রিয়ালের ভবিষ্যতের লেফটব্যাক – থিও হার্নান্দেজ

পরবর্তী মৌসুমের জন্য দলবদলের চিন্তা শুরু করে দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিনেদিন জিদান। ক্লাবের সুপারস্টার লেফটব্যাক মার্সেলোর ব্যাকআপ এতদিন বিভিন্ন সময়ে হয় স্প্যানিশ ডিফেন্ডার নাচো থেকেছেন, নয় পর্তুগিজ লেফটব্যাক ফাবিও কোয়েন্ত্রাও থেকেছেন। কিন্তু কোয়েন্ত্রাও কখনই নিজের প্রতিভার প্রতি সেরকম সুবিচার করতে পারেননি, আর নাচো অনেকটা “জ্যাক অফ অল ট্রেডস, মাস্টার অফ নান” এর মত। তাঁর উপর গত বেশ কিছু সময় ধরেই নাচোকে সেন্টারব্যাক হিসেবে খেলাচ্ছেন জিনেদিন জিদান। তাই দলে একটা নতুন লেফটব্যাক ব্যাকআপ আনার বিষয়টা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়েছিল। সেই উদ্দেশ্যেই রিয়াল মাদ্রিদ হাত বাড়ালো শহর-প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের দিকে, তাদের ফরাসী লেফটব্যাক থিও হার্নান্দেজকে দলে আনলো তারা।

শহরপ্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের এই খেলোয়াড় এই মৌসুমে ধারে খেলছেন দেপোর্তিভো আলাভেসে, সেখানেই নজর কাড়ছেন সবার। নজর এড়ায়নি মাদ্রিদ কোচ জিদানেরও। ২৪ মিলিয়ন ইউরোর ট্রান্সফার ফি এর বিনিময়ে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দিতে যাওয়া হার্নান্দেজ এরই মধ্যে মেডিক্যাল পরীক্ষাতেও উত্তীর্ণ হয়েছেন, অর্থাৎ টেকনিক্যালি মাদ্রিদে যোগ দিতে হার্নান্দেজের আর কোন সমস্যাই নেই। হার্নান্দেজের মাদ্রিদে যোগ দেওয়ার ফলে তাদের নিয়মিত লেফটব্যাক ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার মার্সেলোও একটা ভালো ব্যাকআপ পেল, এবং এর ফলে পর্তুগিজ লেফটব্যাক ফাবিও কন্ত্রাওয়ের মাদ্রিদ ছাড়ার বিষয়টাও মোটামুটি নিশ্চিতই হয়ে গেল। থিও হার্নান্দেজের ভাই লুকাস হার্নান্দেজ সেন্টারব্যাক হিসেবে খেলছেন রিয়ালের শহরপ্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে।

উনিশ বছর বয়সী এই ডিফেন্ডার গত মৌসুমে আলাভেসের হয়ে ৩৮ টি ম্যাচ খেলেছেন, মোটামুটি তিন হাজার মিনিটের কিছু বেশী ছিলেন মাঠে। গত মৌসুমে আলাভেসের হয়ে দুই গোল ও তিনটি গোলসহায়তা করা এই ডিফেন্ডার ফ্রি-কিক নিতেও বেশ পটু, গত মৌসুমে জায়ান্ট বার্সেলোনার বিপক্ষে কাপ ফাইনালে ফ্রিকিকে একটি গোলও আছে তাঁর। আদতে লেফটব্যাক হলেও খেলতে পারেন লেফট উইঙ্গার ও সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার হিসেবেও, খেলতে স্বচ্ছন্দ ছিলেন আলাভেসের ৪-২-৩-১ ফর্মেশানে। মার্সেলোর মতই আক্রমণাত্মক, স্বাভাবিকভাবেই ক্রস করতে বেশ পছন্দ করেন প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে। অনেক সময় দেখা যায় নিজের দলের লেফট উইঙ্গারকে ওভারল্যাপ করে নিজেই উপরে উঠে গিয়ে ক্রস দিয়ে আসছেন। দূর থেকে শট করতে পারেন বেশ ভালো, বাতাসে ভেসে আসা বলগুলো সামলাতেও বেশ ভালো তিনি। ৬৫ টা সফল ড্রিবল করে লা লিগার সফল দশ ড্রিবলারের মধ্যেও তাঁর আছে স্থান। চূড়ান্ত গতিশীলতার কারণে তাঁকে জর্ডি অ্যালবা থেকে শুরু করে গ্যারেথ বেল, সবার সাথেই তুলনা দেওয়া হচ্ছে। হার্নান্দেজ নিজেও বিশ্বাস করেন একটা লেফটব্যাক হিসেবে তাঁর ভূমিকা শুধুমাত্র রক্ষণেই সীমাবদ্ধ নেই, দরকার পড়লে উঠে যেতে হবে আক্রমণেও।

মার্সেলোর হয়তবা ব্যাকআপ হিসেবেই আসছেন হার্নান্দেজ, কিন্তু ভবিষ্যতে রিয়াল মাদ্রিদের মত ক্লাবের মূল লেফটব্যাক হবার সকল গুণাবলীই আছে তাঁর, সেই ঝলক তিনি এরই মধ্যে দেখিয়েছেন।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

nine − 6 =