রশিদী ইয়েকিনি : নাইজেরিয়ান ফুটবল জাদুকর

::: জুয়েল আহমেদ লিপু :::

আফ্রিকা মহাদেশের অন্যতম সেরা দল নাইজেরিয়া। নোয়ানকো কানু, সেগুন ওদেগ্বামী, স্টিফেন কেশি, ইমানুয়েল এমেনিকে, ফিনিডি জর্জ, মুদা আইন, পিটার রুফাইয়ের মত খেলোয়াড়েরা নাইজেরিয়ার হয়ে মাঠ মাতিয়েছেন কিন্তু এই নাইজেরিয়ার আজকের পর্যায়ে আসার মূল কারিগর যে রশিদী ইয়েকিনি তা পুরো ফুটবল বিশ্বের কাছে অজানা। আসুন আজ জেনে নেই কে এই রশিদী ইয়েকিনি…

রশিদী ইয়েকিনি তাঁর দুর্দান্ত শট, জাদুকারী ছন্দ, নিখুঁত পাস আর অমায়িক ব্যবহারে মুগ্ধ করেছিলেন পুরো বিশ্ববাসীকে। নাইজেরিয়ার ফুটবল ইতিহাসে নক্ষত্রের মত স্মরনীয় হয়ে আছেন, থাকবেন। যার হাত ধরে প্রথম বারের মত ফুটবল বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা লাভ করে আফ্রিকা মহাদেশের অন্যতম এই সেরা দলটি। নাইজেরিয়ান ফুটবল ইতিহাসের সর্বকালের সেরা স্ট্রাইকার বলা হয় এই রশিদী ইয়েকিনিকে। যিনি নাইজেরিয়ান ফুটবলকে ম্যাপে রাখার জন্য এত কঠোর পরিশ্রম করেছেন। তিনি কখনও জাতীয় দলে কল আপস প্রত্যাখ্যান করেননি এমনকি,কখনও জাতীয় দলের খেলোয়াড়ের সাথে বৈষম্য তৈরি করেননি। একজন নেতার মত পুরো নাইজেরিয়া দলকে আগলিয়ে রাখতেন তিনি। ইয়েকিনির হাত ধরে নাইজেরিয়া প্রথম বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা লাভ করে। যা ইয়েকিনির একক প্রচেষ্টায় সফল হয়েছিল। তার পা থেকেই এসেছিল নাইজেরিয়ার ইতিহাসের প্রথম বিশ্বকাপ গোল। তিনি নাইজেরিয়ার হয়ে একটি ন্যাশনাল কাপ জিতেছেন, তাছাড়া তিনি নাইজেরিয়ার হয়ে ন্যাশনাল কাপে তিনটি রৌপ্য এবং একটি ব্রোঞ্জ পদক জিতেন। ইয়েকিনি নাইজেরিয়ান লীগে তিনবার সর্বোচ্চ গোলদাতা হন, ১৯৯৩ সালে আফ্রিকার বর্ষসেরা ফুটবলারের খেতাবও জিতেছিলেন তিনি । তিনি ১৯৮৪-৮৫ সালে ন্যাশনাল কাপে নাইজেরিয়ার হয়ে গোল করেন। ১৯৯০/ ৯২/৯৪ সালে ন্যাশনাল কাপে সর্বোচ্চ গোলদাতা হন। কিন্তু দেশের জন্য এতটুকু করার পর প্রাপ্য সম্মানটুকু পাননি এই নাইজেরিয়ান গ্রেট। ২০১২ সালে হতাশ আর তুচ্ছ হয়ে না ফেরার দেশে চলে যান তিনি। যদিও এনএফএফ এবং তার প্রাক্তন সহকর্মীরা এই মহান নাইজেরিয়ানকে আর স্মরণ করে না। এমনকি সময়ের সাথে সাথে পুরো ফুটবল বিশ্ব যুগান্তকারী ইয়েকিনিকে ভুলে গেছে।

গোল্লাছুটের পক্ষ থেকে এই বিস্মৃত কিংবদন্তীকে শ্রদ্ধা।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

15 + 5 =