রোনালদোর সাবেক ক্লাবের দুরবস্থা : ক্লাব ছাড়ছেন সব তারকা

রোনালদোর সাবেক ক্লাবের দুরবস্থা : ক্লাব ছাড়ছেন সব তারকা

ঘটনার শুরু বেশ আগে থেকেই। সদ্য শেষ হওয়া মৌসুমে মারিতিমোর কাছে হেরে সামনের মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলার স্বপ্নকে মাটিচাপা দিয়েছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সাবেক ক্লাব, ও পর্তুগিজ লিগের অন্যতম পরাশক্তি – স্পোর্টিং লিসবন। ইউরোপা লিগে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের কাছে হেরে ধূলিস্যাৎ হয়েছে ইউরোপা লিগ জয়ের স্বপ্নও। এই ব্যর্থতার কারণেই কি না, স্পোর্টীং লিসবনের প্রেসিডেন্ট ব্রুনো ডি কারভালহো নিজেও হয়েছেন অত্যন্ত অসন্তুষ্ট। প্রেসিডেন্টের থেকেও বেশী অসন্তুষ্ট হয়েছিলেন স্পোর্টিং লিসবনের কিছু উগ্র সমর্থক। ৫০ জন উগ্র সমর্থক কিছুদিন আগে স্পোর্টিং লিসবনের অনুশীলন মাঠে ঢুকে খেলোয়াড়দের লাঠি, বেল্ট প্রভৃতি দিয়ে নির্যাতন করে আসে। মারের হাত থেকে রক্ষা পাননি কোচ হোর্হে হেসুসও। পুরো মৌসুমে ৩২ গোল করা ডাচ স্ট্রাইকার বাস দস্ত কেও ছাড়েনি তারা, দস্তের মাথায় দেখা গেছে কয়েকটা কেটে যাওয়ার চিহ্ন। আর এই ঘটনাটা আবার ঘটেছে পর্তুগিজ কাপ ফাইনালের মাত্র ৫ দিন আগে, যে ফাইনালে স্পোর্টিং লিসবনের লড়ার কথা পুঁচকে আভেস এর সাথে।

প্রথমে প্রচণ্ড রেগে গেলেও পরে ভক্তসমর্থকদের কথা চিন্তা করে আভেস এর সাথে ফাইনাল খেলে স্পোর্টিং। কিন্তু বিধি বাম! আভেসের সাথে হেরে পর্তুগিজ কাপটাও আর জেতা হয়না তাঁদের। এবার মঞ্চে আসেন প্রেসিডেন্ট ব্রুনো ডি কারভালহো, মূল সমালোচক হিসেবে। একের পর এক ফেইসবুক পোস্টে তিনি তাঁর দলের খেলোয়াড়দের সমালোচনা করেন তিনি। পুরো স্কোয়াডকে নিষিদ্ধ করেন মাঠে ঢোকা থেকেও, খেলা বা অনুশীলন করা তো দূরের কথা!

ফলে প্যাকোস এর বিপক্ষে লিগের ম্যাচের আগে দেখা যায় মূল দলের ১৯ জন খেলোয়াড়ই নিষিদ্ধ, বাকী থাকে মাত্র ৬ জন খেলোয়াড়, সেই ম্যাচটা খেলার জন্য। ব্রুনো কারভালহো হুমকি দেন দরকার হলে ‘বি’ দল নিয়ে খেলবে স্পোর্টিং তাও মূল দলের খেলোয়াড়দের খেলাবেনা। এ কথা শুনে কোচ হোর্হে হেসুস ঘোষণা দেন মূল দলের খেলোয়াড়দের উপর নিষেধাজ্ঞা তোলা না হলে তিনি স্পোর্টিং লিসবন এর দায়িত্বে থাকবেন না।

রোনালদোর সাবেক ক্লাবের দুরবস্থা : ক্লাব ছাড়ছেন সব তারকা
ব্রুনো ডি কারভালহো

ফলে সব খেলোয়াড়দের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা আবারো তোলা হয়, হেসুস তাঁর মূল খেলোয়াড়দেরকেই প্যাকোস এর বিপক্ষে মাঠে নামান, সেই ম্যাচ ২-০ গোলে জেতে স্পোর্টিং লিসবন । কিন্তু এরপরেও ব্রুনো কারভালহো এর সমালোচনা শোনা লাগে স্পোর্টিং এর খেলোয়াড়দের। “যথেষ্ট হয়েছে” ভেবে স্পোর্টিং লিসবন এর নামীদামী সব খেলোয়াড়েরা তাই এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ক্লাব ছাড়ার। একের পর এক স্পোর্টিং লিসবন এর সাথে চুক্তি বাতিল করছেন তারা। এদের মধ্যে রয়েছেন –

