বাংলার ফিনিশারের রাজকীয় প্রত্যাবর্তন

ফিনিশার- শব্দটা শুনলেই কার কথা মাথায় আসে বলতে পারেন? মাইকেল বেভান। ঝড়ের মুখে শান্তভাবে শক্ত হাতে হাল ধরে দলের তরীকে জয়ের বন্দরে ভেড়ানোর কীর্তিতে সেরা এই অসি। কিন্তু কোন টাইগারভক্তকে প্রশ্নটা করুন। ১০০ এর মধ্যে ৮০ জন বলবে রংপুরের বাহে- মানে আমাদের নাসির হোসেনের কথা। শুরুটা করেছিলেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৬৩ রানের ইনিংস খেলে। সেদিন তার শান্ত স্থিতধী ব্যাটিং নজর কেড়েছিল সবার। মাঝখানে কিছুদিন দুঃসময়ের আবর্তে ঘুরপাক খেলেন, দল থেকে বাদ গেলেন, আর বিশ্বকাপে ফিরে এলেন। আসলে ফিরলেন তার পরের সিরিজে। অধিনায়কের এক কথাতে যেন পাল্টে গেলেন নাসির! কিপটে কাহাকে বলে- সেটা প্রমাণ করলেন বল হাতে নিয়ে। এবার হানা দিয়েছেন ভারত এ দলের দুর্গে। বীরের বেশে ফিরেছেন শতক ও ৫ উইকেট নিয়ে! আর সিরিজে ফিরেছে বাংলাদেশ এ। আমাদের তুলির শেষ আঁচড়ের শিল্পী প্রমাণ করেছেন তিনি ফুরিয়ে যাননি। এ যেন রাজকীয় প্রত্যাবর্তন!

২০১২সাল- মিরপুরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জেতার জন্য শেষ ম্যাচে জয় চাই আমাদের। সাকিব নেই দলে। তার অভাব বল হাতে কিছুটা পূরণ করলেন মুমিনুল, Pollard কে বোল্ড করে। ব্যাট হাতে নাসির যখন নামলেন তখন বাংলাদেশের অবস্থা ছিল,
“দুলিতেছে তরী, ফুলিতেছে জল, ভুলিতেছে মাঝি পথ
ছিঁড়িয়াছে পাল, কে ধরিবে হাল, আছে কার হিম্মত”
হাল ধরেছিলেন আমাদের নাসির। কি অপূর্ব প্রদর্শনী সেটা! কোথাও একটু অতিরিক্ত কিছুর চেষ্টা নেই, কিন্তু স্কোর বোর্ড এর চাকা ঘুরাচ্ছেন তিনি এক দুই নিয়ে। মাঝে মাঝে চার ছক্কা হই হই ও চলছে, কিন্তু শেষ ম্যাচের চাপের ছাপ নেই কোথাও। একবার বলেছিলেন, ব্যাটিং করার সময় নাকি শিস বাজাতেন তিনি নির্ভার থাকার জন্য! তা সেদিন এই নাসিরের ৪৮ রানেই লাল সবুজের বিজয় নিশান উড়েছিল।
তার কিছুদিন পর, কিউই দের সাথে আবার দেখা। তিন ম্যাচের সিরিজে কিউইদের আবার বাংলা ধোলাই এর স্বাদ দিতে শেষ ম্যাচে আমাদের দরকার ছিল ৩০৭ রান। সেখানেও শেষটা করলেন ঐ নাসির। McClanaghan কে তার মারা বিশাল ছক্কা এবং ধারাভাষ্য কক্ষ থেকে মরিসনের চিৎকার এখনও কানে বাজে!

দুঃসময়ের আবর্তে পড়লেন এরপর। ২০১৪ সালে তো বেশিরভাগ সময় দলেই ছিলেননা। বিশ্বকাপের আগে অধিনায়ক বললেন, নাসির ওয়ানডেতে বিশ্বের অন্যতম সেরা অফ স্পিনার। ব্যাস! কাজ হল ভেল্কির মতো। নাসির ফিরলেন, বল হাতে হয়ে গেলেন অদম্য। প্রয়োজনের সময়ে ব্রেক থ্রু দিতে তার জুড়ি নেই। এ দলের হয়ে তো ৫ উইকেট নিয়ে আর শতক হাঁকিয়ে একাই জিতিয়ে দিলেন দেশকে!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

10 + eleven =