ছন্নছাড়া

::: রিয়াদ ইবনে মুসা :::

লাঞ্চের পর টিভি ছেড়ে দেখি রুট তার এত্তবড় হাতা বের করে বিপুল বিক্রমে বল ঘষাঘষি শুরু করে দিয়েছে। অবাকই হচ্ছিলাম। কি ব্যাপার, ইংলিশরা এত আগেআগে এই জিনিশ চাচ্ছে! মনে যে কু ডাকে নাই তা না, এমনি ঢাকায় ফুরফুরা বাতাস বয়ে যাচ্ছে, এই জিনিশ সামলানোর ক্ষমতা – ওয়েল, দেখাই তো যাচ্ছে। ওয়কস ৩টা, স্টোকস ২টা।

স্পিনে যদি সমানে সমান হইও, এইখানেই তো পার্থক্য পরিষ্কার। রাব্বি নাকি খুব ভালো রিভার্স সুইং পারে, চিটাং টেস্টে দেখলামও কিছুটা, বাট পরিক্ষিত যে, রুবেল হোসেন, মানলাম তার উইকেট কম, স্টিল, সে বিবেচনায় নাই। আছে একটাই, রাব্বি, যার অভিজ্ঞতা ১ টেস্ট। কদ্দুর যে পারবে তাও জানি না। (খুব করে চাই কালকে আমাদের জানায় দিক যে সেও পারে)

রাব্বি যদি ভালো করেও, দুই প্রান্ত থেকে এই জিনিশ দেখার আফসোসটা কিন্তু থেকেই যাবে। উইকেট পাওয়াই কি মূখ্য? ব্যাটসম্যান কে প্রেশারে রাখলে উইকেট এমনি আসতো। কথা হচ্ছে – কার জায়গায়?

শুভাগত হোম, ক্ষমতার হাত আসলে কতবড় আপনার?

আমি এখন হতাশ। হতাশ ওকে দেখতে দেখতে। আর ভাল্লাগেনা।

ওর পজিশনের প্লেয়ার কম? মিরাজ, রিয়াদ স্কোয়াডেই। বাইরে থেকে আর কাওকে চাইলেও নাসির, মোসাদ্দেক। মোসাদ্দেকই তো ছিলো। লাস্ট মোমেন্টে কেমনে কি হইলো কিছুই বুঝলাম না।

আর আমাদের অর্ডারেও এত কাবঝাব! আপনি অস্ট্রেলিয়ার দিকে তাকান, বেইলিকে বসানো হয় রেগুলার, জাস্ট যদি টিম ম্যানেজমেন্ট মনে করে তার পজিশনে আর কেউ ভালো করতে পারে। রিটায়ার্ড করার আগে ওয়াটসন, ভোজেস। ফিঞ্চকে সরায় যখন খাওয়াজাকে নেয়, ফিঞ্চ তখন মোস্ট প্র’লি র‍্যাংকিং এ ১. এবার সুরেশ রায়নাকে বসায় দিলো মানিশ পান্ডিয়াকে খেলাইতে। আর আমাদের ৩ এও ব্যাট করে ৩ এর ব্যাটসম্যান, ৯ এও ৩ এর ব্যাটসম্যান। মিরাজ, সাব্বির, হোম প্রত্যেকে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। এদের থেকে পারফরম্যান্স যে আশা করবো, কিভাবে! সাব্বির ওডিয়াইতে ৭ এ ভালো না ৩ এ ক্লিক করসে বেশি? টেস্টে তো মিরাজ ধরতেই পারতেসে না। সৌম্যর হারানোর শুরুটাও মনে করেন, কোন টেস্টে জানি ৭ এ নামায় দিলো গতবছর। টেস্ট ওডিয়াই টি২০ সব তো গুলাইসিই তো, অর্ডারও গুলাইসি। কথা হচ্ছে, ৭/৮ এর প্লেয়ার কে? আছে কিন্তু, কিন্তু ওকে নেওয়া হবে না। জিদ টা যে কার হাথুরার নাকি পাপনের তাইই বুঝি না আমি। ভাল্লাগেনা খুব?

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

two × one =