উপভোগ করতে দিন ছেলেদের

“অনেক চাপ আমাদের ওপর। একটা ম্যাচ হারলেই অনেক কথা হবে…”

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে প্রথম ম্যাচের আগে আমাদের অধিনায়কের অনেক কথার একটি কথা। কেন এত চাপ?

হ্যাঁ, ক্রিকেটারদের চাপ নিয়েই খেলতে হবে। আমাদের উপমহাদেশে এটা সত্যি। আমাদের দেশে আরও বেশি সত্যি। তবে সেই চাপ কেন এমন হবে যে আমাদের দলটাই হাঁসফাঁস করবে? সেই চাপের মাত্রা কেন এমন হবে যে কোনো মাত্রাই থাকবে না? সেই চাপের ভার কেন এমন হবে যে পিষ্ট হবে দল!

দলটা জানে, একটা মাচ হারলেই অনেক কথা হবে। এটা কি একটা দলের জন্য আদর্শ কিছু হলো? দিনশেষে এটা ক্রিকেট। স্রেফ একটি খেলা। জীবন-মরণ যুদ্ধ নয়। দেশের মান-ইজ্জতের ব্যাপারও নয়। দেশের ইজ্জত এত সস্তা না যে ক্রিকেট খেলার ওপর নির্ভর করবে।

ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড আর নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলা। কন্ডিশনের চ্যালেঞ্জটা হাওয়াই ব্যাপার নয় যে উড়িয়ে দিলাম। এই কন্ডিশনে এই তিন প্রতিপক্ষ এমন নয় যে তুড়ি বাজিয়ে জিতে গেলাম।

নাহ, সবাইকে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ হতে বলছি না। ভাবছি না। তবে ইংল্যান্ডের মাটিতে এই তিন দলের বিপক্ষে বাংলাদেশের কাজ কতটা কঠিন, এটা বুঝতে বিশেষজ্ঞ হতে হয় না। ক্রিকেট একটু অনুসরণ করলে আর মিনিমাম বিবেচনাবোধ থাকলেই চলে!

আমাদের অধিনায়ক আজকে আক্ষেপের হাসিতে বলেন, “লোকে ভাবছে আমরা ট্রফি নিয়ে ফিরব। কিন্তু বাস্তবতা তো বুঝতে হবে!”

আবেগের কথা বলবেন? অবশ্যই আবেগ থাকবে। ক্রিকেটে আবেগ থাকবে। তবে সেটির লাগামও নিজের হাতে রাখতে হবে। আবেগকে লাগামহীন পাগলা ঘোড়া হতে দেওয়া যাবে না। ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক… কোন ক্ষেত্রে আমাদের আবেগ লাগামহীন? কোনো ক্ষেত্রেই না। বরং প্রত্যাশার ক্ষেত্রে আমরা ইচ্ছে করেই আবেগ চেপে রাখি। আমার পরিবারকে, বন্ধুকে নির্ভার রাখতে চাই। তাহলে ক্রিকেটে কেন লাগামহীন আবেগ চাপিয়ে দেব? আমার লাগামহীন আবেগের দায় কেন ক্রিকেটাররা নেবে?

আবেগ থাকবেই, আবারও বলছি। কিন্তু সেটা বাস্তবতা বিবর্জিত নয়। চারপাশের কোনো ক্ষেত্রেই প্রত্যাশায় আমাদের আবেগ সীমা ছাড়ায় না। ক্রিকেটে কেন?

আমরা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলছি, এটাই একটা উপলক্ষ্য। উদযাপনের উপলক্ষ্য। উপভোগের উপলক্ষ্য। যদি আরও বেশি উদযাপনের উপলক্ষ্য আসে, তবে সোনায় সোহাগা। না এলেও বলব, আমাদের ছেলেদের নিয়ে আমরা গর্বিত। এই দলটি গত আড়াই বছরে অনেক অনেক খুশির উপলক্ষ্য এনে দিয়েছে আমাদের। সামনেও দেবে। এই টুর্নামেন্টের বাস্তবতা কঠিন।

আমরা উপভোগ করি, ছেলেদের উপভোগ করতে দেই। আনন্দের জন্য খেলা দেখি। একটা উপভোগ করতে থাকা দলের খেলা দেখার চেয়ে উপভোগ্য কিছু আর নেই। নিজেরা উপভোগ করি, ছেলেদেরও উপভোগ করতে দেই।

আর ওরা যদি উপভোগ করতে শুরু করে, তাহলে জেনে রাখুন, সেটিই প্রতিপক্ষের জন্য দুযোর্গ!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

four × 5 =