সিটি ঢেলে সাজানোর ছক গার্দিওলার

এপ্রিলের শেষ, লিগ শেষ হতে দলগুলোর মাত্র চার-পাঁচটা করে ম্যাচ বাকী। ফলে যথারীতি দলবদলের বাজার নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়ে গেছে। আনুষ্ঠানিকভাবে দলগুলো জুনের এক তারিখ থেকে খেলোয়াড় কিনতে-বেচতে পারলেও, তার আগে কোন খেলোয়াড় নিজের দলের জন্য উপযুক্ত সেটা পছন্দ করতে ত বাধা নেই তাই না? আজকের আলোচনা পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি নিয়ে।

ম্যানেজেরিয়াল ক্যারিয়ার শুরু করার পর এমন কোন মৌসুম যায়নি যেখানে পেপ গার্দিওলা কোন কিছু জেতেননি। কিন্তু ইংলিশ ফুটবলের প্রথম মৌসুমে তাকে খালি হাতেই ঘরে ফিরতে হচ্ছে যা বোঝা যাচ্ছে। চ্যাম্পিয়নস লিগে মোনাকোর হাতে বিদায়, চেলসি বা টটেনহ্যামের কাছে লিগ হারটাও নিশ্চিত। এফএ কাপটাও চলে গেছে সীমানার বাইরে, আর্সেনালের কাছে হেরে। তাই অবশ্যই গার্দিওলা চাইবেন না সামনের মৌসুমে এরকম কিছু একটার পুনরাবৃত্তি হোক। তাই দল ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা নিয়েছেন এবার গার্দিওলা।

দল সাজানোর প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে দলের সকল বয়স্ক খেলোয়াড়কে দল থেকে বাদ দিচ্ছেন গার্দিওলা, জিনিসটা এখন ওপেন সিক্রেট। ফলে বাকারি স্যানিয়া, পাবলো জাবালেতা, গায়েল ক্লিশি, আলেক্সান্দার কোলারভ, ইয়ায়া ট্যুরে, ফার্নান্দো রেজেস, হেসাস নাভাস, উইলফ্রিয়েড বোনি, নোলিতো, ইয়ালাক্যুইম মাঙ্গালা, সামির নাসরি – পরবর্তী মৌসুমে সিটিতে জায়গা হচ্ছেনা এদের কারোরই।

ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনাটা শুরু হচ্ছে ডিফেন্স থেকেই। গোলকিপিং পজিশানে এই মৌসুমে চিলিয়ান গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভো যতই ভুল করুন না কেন, পরবর্তী মৌসুমে এই ব্রাভোর উপরেই গার্দিওলা ভরসা রাখবেন, এ কথা বলাই যায়। আর ব্রাভোর ব্যাকআপ হিসেবে থাকবেন আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক উইলি ক্যাবায়েরো। ওদিকে এই মৌসুমটা ইতালিয়ান ক্লাব তোরিনোতে ধারে কাটানো ইংলিশ গোলরক্ষক সিটি সুপারস্টার জ্যো হার্টকে ফিরিয়ে নেওয়ার সম্ভাবনাটা প্রায় শূণ্যের কোঠায় বলা চলে। তাই সামনের মৌসুমেও গোলবারের নিচে ব্রাভো আর ক্যাবায়েরোকেই দেখা যাবে। হার্টকে নয়। আর যদি শেষ মুহুর্তে ব্রাভোকেও যদি গার্দিওলা সরাতে চান, সেক্ষেত্রে এখন পর্যন্ত গার্দিওলার পছন্দের তালিকায় আছেন এসি মিলানের টিনএজ সুপারস্টার জিয়ানলুইজি ডনারুমা ও বেনফিকার এডারসন মোরায়েস।

আরও পড়ুন…

নিজেদের কিভাবে গড়বে আর্সেনাল?

ডিফেন্স, মিডফিল্ড না উইং – কোনটা শক্তিশালী করবে লিভারপুল?

ডিফেন্সে স্যানিয়া, কোলারভ, ক্লিশি, জাবালেতা – সবাই চলে যাওয়ার অর্থ দুই ফুলব্যাক পজিশানে সমানে টাকা খরচ করবেন এবার গার্দিওলা। রাইটব্যাক হিসেবে গার্দিওলার পছন্দের তালিকায় আছেন – টটেনহ্যাম হটস্পারের ইংলিশ রাইটব্যাক কাইল ওয়াকার, সাউদাম্পটনের পর্তুগিজ রাইটব্যাক সেড্রিক সোয়ারেস, আর্সেনাল রাইটব্যাক হেক্টর বেয়েরিন। ওদিকে লেফটব্যাক হিসেবে গার্দিওলার পছন্দের তালিকায় আছেন মোনাকোর ফরাসী লেফটব্যাক বেঞ্জামিন মেন্ডি, টটেনহ্যাম হটস্পারের লেফটব্যাক ড্যানি রোজ, সাউদাম্পটনের রায়ান বার্ট্রান্ড, বেনফিকার অ্যালেক্স গ্রিমালদো, ভ্যালেন্সিয়ার হোসে লুইস গায়া আর জুভেন্টাসের অ্যালেক্স সান্দ্রো। সেন্টারব্যাক পজিশানে এখন পর্যন্ত সাউদাম্পটনের ভার্জিল ভ্যান ডাইক, জুভেন্টাসের লিওনার্দো বোনুচ্চি – এই দুইজনই পছন্দ গার্দিওলার কোম্পানি-স্টোনসের সতীর্থ হবার জন্য। সেন্টার মিডফিল্ডে আন্ডারলেখটের তরুণ বেলজিয়ান প্রতিভা ইয়ুরি তিয়েলেমানস কে মনে ধরে এই স্প্যানিশ কোচের। গার্দিওলার রাডারে আছেন টটেনহ্যামের ইংলিশ মিডফিল্ডার ডেলি আলিও। অ্যাটাকার হিসেবে গার্দিওলার শর্টলিস্টে অবস্থান আর্সেনালের চিলিয়ান সুপারস্টার অ্যালেক্সিস স্যানচেজ, মোনাকোর কিলিয়ান এমবাপে ও বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের পিয়েরে এমেরিক আউবামেয়াং। মোটামুটি এখন পর্যন্ত তাই সিটিতে আসার সম্ভাবনা যাদের সবচেয়ে বেশী আছে –

বেঞ্জামিন মেন্ডি

রায়ান বার্ট্রান্ড

কাইল ওয়াকার

ইউরি তিয়েলেমান্স

অ্যালেক্সিস স্যানচেজ

সিটি ছাড়ছেন যারা –

বাকারি স্যানিয়া

পাবলো জাবালেতা

আলেক্সান্দার কোলারভ

গায়েল ক্লিশি

ইয়ায়া ট্যুরে

এলিয়াক্যুইম মাঙ্গালা

উইলফ্রিয়েড বোনি

সামির নাসরি

হেসাস নাভাস

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

2 × one =