কোহলির রেকর্ড

নেতৃত্ব পাওয়ার দুই বছরের মধ্যেই ভারতের ইতিহাসে সব টেস্ট অধিনায়ককে ছাড়িয়ে গেলেন বিরাট কোহলি। প্রথম ভারতীয় অধিনায়ক হিসেবে করলেন দুটি ডাবল সেঞ্চুরি!

এটা ছাড়াও আরো দুইটি উল্লেখযোগ্য রেকর্ড করেছেন আজ কোহলি। এই পঞ্জিকাবর্ষে দুই ডাবল সেঞ্চুরি করে ভারতীয়দের মধ্যে একই পঞ্জিকাবর্ষে দুটি ডাবল সেঞ্চুরি করাদের তালিকায় নাম লিখিয়েছেন তিনি, তাঁর আগে যে কৃতিত্বটা ছিল ভিনোদ কাম্বলি, রাহুল দ্রাবিড়, ভিরেন্দর শেহওয়াগ এবং… হ্যাঁ, ঠিক ধরেছেন, শচীন টেন্ডুলকারের। শচীনের এই কীর্তি আছে আবার দুই-দুইবার। একবার ২০০৪ সালে, আরেকবার ২০১০ সালে। শেহওয়াগের এক পঞ্জিকাবর্ষে দুটো ডাবল সেঞ্চুরির মধ্যে একটা আবার ট্রিপল, ৩১৯ রানের।

তাছাড়া অজিঙ্কা রাহানের সাথে চতুর্থ উইকেট জুটিতে ভারতীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ পার্টনারশিপের রেকর্ডটাও নিজেদের করে নিয়েছেন কোহলি। রাহানের সাথে ৩৬৫ রানের জুটিটা এখন চতুর্থ উইকেটে ভারতীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ। ভারতের হয়ে চতুর্থ উইকেটে আগের সর্বোচ্চ জুটি ছিল শচীন টেন্ডুলকার ও ভিভিএস লক্ষ্মনের। ২০০৪ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিডনিতে ৩৫৩ রানের জুটি গড়েছিলেন এই দুই ভারতীয় গ্রেট। অপরাজিত ২৪১ করেছিলেন টেন্ডুলকার, ১৭৮ লক্ষ্মণ।

সব উইকেট মিলিয়ে ভারতীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ রানের জুটির রেকর্ডটা এখনো পঙ্কজ রায় ও ভিনু মানকড়ের, প্রথম উইকেট জুটিতে এই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেই ৪১৩ করেছিলেন তাঁরা।

শেষ পর্যন্ত ২১১ রানে আউট হয়েছেন কোহলি। অল্পের জন্য ছুঁতে পারেননি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে কোনো অধিনায়কের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। ১৯৯৯ সালে আহমেবাবাদে ২১৭ রান করে রেকর্ডটি শচীন টেন্ডুলকারের।

এত রেকর্ডের প্রথম ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের সাথে ৫ উইকেটে ৫৫৭ করে ইনিংস ঘোষণা করেছে ভারত। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৯ ওভারে ২৮ রান করে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে কিউইরা।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

eighteen − 11 =