ইয়াসপার চিলেসেন : কিরকম হবেন বার্সার নতুন কিপার?

ডাচ গোলরক্ষক ইয়াসপার চিলেসেন সম্বন্ধে কোন ফুটবল অনুরাগীকে জিজ্ঞাসা করলে প্রথমেই তাঁর যে কথাটা মনে আসবে, সেটা হল সেই বিখ্যাত সাবস্টিটিউশানটার কথা। যে সাবস্টিটিউশানের কারণে ডাচ কোচ লুই ভ্যান হাল অন্তত কয়েকমাসের জন্য হলেও ফুটবল বিশ্বের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ট্যাকটিশিয়ান হয়ে গিয়েছিলেন একটি বিশেষ শ্রেণীর (!) কাছে। ২০১৪ বিশ্বকাপে কোস্টারিকার বিপক্ষে ডাচদের ১২০ মিনিটের গোলশূণ্য কোয়ার্টার ফাইনালের পর পেনাল্টি শুটআউটের সময় পুরো ১২০ মিনিট মাঠে থাকা ডাচ গোলরক্ষক ইয়াসপার চিলেসেনের প্রতি ভরসা রাখতে পারেননি তৎকালীন কোচ লুই ভ্যান হাল, সাবস্টিটিউট করে মাঠে নামিয়ে দিয়েছিলেন দ্বিতীয় গোলরক্ষক নিউক্যাসল ইউনাইটেডের টিম ক্রুল কে। টোটকাটা কাজে লেগেছিল ভালোই। দুই-দুইটা পেনাল্টি আটকে ডাচদের সেমিফাইনালে ওঠার টিকিট কেটেছিলেন এই টিম ক্রুলই।

3791F7B500000578-0-image-a-52_1472120797459

পুরো ক্যারিয়ার জুড়েই এই সমালোচনাটা সঙ্গী হয়েছে চিলেসেনের – ভালো গোলরক্ষক, কিন্তু পেনাল্টি আটকানোয় দক্ষ না। আর ভ্যান হালের সেই বিখ্যাত সাবস্টিটিউশানের পর ত বোধকরি আবাল-বৃদ্ধ-বণিতা সবার কাছেই এই ধারণাটা আরো ভালোভাবে পোক্ত হয়ে গিয়েছিল। এবং হওয়াটাই স্বাভাবিক। পুরো ক্যারিয়ারজুড়ে যে মাত্র একটা পেনাল্টি আটকাতে পেরেছেন চিলেসেন! তাও গতবছর, ওয়েলসের সাথে।

তা যাই হোক, ১২.৮ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে ডাচ ক্লাব আয়াক্স আমস্টারডাম থেকে বার্সেলোনায় আসা নতুন গোলরক্ষক ইয়াসপার চিলেসেনের দুর্বলতা বলতে আপাতত এই একটাই। আর যে দল সাধারণত বিপক্ষ দলের থেকে প্রায় প্রতি ম্যাচেই গোল বেশী করে, সেই দলের চিলেসেনের এই সমস্যা নিয়ে বেশী চিন্তিত হবার দরকারও সেরকম নেই। কারণ এটা বাদ দিলে চিলেসেন যথেষ্ট ভালো একজন গোলরক্ষক, নাহয় অবশ্যই টিম ক্রুল, কেনেথ ভার্মির, মিচেল ভর্ম, জোরেওন জোয়েটকে পেছনে ফেলে নেদারল্যান্ডসের মত একটা পরাক্রমশালী দলের প্রথম পছন্দের গোলরক্ষক হয়ে থাকতে পারতেন না গত কয়েক বছর ধরে, তাই না? তাঁর উপর গত দুই বছর ধরে আয়াক্স আমস্টারডামের মত ক্লাবের সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন এই চিলেসেন, গত মৌসুমে শেষ ৩৩টা ম্যাচের মধ্যে ১৮টা ম্যাচেই কোন গোল খাননি, এসব অর্জনই ত বলে দেয় গোলরক্ষক হিসেবে চিলেসেনের মান কতটা উঁচুতে।

বার্সার নতুন গোলপ্রহরী - ইয়াসপার চিলেসেন
বার্সার নতুন গোলপ্রহরী – ইয়াসপার চিলেসেন