গোলরক্ষক রুই প্যাট্রিসিও, উইঙ্গার ড্যানিয়েল পডেনসে, জেলসন মার্টিন্স, মিডফিল্ডার উইলিয়াম কারভালহো, রুবেন রিবেইরো, রড্রিগো বাত্তালিয়া, রাফায়েল লিয়াও ও ব্রুনো ফার্নান্দেজ, স্ট্রাইকার বাস দস্ত। মোটামুটী এই নয়জন খেলোয়াড়ই স্পোর্টিং এর সাথে চুক্তি বাতিল করেছেন, স্পোর্টিং লিসবন ও জানিয়েছে তারা প্রত্যেকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে। এর মধ্যে এসব খেলোয়াড়দের হায়গায় অন্য খেলোয়াড় দলে নেওয়া শুরু করেছে স্পোর্টিং লিসবন। ২৫ বছর বয়সী পর্তুগিজ রাইটব্যাক ব্রুনো গ্যাসপারকে ফিওরেন্টিনা থেকে ৪.৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে নিয়ে এসেছে তারা। সাম্পদোরিয়া থেকে আনছে ইতালিয়ান গোলরক্ষক এমিলিয়ানো ভিভিয়ানোকে। নিজেদের সাবেক স্ট্রাইকার ইসলাম স্লিমানিকেও লেস্টার সিটি থেকে দলে ফেরাতে চাচ্ছে তারা। গ্রোনিনজেনের ডাচ স্ট্রাইকার টম ভের উইর্টও আসছেন দলে।

লুইজ ফেলিপে স্কলারির মত কোচ হোর্হে হেসুসের জায়গায় এসে স্পোর্টিং লিসবন এর কোচ হতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন ক্লাবের অস্থিতিশীল অবস্থার জন্য। তবে ব্রাজিলের হয়ে বিশ্বকাপজয়ী কোচ লুই ফেলিপে স্কলারিকে না পেলেও সাবেক এসি মিলান কোচ সিনিসা মিহায়লোভিচকে দলে এনেছে স্পোর্টিং লিসবন, হোর্হে হেসুসের জায়গায়।

রোনালদোর সাবেক ক্লাবের দুরবস্থা : ক্লাব ছাড়ছেন সব তারকা
নতুন কোচ সিনিসা মিহায়লোভিচ

 

স্পোর্টিং লিসবন এর প্রেসিডেন্ট এর মধ্যেই নিজের ফেসবুক পেইজে ঘোষণা দিয়েছেন যেসব খেলোয়াড় স্পোর্টিং এর হয়ে চুক্তি বাতিল করেছে তাঁদের বিপক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন তিনি। তাছাড়া যেসব খেলোয়াড় আর খেলোয়াড়ের এজেন্ট অন্য ক্লাবের কাছে বিক্রি হবার জন্য বা চুক্তি নবায়নের জন্য তাঁর উপর চাপ প্রয়োগ করছে, তাঁদেরকে কারভালহো বলেছেন চুক্তি বাতিল করতে, তাহলে যারা চুক্তি বাতিল করবে তাঁদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন তিনি।

এদিকে বহুদিনের অধিনায়ক, গোলরক্ষক রুই প্যাট্রসিও এর মধ্যেই যোগ দিয়েছেন সদ্য ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে উত্তীর্ণ হওয়া উইল্ভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সে। স্ট্রাইকার বাস দস্তকে ফ্রি তে দলে আনার জন্য আগ্রহী হয়ে উঠেছে সেভিয়া, এভারটন ও নিউক্যাসল ইউনাইটেডের মত ক্লাব। ব্রুনো ফার্নান্দেজকে চাইছে বেনফিকা, টটেনহ্যাম। জেলসন মার্টিন্সের ব্যাপারে আগ্রহী বেনফিকা, লিভারপুল ও আর্সেনাল।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

19 − two =