ওয়াকারের জায়গায় স্পার্সের রাইটব্যাক সার্জ অরিয়ের

ম্যানচেস্টার সিটির কাছে ইংলিশ রাইটব্যাক কাইল ওয়াকারকে ৫৫ মিলিয়ন পাউন্ডে বিক্রি করার পরে মনে হচ্ছিল আরেক ইংলিশ রাইটব্যাক কিয়েরান ট্রিপিয়েরকে দিয়েই পুরো মৌসুমে কাজ চালিয়ে নিতে পারবে টটেনহ্যাম হটস্পার, সাথে একাডেমি গ্র্যাজুয়েট ব্যাকআপ রাইটব্যাক কাইল ওয়াকার-পিটার্স তো আছেই। কিন্তু সব হিসাব ওলট পালট হয়ে গেল কিয়েরান ট্রিপিয়ের ইনজুরিতে পড়ার পর। অনেকটা বাধ্য হয়েই তাই দলবদলের বাজারে একটা রাইটব্যাকের জন্য ফেরত গেলেন স্পার্স কোচ মরিসিও পচেত্তিনো। তাই এবার ডেভিনসন স্যানচেজ, হুয়ান ফয়থের পর তৃতীয় ডিফেন্ডার হিসেবে দলে নাম লেখালেন প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের আইভোরিয়ান রাইটব্যাক সার্জ অরিয়ের। ২৪ বছর বয়সী শক্তিশালী এই রাইটব্যাককে ২৩ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে আনা হল।

৫ ফুট ৯ ইঞ্চি উচ্চতার এই রাইটব্যাক একজন আক্রমণাত্মক রাইটব্যাক হিসেবেই পরিচিত। তুলোঁ এর হয়ে ভালো পারফরম্যান্স দেখানোর পর ও ২০১৪ বিশ্বকাপে আইভোরি কোস্টের হয়ে নজরকাড়ার পর ফরাসী লিগের জায়ান্ট পিএসজির চোখে পড়েন অরিয়ের। এই কয় বছরে বেশ কয়েকবার আচরণগত সমস্যর কারণে শাস্তি পেয়েছেন অরিয়ের। কোচ লরাঁ ব্লাঁ কে গালি দেওয়া থেকে শুরু করে নাইটক্লাবে গিয়ে মারামারি করা, পুলিশ সদস্যকে মারধোর করা – সবই করেছেন অরিয়ের। যুবদলগুলোতে রাইট মিডফিল্ডার হিসেবে খেলার কারণে ও তাঁর আক্রমণাত্মক স্টাইলের কারণে স্বভাবতই খেলতে পারেন রাইট উইংব্যাক হিসেবেও। কিংবা ৩-৫-২ বা ৩-৪-৩ ফর্মেশানের একেবারে ডানদিকের সেন্টারব্যাক হিসেবেও সার্জ অরিয়েরকে খেলানো যায়। আগে যখন খুশি তখন ট্যাকল করতে চাইলেও এখন সে স্বভাবটা একটু কমিয়েছেন অরিয়ের। প্রায়ই উপরে উঠে ডিব=এক্সে ডান প্রান্ত থেকে ক্রস করতে দেখা যায় তাঁকে।

মাঠ ও মাঠের বাইরে উড়নচণ্ডী আচরণের জন্য পিএসজি’র মূল একাদশ থেকে হায়গা হারিয়েছেন, তাঁর জায়গায় এখন প্রায় সময়ই বেলজিয়ান রাইটব্যাক থমাস মিউনিয়েরকে খেলতে দেখা যায়। তাঁর উপর এই মৌসুমে আবার পিএসজিতে যোগ দিয়েছেন কিংবদন্তী ব্রাজিলিয়ান রাইটব্যাক দানি আলভেস, তাই অরিয়ের যে ক্লাব পরিবর্তন না করলে পুরো মৌসুমটা বেঞ্চেই কাটাবেন, সেটা বলেই দেওয়া যায়। অরিয়েরের প্রতি আগ্রহী ছিল ম্যনচেস্টার ইউনাইটেডও, কিন্তু শেষে আর ইউনাইটেডকে দেখা যায়নি অরিয়েরকে কেনার জন্য।

অরিয়ের কি নিজের খ্যাপাটে স্বভাব থেকে শান্ত হয়ে ফুটবল খেলার দিকে একটু বেশী মনোযোগ দিতে পারবেন? মরিসিও পচেত্তিনোর হাতে তাই এখন বেশ বড় একটা কাজ!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

13 + 5 =