সিরি আ জয়ের পথে নাপোলির স্কোয়াডে নতুন সংযোজন : অ্যাডাম উনাস

অন্যান্য সিরি আ এর প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় এবার দলবদলের বাজারে ডিয়েগো ম্যারাডোনার আশীর্বাদধন্য বেশ কিছুটা চুপচাপই। নতুন চাইনিঞ্জ মালিকানার অধীনে এসি মিলান কিংবা নতুন কোচ ও স্পোর্টিং ডিরেক্টরের অধীনে এএস রোমা কিংবা নতুন কোচ লুসিয়ানো স্প্যালেত্তির অধীনে ইন্টার মিলান আর গত ছয় মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন ক্লাব জুভেন্টাস যেভাবে দলবদলের বাজারে সক্রিয়তা দেখাচ্ছে, গত কয়েক মৌসুম ধরে সিরি আ এর দ্বিতীয়-তৃতীয় অবস্থানে থাকা নাপোলি এবার সেরকম কাউকেই দলে আনছেনা কিংবা দল থেকে কাউকে যেতেও দিচ্ছেনা। এই ধারায় ব্যতিক্রম ঘটলো কিছুদিন আগে। বোর্দো থেকে তরুণ আলজেরিয়ান উইঙ্গার অ্যাডাম উনাস কে দলে টেনেছে তারা। দলের উইঙ্গার লরেঞ্জো ইনসিনিয়ে কিংবা ড্রাইস মার্টেন্স অথবা হোসে মারিয়া ক্যায়েহনদের সাথে উইং পজিশানে মূলত লড়াইটা হবে তাঁর।

কমবয়সী হবার কারণে নিজেই বারবার গোল করতে পছন্দ করেন, একটু স্বার্থপর টাইপের খেলোয়াড়ই বলা চলে তাঁকে। দূর থেকে পাস না দিয়ে দুর্দান্ত শটে প্রতিপক্ষ গোলরক্ষককে পরাস্ত করার প্রবণতাটা দেখা যায় তাঁর মধ্যে। গোলপোস্টের যত কাছে আসেন ততই প্রতিপক্ষকে যেভাবে হোক পরাস্ত করে শটটা নিতেই হবে – কমবয়সী হবার কারণে এ ধরণের কিছু বদভ্যাস আছে তাঁর। অত্যন্ত দ্রুতগতিসম্পন্ন এই উইঙ্গার বল পায়ে রেখে খেলা গড়তে পছন্দ করেন, স্বাভাবিকভাবেই ড্রিবলে বেশ পারদর্শী তিনি। ট্যালেন্ট অবশ্যই আছে তাঁর, এই ট্যালেন্টটে ঘষামাজা করতে পারলে এক-দুই মৌসুমের মধ্যেই নাপোলির অসাধারণ একটা সম্পদে পরিণত হবার ক্ষমতা আছে উনাসের, আর ট্যালেন্ট ঘষামাজা করার ক্ষেত্রে নাপোলির কোচ মরিজিও সাররি যে কিরকম যোগ্য, সে কথা বলার অপেক্ষা রাখেনা। দুই বছরের বোর্দো ক্যারিয়ারে ৪৫ ম্যাচ খেলে করেছেন সাতটার মত গোল।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

1 × 4 =