রোনালদো ট্রান্সফারনামা : আসছেন জুভেন্টাসে!

রোনালদো ট্রান্সফারনামা : আসছেন জুভেন্টাসে!

নয় বছর রিয়াল মাদ্রিদে থেকে এবার বোধহয় আসলেই মাদ্রিদ ছাড়ছেন পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। বেশ কয়েক দিন ধরেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, রিয়াল থেকে জুভেন্টাসে চলে আসতে পারেন রোনালদো। সম্প্রতি স্পেনের আদালত কর ফাঁকির মামলায় দুই বছরের জেল দিয়েছেন বিশ্বসেরা এই ফুটবলারকে। এই বোঝা থেকে মুক্তি পেতে হলে মোটামুটি ২৮ মিলিয়ন পাউন্ডের মত কর পরিশোধ করতে হবে রোনালদোকে, যেটা পরিশোধ করা মানে প্রতি সপ্তাহের বেতনের একটা অতি বৃহৎ অংশ চলে যাবে কর শোধ করার পেছনেই। এখন কথা হল, কিছুদিন আগেও রিয়াল মাদ্রিদ রোনালদোর বেতন বাড়ালেও এখন ৩৩ বছর বয়সী রোনালদোর বেতন এর থেকে বেশী বাড়াতে নারাজ মাদ্রিদ। এর চেয়ে বেশী বেতন দিয়ে তারা বরং নেইমার বা এমবাপ্পে দের কিনতে আগ্রহী। মাদ্রিদ মনে করছে রোনালদো তাঁর ক্যারিয়ারের বালুকাবেলা স্পর্শ করেছেন, তাই বেশী বেতন দিয়ে রোনালদোকে পোষা আর সাদা হাতি পোষার মাঝে বিশেষ কোন ফারাক নেই। মাদ্রিদ আর রোনালদোর বেতন বাড়াতে চাচ্ছেনা, অনেক হয়েছে।

রিয়ালও একটা বিষয় বুঝতে পারছে যে ৩৩ বছর বয়সী রোনালদোকে এখন যদি বিক্রি না করা যায়, পরের মৌসুমেই আর দাম পাওয়া না–ও যেতে পারে। ক্লাব থেকেও নাকি ভাবা হচ্ছে, রোনালদো যদি যেতে চান, তবে আটকে রাখা হবে না তাঁকে। স্প্যানিশ গণমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, ইতালির ক্লাব জুভেন্টাসের সঙ্গে ইতিমধ্যেই কথা পাকাপাকি হয়ে আছে রোনালদোর। ৪ বছরের চুক্তিতে বছরে পর্তুগালের এই তারকাকে ৩০ মিলিয়ন ইউরো দিতে প্রস্তুত তারা।

রোনালদো ট্রান্সফারনামা : আসছেন জুভেন্টাসে!

এদিকে আসলেই রোনালদো কে দলে নেওয়ার ব্যাপারে বেশ ইতিবাচক রয়েছে জুভেন্টাস। শোনা যাচ্ছে, রোনালদোর এজেন্ট হোর্হে মেন্ডেজের সাথে পাকা কথা সেরে নিয়েছে তারা, মেন্ডেজই জুভেন্টাসকে বলেছে ১০০ মিলিয়ন ইউরোর একটা প্রস্তাব পাঠাতে। আর প্রতি বছর রোনালদো কে ৩০ মিলিয়ন ইউরো করে দিতে হবে জুভেন্টাসকে, ট্যাক্সের হিসাব আলাদা। অর্থাৎ ট্যাক্স এর হিসাব ধরলে প্রতি বছর জুভেন্টাস রোনালদোকে দেবে ৬০ মিলিয়ন ইউরো করে। বল এখন রিয়াল মাদ্রিদ আর তার সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের কোর্টে! দেখা যাক, তিনি জুভেন্টাসের এই প্রস্তাবে রাজী হন কি না!

কিভাবে রোনালদোকে এত বেশী বেতন দিয়ে রাখবে জুভেন্টাস? শোনা যাচ্ছে, ফেরারি ও ফিয়াট – অটোমোবাইল জগতের এই দুই মুঘলের মুখপাত্র বানানো হতে পারে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে। রোনালদো শুধুমাত্র একজন খেলোয়াড়ই নন, একটা বিশাল ব্র্যান্ডও বটে। আর জুভেন্টাসের মালিক অ্যান্দ্রেয়া অ্যাগনেল্লি জুভেন্টাসের চেয়ারম্যান হবার পাশাপাশি ফিয়াট এর বোর্ড মেম্বার, আর তাঁর পরিবারের মালিকানায় রয়েছে ফেরারিও! তাই রোনালদোর বেতনের একটা বিশাল অংশ আসতে পারে এই ফেরারি আর ফিয়াট থেকে।

এদিকে জুভেন্টাসে অনলাইন শপ থেকে কলম্বিয়ান উইঙ্গার হুয়ান কুয়াড্রাডোর ৭ নাম্বার জার্সি এখন বিক্রি করা হচ্ছেনা! মনে করা হচ্ছে, রোনালদো জুভেন্টাসে আসলে তাঁর সেই চিরপরিচিত ৭ নাম্বার জার্সিই পরবেন তিনি, সে হিসাবে কুয়াড্রাডোকে ৭ নাম্বার জার্সি ছেড়ে দিতে হবে। এ কারণেই কি তাহলে জুভেন্টাসের অনলাইন শপে “কুয়াড্রাডো ৭” লেখা জার্সি পাওয়া যাচ্ছেনা?

রোনালদোর এজেন্ট হোর্হে মেন্ডেজ আজ রাতে দেখা করতে যাচ্ছেন ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের সাথে, রোনালদোর ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আলোচনা করার জন্য। সিটবেল্ট শক্ত করে বেঁধে থাকুন, রোনালদো নাটকের এখনো অনেক পর্ব বাকি!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

twenty − 9 =