দুই উইং থেকে উড়ে আসা ক্রসগুলো সামলানোয় বিশেষভাবে দক্ষ চিলেসেনের একটা স্বভাব হচ্ছে অনেক সময়েই বিপৎমুহূর্তে বলকে পাঞ্চ করে সরিয়ে দেন তিনি। ২৭ বছর বয়সী এই ডাচ গোলরক্ষকের আরেকটা বিশেষ গুণ হল তিনি ডিফেন্ডারদের সাথে অত্যন্ত নিয়মিত ও ভালোভাবে যোগাযোগ রাখতে পারেন, চেঁচাতে পারেন ইচ্ছামতো, চেঁচিয়ে চেঁচিয়ে তাঁর কর্তৃত্বপরায়ণতাটা বাকী ডিফেন্ডারদের বুঝিয়ে দেন ভালোই। তাঁর এই নেতৃত্বগুণের ফলে ডিফেন্স লাইনে একটা সমঝোতার সৃষ্টি হয় ডিফেন্ডার ও গোলরক্ষকের মাঝে। উচ্চতা মাত্র ৬ ফিট ১ ইঞ্চি হলেও বাতাসে ভেসে আসা বলগুলো সামলানোর ব্যাপারে দারুণ দক্ষ চিলেসেন, পেনাল্টি ছাড়া অন্যান্য সেট-পিসের ক্ষেত্রেও তাঁর উপর ভরসা রাখা যায় তাই ভালোভাবেই।

আয়াক্সের হয়ে নিয়মিত চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলা ও ঘরোয়া লিগে ট্রফি জেতা এই গোলরক্ষকের তাই অভিজ্ঞতার কমতি নেই। আবার ২৭ বছর বয়সে বার্সাতে আসার ফলে ধরেই নেওয়া যায় লুইস এনরিকের অধীনে তিনি আরো নতুন কিছুই ভালোভাবে শিখবেন, আত্মস্থ করবেন বার্সেলোনার ফিলোসোফি। এক্ষেত্রে চিলেসেনের একটা সুবিধা হল তিনি এতদিন আয়াক্সের গোলরক্ষক ছিলেন, আর আয়াক্সের সাথে বার্সেলোনার ফুটবল-দর্শনের সামঞ্জস্যতার কথা কার না জানা! তাই নতুন কিছু শিখতেও চিলেসেনের সেরকম বেগ পাওয়ার কথা না।

বার্সার এতদিনে নাম্বার ওয়ান ক্লদিও ব্রাভো যোগ দিচ্ছেন পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটিতে
বার্সার এতদিনে নাম্বার ওয়ান ক্লদিও ব্রাভো যোগ দিচ্ছেন পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটিতে

আয়াক্স বা বার্সেলোনা, দুই দলের ফুটবল ফিলোসোফির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দিক হল, দুই দলই মোটামুটি গোলরক্ষকের পা থেকেই আক্রমণের সূচনা করতে পছন্দ করে। এ জন্য শুধুমাত্র বলে জোরে লাথি দেওয়া কিংবা উড়ে আসা বল সেইভ করাই নয়, বার্সা বা আয়াক্সের গোলরক্ষের পাসিং করার ক্ষেত্রেও হতে হয় অত্যন্ত দক্ষ। বল পজেশানে রাখা, পেছন থেকে আক্রমণ শানানোর ক্ষেত্রে বার্সা বা আয়াক্সের গোলরক্ষকের ভূমিকা থাকে অনেক। আর এই ক্ষেত্রে চিলেসেন কিন্তু একেবারেই মন্দ নন। হয়তোবা বার্সার সদ্য সাবেক গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভোর মত বল পজেশানে রাখার ক্ষেত্রে অতটা দক্ষ নন চিলেসেন। তবে গত কয়েকবছরে চিলেসেনের সফল পাস দেওয়ার হার মোটামুটি ৬৩-৬৭%, যেখানে ব্রাভোর ৮০-৮৫% ; লুইস এনরিকের অধীনে এই অনুপাত যে বাড়বে না তাঁর গ্যারান্টি কি? বাড়তেই পারে! তা ছাড়া গত কয়েকবছরে চিলেসেনের শট আটকানোর হার মোটামুটি ৮১%।

বার্সার নাম্বার ওয়ান হতে চিলেসেনকে লড়তে হবে টার স্টেগেনের সাথে
বার্সার নাম্বার ওয়ান হতে চিলেসেনকে লড়তে হবে টার স্টেগেনের সাথে

বার্সায় এই মৌসুমে প্রধান গোলরক্ষক হিসেবে জার্মান গোলরক্ষক আর্ক আন্দ্রে টার স্টাগেনের জায়গা নিশ্চিত, তাঁর ব্যাকআপ হিসেবে তাই বলা যায় যোগ্য একজনকেই পেতে যাচ্ছে বার্সেলোনা।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

13 − eight =