বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ – আইসল্যান্ড

বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - আইসল্যান্ড

দোরগোড়ায় বিশ্বকাপ। ২০১৮ সালের বিশ্বকাপ শুরু হতে আর বেশী দেরী নেই। সামনের জুন মাসের ১৪ তারিখ থেকেই শুরু হতে যাচ্ছে বিশ্ব ফুটবলের এই মহাযজ্ঞ। এর মধ্যেই বিভিন্ন দল বিশ্বকাপে নিজেদের স্কোয়াডটা কেমন হবে সেটা ঘোষণা করা শুরু করে দিয়েছে। যেমনটা করেছে ২০১৬ ইউরোর সারপ্রাইজ প্যাকেজ আইসল্যান্ড । 

এবারের বিশ্বকাপে আইসল্যান্ড পড়েছে গ্রুপ ‘ডি’ তে। এই গ্রুপে আইসল্যান্ডের পাশাপাশি আছে দুইবারের বিশ্বকাপজয়ী মহাপরাক্রমশালী আর্জেন্টিনা, আফ্রিকান দল নাইজেরিয়া ও ইউরোপিয়ান পরাশক্তি ক্রোয়েশিয়া। গত ইউরোতে প্রথমবারের মত খেলতে এসেই সবাইকে চমকে দিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠা মাত্র ৩ লাখ ৩৭ হাজার লোকের আইসল্যান্ড এবার প্রথমবারের মত খেলতে আসছে বিশ্বকাপ ফুটবল এ। গতবার ইউরোতে ইংল্যান্ডের মত দলকে হারিয়ে দেওয়া আইসল্যান্ড এবার বিশ্বকাপেও চমক দেখাতে পারে – এ কথা ফেলে দেওয়ার মত নয়। উজ্জীবিত আইসল্যান্ডকে তাই আর্জেন্টিনা-নাইজেরিয়া বা ক্রোয়েশিয়াকে হারাতে দেখলে চমকে উঠবেন না যেন!

বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - আইসল্যান্ড

দেখে নেওয়া যাক স্কোয়াডটা কিরকম হল!

গোলরক্ষক

  • হ্যানস পর হ্যালডরসন (র‍্যানডার্স)
  • রুনার অ্যালেক্স রুনারসন (নর্দায়েল্যান্ড)
  • ফ্রেডেরিখ শ্রাম (রসকিলড)

ডিফেন্ডার

  • বিরকির মার স্যেভারসন (ভ্যালুর)
  • র‍্যাগনার সিগুর্ডসন (রোস্তভ)
  • কার্ল আরনাসন (অ্যাবার্ডিন)
  • আরি ফ্রেইর স্কুলাসন (লোকেরেন)
  • সভেরির ইঙ্গি ইঙ্গাসন (রোস্তভ)
  • হোরডুর বোর্গভিন ম্যাগনাসন (ব্রিস্টল সিটি)
  • হোলমার ওর্ন এইয়োলফসন (লেভস্কি সোফিয়া)
  • স্যামুয়েল ফ্রিডইয়োনসন (ভ্যালেরেঙ্গা)

মিডফিল্ডার

  • অ্যারন গুনারসন (কার্ডিফ সিটি) – অধিনায়ক
  • বিরকির বিয়র্নাসন (অ্যাস্টন ভিলা)
  • ইয়োহান বার্গ গুডমুন্ডসন (বার্নলি)
  • এমিল হালফ্রেডসন (উদিনেসে)
  • গিলফি সিগুর্ডসন (এভারটন)
  • রুরিক জিসলাসন (স্যান্ডহাউজেন)
  • ওলাফুর ইঙ্গি স্কুলাসন (কারদেমির কারাবুর্কস্পোর)
  • আর্নর ইংভি ট্রস্টাসন (মালমো)

স্ট্রাইকার

  • অ্যালফ্রেড ফিনবগাসন (অগসবুর্গ)
  • জন দাদি বদভারসন (রিডিং)
  • বিয়োর্ন বার্গম্যান সিগুর্ডারসন (রোস্তভ)
  • অ্যালবার্ট গুডমুন্ডসন (পিএসভি আইন্দহোভেন)

ব্যক্তিগত জীবনে একজন দন্তবিদ বা ডেন্টিস্ট, আইসল্যান্ড কোচ হেইমির হালগ্রিমসন এবারো ইউরো ২০১৬ এর সাফল্যের পুনরাবৃত্তি করতে চাইবেন এ কথা বলাই যায়। তার উপর এই রাশিয়া বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে আইসল্যান্ড এর ইতিহাসের প্রথম বিশ্বকাপ, স্মরণীয় করে রাখার মত সকল মালমশলা এর মধ্যেই জোগাতে শুরু করে দিয়েছেন হেইমির হালগ্রিমসন।

সাধারণত ৪-৪-১-১ বা ৪-৪-২ ফর্মেশানে খেলতে পছন্দ করে আইসল্যান্ড। বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব বা সাম্প্রতিক প্রীতি ম্যাচগুলোর দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যায় গোলবারের নিচে হ্যানস পর হ্যালডরসনের জায়গা একরকম নিশ্চিত। যদিও শেষের কয়েকটা প্রীতি ম্যাচে কোচ ফ্রেডেরিখ শ্রাম ও রুনার অ্যালেক্স রুনারসনকে খেলিয়েছেন, কিন্তু তা শুধুমাত্রই বিশ্বকাপ দলের বাকী দুই গোলরক্ষকের জায়গা নিশ্চিত করার জন্যই।

