যানেজার, সংশ্লিষ্ট বাকী সকল সম্বন্ধে সম্যক ধারণা প্রদান করার উদ্দেশ্যে আজকে গোল্লাছুট ডটকমে প্রকাশিত হবে আটটা দলের টিম প্রিভিউ। এই পর্বে থাকছে ডায়নামিক ডেভিলস এফসি ফ্র্যাঞ্চাইজি সম্পর্কে প্রিভিউ। তো আসুন দেখে নেওয়া যাক এই দলে কে কে রয়েছেন!

  • ইমরান হোসেন
  • জুনায়েদ রশীদ জনি
  • নাহিয়ান অনিক
  • রেজাউল গণি
  • মহিউদ্দিন ফয়সাল
  • খন্দকার এ গালিব
  • তারিক মাহমুদ
  • রাশেদ রনি
  • এনায়েত রিয়াদ
  • মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন
  • তরিকুল ইসলাম তাজিম

ফিন্যান্সের ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ইমরান হোসেন মূলত এই ফ্র্যাঞ্চাইজিতে সব্যসাচীর ভূমিকা পালন করছেন। একইসাথে তিনি এই ফ্র্যাঞ্চাইজির স্বত্বাধিকারী, ম্যানেজার এবং অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়ও বটে। এর মধ্যেই বেশ কয়েকদিন নিজেদের মধ্যে অনুশীলন করে নিজেদের রসায়নটা ভালোভাবে বুঝে নেওয়ার মাধ্যমে নীরবে সবাইকে তারা জানিয়ে দিয়েছে, নিছকই খেলতে আসছে না তারা, তাদের চোখ শিরোপাতে নিবদ্ধ। ১৭ তম ব্যাচের তারকা উইঙ্গার জুনায়েদ রশীদ জনির উপরে দেওয়া হয়েছে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব। দলের অন্যতম তুরুপের তাসপ তিনি, আক্রমণের মধ্যমণিও বটে। জুনায়েদ জনির সাথে ২৪ তম ব্যাচের উদীয়মান তারকা তরিকুল ইসলাম তাজিমের উপরে থাকবে আক্রমণভাগ সামলানোর দায়িত্ব। এই দুইজনের পাশাপাশি দলে রয়েছেন আরেক সুপারস্টার, ২১ তম ব্যাচের তারকা ফরোয়ার্ড তারিক মাহমুদ। সব মিলিয়ে ডায়নামিক ডেভিলসের আক্রমণভাগ বেশ ভীতিজাগানিয়াই বলা চলে।

দলের মধ্যমাঠের কাণ্ডারি মূলত তিন অভিজ্ঞ যোদ্ধা – ১৩ তম ব্যাচের মহিউদ্দিন ফয়সাল ও এনায়েত রিয়াদ, ১৪ তম ব্যাচের রেজাউল গণি। এদের সাথে তারুণ্যের পতাকাবাহক হিসেবে মিডফিল্ডে থাকছেন ২১ তম ব্যাচের মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

আক্রমণভাগের মত দলের রক্ষণভাগও তারকায় ঠাসা। ইমরান হোসেন সম্পর্কে তো নতুন করে কিছু বলার নেই, দলে আরও রয়েছেন চলমান ব্যাচগুলোর খেলোয়াড়দের মধ্যে অন্যতম কার্যকরী ডিফেন্ডার নাহিয়ান অনিক। বিকল্প ডিফেন্ডার হিসেবে দলে রাখা হয়েছে ১৮ তম ব্যাচের রাশেদ রনিকে। আর গোলবার সামলানোর দায়িত্বে থাকবেন ১৯ তম ব্যাচের গোলরক্ষক খন্দকার এ গালিব।

রোলিং সাবস্টিটিউশান ভিত্তিতে ম্যাচগুলো মাঠে গড়াবে, অর্থাৎ একটা দল প্রয়োজনমত বিকল্প খেলোয়াড়দের মধ্যে থেকে যে কাউকে যখন ইচ্ছা মাঠে নামাতে পারে, মূল একাদশে থাকা যে কারোর বদলে।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

three × 1 =