ফিন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা টিম প্রিভিউ : দামাল দামামা

ফিন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা টিম প্রিভিউ : দামাল দামামা

আগামীকাল সকাল সাড়ে আটটা থেকে বাড্ডার ফর্টিস স্পোর্টস গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এক ফুটবলীয় মিলনমেলা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা র‍্যাংকস এমএসিএল এর সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজন করতে যাচ্ছে “ফিন্যান্স ফুটসাল ফিয়েস্তা” এর সর্বপ্রথম আসর। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক সিক্স-এ-সাইড এই আসরে এবার অংশ নিচ্ছে আটটি দল, প্রত্যেকটি দলের খেলোয়াড়, ম্যানেজার, সংশ্লিষ্ট বাকী সকল সম্বন্ধে সম্যক ধারণা প্রদান করার উদ্দেশ্যে আজকে গোল্লাছুট ডটকমে প্রকাশিত হবে আটটা দলের টিম প্রিভিউ। এই পর্বে থাকছে দামাল দামামা ফ্র্যাঞ্চাইজি সম্পর্কে প্রিভিউ। তো আসুন দেখে নেওয়া যাক এই দলে কে কে রয়েছেন!

  • দস্তগীর সরকার
  • আহাদুজ্জামান আহাদ
  • উইলিয়াম সৌরভ
  • আদনান আল রাহীন
  • আবুল হাশেম ইমন
  • রিসান আহমেদ
  • নিদেল শরীফ
  • ওমর ফারুক
  • সুব্রত
  • মোহাম্মদ জাহেদুল ইসলাম

দামাল দামামা ফ্র্যাঞ্চাইজিটির মালিকানার দায়িত্বে রয়েছেন ১৩ তম ব্যাচের দস্তগীর সরকার। ফিন্যান্স ফুটবল দলের এককালের এই কার্যকরী খেলোয়াড় খেলবেন মাঠেও। আর মাঠে এই ফ্র্যাঞ্চাইজিটিকে নেতৃত্ব দেবেন ১৯ তম ব্যাচের আদনান আল রাহীন। এই দলের রক্ষণভাগের সবচেয়ে বড় ও নির্ভরযোগ্য নাম অধিনায়ক আদনান আল রাহীন। ডিফেন্সের যেকোন জায়গায় (রাইটব্যাক, সেন্টারব্যাক, লেফটব্যাক) খেলতে পটু এই কুশলী ডিফেন্ডার খেলতে পারেন মিডফিল্ডেও। সতীর্থ ও দলের সাবেক খেলোয়াড়-ম্যানেজারদের কাছ থেকে ‘ডিপার্টমেন্টের মালদিনি’ নামটা তো এমনি এমনি পাননি! এবার এই ফ্র্যাঞ্চাইজির রক্ষণভাগকে নেতৃত্ব দেবেন ১৯তম ব্যাচের এই নেতা। ওদিকে ১৭ তম ব্যাচের দুর্দান্ত ফুলব্যাক উইলিয়াম সৌরভকে দেখা যাবে এই ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে মাঠ মাতাতে। তাঁর অভিজ্ঞতা ও বড় ম্যাচ খেলার মানসিকতা দলকে স্বাভাবিকভাবেই একটু এগিয়ে রাখবে। প্রথাগত “নো-ননসেন্স” ডিফেন্ডিং এর অন্যতম উদাহরণ তিনি, উইলিয়ামের কঠোর মার্কিং এড়িয়ে আর শারীরিক শক্তিকে পরাস্ত করে বাতাসে ভেসে আসা বলগুলো বা মিডফিল্ড থেকে আসা থ্রু বলগুলো দখল করবেন, এ সাধ্য কার? দলে ডিফেন্ডার হিসেবে আরও রয়েছেন মিডফিল্ডার মোহাম্মদ জাহেদুল ইসলাম। দলে রয়েছেন দুর্দান্ত গতিশীল উইঙ্গার ২২ তম ব্যাচের ওমর ফারুক। দলের প্রয়োজনে এই ওমর ফারুক আবার খেলতে পারেন স্ট্রাইকার/সেন্টার ফরোয়ার্ড হিসেবেও। দলের মিডফিল্ডার হিসেবে রয়েছেন সুব্রত, রিসান আহমেদ ও ১৭ তম ব্যাচের নিদেল শরীফ। দলে স্ট্রাইকার হিসেবে নেওয়া হয়েছে ২০ ব্যাচের আবুল হাশেম ইমনকে, সাধারণত ডিফেন্ডার হিসেবে খেলা ইমন এবার স্ট্রাইকার হিসেবে কিরকম করতে পারেন, দেখার বিষয় এখন সেটাই!

আর গোলরক্ষক হিসেবে এই ফ্র্যাঞ্চাইজিতে নেওয়া হয়েছে ১৮ তম ব্যাচের নির্ভরযোগ্য গোলরক্ষক, একাধিক এফসিএল শিরোপাজয়ী গোলরক্ষক আহাদুজ্জামান আহাদকে।

রোলিং সাবস্টিটিউশান ভিত্তিতে ম্যাচগুলো মাঠে গড়াবে, অর্থাৎ একটা দল প্রয়োজনমত বিকল্প খেলোয়াড়দের মধ্যে থেকে যে কাউকে যখন ইচ্ছা মাঠে নামাতে পারে, মূল একাদশে থাকা যে কারোর বদলে।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

eighteen + 14 =