আইসল্যান্ড এর চারজনের ডিফেন্সে সেন্টারব্যাক জুটি হিসেবে থাকার সম্ভাবনা সবচাইতে বেশী রোস্তভের র‍্যাগনার সিগুর্ডসন ও অ্যাবার্ডিনের কার্ল আরনাসনের। এর মধ্যে র‍্যাগনার সিগুর্ডসনকে নিয়মিত ফুটবল অনুসরণ করা মানুষজন চিনতে পারবেন, ভদ্রলোক গত ইউরোতে চেক প্রজাতন্ত্র ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুই গোল করেছিল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে গোলটা তাদেরকে অবিস্মরণীয় জয় এনে দেয়, আর শেষ মুহূর্তে জেইমি ভার্ডিকে করা ট্যাকলটার জন্যই ইংল্যান্ড সেই ম্যাচে আর কোন সমতা পায়নি। বিশ্বকাপেও এই সিগুর্ডসন-আরনাসন জুটি ভাঙ্গার কোন সম্ভাবনা নেই। তাদের মূল ব্যাকআপ হিসেবে থাকছেন রোস্তভের আরেক সেন্টারব্যাক সভেরির ইঙ্গি ইঙ্গাসন।

রাইটব্যাক হিসেবে আইসল্যান্ড এর মূল একাদশে অবশ্যই থাকছেন বিরকির মার স্যেভারসন। আর ওদিকে লেফটব্যাক হিসেবে লোকেরেনের আরি ফ্রেইর স্কুলাসন কিংবা ব্রিস্টল সিটির হোরডুর বোর্গভিন ম্যাগনাসান এর মধ্যে যেকোন একজন থাকছেন, ম্যাগনাসানের থাকার সম্ভাবনাই বেশী।

চারজনের মিডফিল্ডে সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার দুইজন হিসেবে থাকবেন অধিনায়ক অ্যারন গুনারসন ও দলের সবচেয়ে বড় সুপারস্টার, এভারটনের ইতিহাসের সবচাইতে দামী খেলোয়াড় – গিলফি সিগুর্ডসন। তাদের ব্যাকআপ হিসেবে দলে অন্য সেন্ট্রাল মিডফিল্ডাররা হলেন – উদিনেসের এমিল হালফ্রেডসন, অ্যাস্টন ভিলার বিরকির বিয়োর্নাসন। বিয়োর্নাসন আবার খেলতে পারেন ওয়াইড মিডফিল্ডার হিসেবেও। ওয়াইড মিডফিল্ডার হিসেবে কোচের মূল পছন্দ এই বিয়োর্নাসন আর বার্নলির উইঙ্গার ইয়োহান বার্গ গুডমুন্ডসন। ওয়াইড মিডফিল্ডে ব্যাকআপ থাকছেন আর্নর ইংভি ট্রস্টাসন ও রুরিক জিসলাসন। আবার আইসল্যান্ড ৪-৪-২ বা ৪-৪-১-১ ফর্মেশানে না খেলে ৪-২-৩-১ ফর্মেশানে চলে গেলে গিলফি সিগুর্ডসন আরেকটু সামনে উঠে সেন্ট্রাল অ্যাটাকিং মিডফিল্ডারের অবস্থানে চলে যান, তখন সেন্ট্রাল মিডফিল্ডে গুনারসনের সাথে জুটি বাঁধেন হালফ্রেডসন।

বিশ্বকাপ ২০১৮ : টিম প্রিভিউ - আইসল্যান্ড
গিলফি থর সিগুর্ডসন

আইসল্যান্ড মূলত একজন টার্গেটম্যান ও একজন সহকারী স্ট্রাইকার – এই দুই স্ট্রাইকার নিয়ে খেলে। এই দুজনের মধ্যে মূল স্ট্রাইকার হিসেবে মূল একাদশে থাকার সম্ভাবনা সবচাইতে বেশী অগসবুর্গের অ্যালফ্রেড ফিনবগাসনের। তাঁর সাথে সেকেন্ড স্ট্রাইকার হিসেবে থাকবেন রিডিং এর জন দাদি বদভারসন।

মোটামুটি র‍্যাগনার সিগুর্ডসন, অ্যারন গুনারসন, গিলফি সিগুর্ডসন, ইয়োহানবার্গ গুডমুন্ডসন ও অ্যালফ্রেড ফিনবগাসন – এই ক’জনই আইসল্যান্ডের মূল খেলোয়াড়। আইসল্যান্ডকে আটকাতে হলে তাই প্রতিপক্ষের উচিৎ হবে এই কয়েকজনকে আটকানো পরিকল্পনা আগে করা। এখন প্রশ্ন হল, আর্জেন্টিনা-নাইজেরিয়া ও ক্রোয়েশিয়া কি পারবে এই উদ্যমী আইসল্যান্ড কে থামাতে? নাকি গত ইউরোতে ইংল্যান্ডের ভাগ্যের মত ভাগ্য বরণ করতে হবে এদের কাউকে?

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

2 × 2 =