যেখানে অনন্য মরিনহো

গতকাল সুইডেনের স্টকহোমে ইউরোপা লিগের ফাইনালে আয়াক্স আমস্টারডামকে ২-০ গোলে হারিয়ে ইউরোপা লিগ জয় করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, সে পুরনো খবর। এই ইউরোপা লিগ জয়ের মাধ্যমে ক্লাব পর্যায়ে সম্ভাব্য সকল ট্রফিই অন্তত একবার করে জেতা হয়ে গেল ইংল্যান্ডের এই ক্লাবটির। আর এই কাপ জয়ের পেছনে মাস্টারমাইন্ড হিসেবে কলকাঠি নেড়েছেন পর্তুগিজ সুপারস্টার ম্যানেজার হোসে মরিনহো। আর এই ইউরোপা লিগ জয়ের মাধ্যমে নিজেকেও এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন এই ম্যানেজার।

ফুটবল ইতিহাসের প্রথম ম্যানেজার হিসেবে ইউরোপীয় ফুটবলের সবচেয়ে বড় দুটো ট্রফি ; ইউয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ ও ইউরোপা লিগ – একাধিকবার জেতা প্রথম ম্যানেজার হিসেবে ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়েছেন হোসে মরিনহো। প্রত্যেকটি ট্রফিই তিনি জিতেছেন দুইবার করে।

ইউরোপীয় প্রতিযোগিতাগুলোতে মরিনহোর এই জয়রথের শুরুটা সেই ২০০২-০৩ মৌসুম থেকে, যখন তিনি পর্তুগীজ ক্লাব এফসি পোর্তোর ম্যানেজার ছিলেন। সে মৌসুমে স্কটিশ ক্লাব সেল্টিককে ৩-২ গোলে হারিয়ে ইউয়েফা কাপ (এখনকার ইউরোপা লীগ) জেতে পোর্তো। সুইডিশ সুপারস্টার হেনরিক লারসনের দুই গোলও সেই ম্যাচে জেতাতে পারেনি সেল্টিককে, উলটো ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার দেরলেই আর রাশিয়ান মিডফিল্ডার দিমিত্রি আলেনিচেভের গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পোর্তো। মরিনহোর পরবর্তী ইউরোপীয়ান সাফল্যটাও আসে এই পোর্তোর হাত ধরেই। পরের বছর ইউরোপীয়ান ফুটবলের সবচেয়ে বড় পুরষ্কার ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন লিগ জেতে পোর্তো, ফরাসী ক্লাব মোনাকোকে হারিয়ে। ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার কার্লোস আলবাররো, পর্তুগিজ মিডফিল্ডার ডেকো ও রাশিয়ান মিডফিল্ডার দিমিত্রি আলেনিচেভের গোলে মোনাকোকে ফাইনালে স্রেফ ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ জয় করে তারা।

আরো পড়ুন…

মরিনহোর উত্থান : পোর্তোর গল্প – ১

মরিনহোর উত্থান : পোর্তোর গল্প – ২

মরিনহোর উত্থান : পোর্তোর গল্প – ৩

মরিনহোর উত্থান : পোর্তোর গল্প – ৪

মরিনহোর উত্থান : পোর্তোর গল্প – ৫

মরিনহোর উত্থান : পোর্তোর গল্প – ৬

ফার্গি, ক্লফের পাশে মরিনহো

পরের ইউরোপীয়ান ট্রফিটা আদায় করার জন্য বছর ছয়েক অপেক্ষা করতে হয় মরিনহোকে। এবার ইন্টার মিলানের হয়ে বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে ২-০ গোলে জিতে নিজের ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় চ্যাম্পিয়নস লিগটা জিতে নেন মরিনহো। মাদ্রিদের সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার ডিয়েগো মিলিতোর জোড়া গোলে ইন্টার মিলান জেতে চ্যাম্পিয়নস লিগ। আর এবার আবারো ছয় বছর পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ হিসেবে ইউরোপা লিগ দ্বিতীয়বারের মত জিতলেন হোসে মরিনহো। ফরাসী সেনসেশান পল পগবা ও আর্মেনিয়ান মিডফিল্ডার হেনরিক মিখিতারিয়ানের গোলে ২-০ গোলে আয়াক্সকে হারিয়ে ট্রফিটি জিতে নেয় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, আর মরিনহোও পেয়ে যান ক্যারিয়ারের চতুর্থ বড় ইউরোপীয়ান শিরোপা! আর এর মাধ্যমেই নিজেকে আর সবার থেকে আলাদা করে ফেললেন মরিনহো!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

three × five =