রোমার ডিফেন্সে অভিজ্ঞতার ছোঁয়া : অ্যালেক্সান্দার কোলারভ

নতুন কোচ ইউসেবিও ডি ফ্র্যানসেস্কো ও নতুন স্পোর্টিং ডিরেক্টর মঞ্চির অধীনে নিজেদের একেবারে ঢেলে সাজাচ্ছে এএস রোমা। এরই মধ্যে দল ছেড়েছেন উইঙ্গার মোহামেদ সালাহ, সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার আন্তোনিও রুডিগার ও থমাস ভারমায়েলেন, লেফটব্যাক মারিও রুই, গোলরক্ষক ওজিয়েইক শোয়েসনি, সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার লিয়ান্দ্রো পারেদেস – অবসর নিয়েছেন ক্লাব কিংবদন্তী ফ্র্যানসেস্কো টট্টি। এদের জায়গায় দলে ইতোমধ্যে চলে এসেছেন সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার হেক্টর মোরেনো, রাইটব্যাক রিক কার্সডর্প, সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার ম্যাক্সিম গনালন্স লরেঞ্জো পেলেগ্রিনি, উইঙ্গার চেঙ্গিজ উনদেরস্ট্রাইকার গ্রেগোইরে দেফরেল। এবার ডিফেন্সের বামদিকেও নতুন খেলোয়াড় নিয়ে আসল রোমা, ৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ৩ বছরের চুক্তিতে সার্বিয়ান লেফটব্যাক অ্যালেক্সান্দার কোলারভকে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি থেকে নিয়ে এসেছে তারা।

সিটির হয়ে ২৪৭ ম্যাচ খেলা কোলারভ লিগ জিতেছেন দুইবার, লিগ কাপ জিতেছেন দুইবার, আর এফএ কাপ জিতেছেন একবার। গোল করেছেন ১১টি। ৩১ বছর বয়সী ডিফেন্ডার লেফটব্যাক হলেও সেন্টারব্যাক বা মাঠের বামদিকে যেকোন পজিশানে খেলতে পারেন। যেকোন মুহূর্তে লেফট মিডফিল্ডার বা উইঙ্গারের সাথে লিঙ্ক আপ করে মাঠের উপরে গিয়ে আক্রমণে সহায়তা করতে পারেন, ক্রস করতে পারেন দুর্দান্ত, নিজে ক্রস করতেও পছন্দ করেন বেশ। ফ্রি-কিকেও তাঁর দক্ষতা চোখে পড়ার মত। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, রোমার ডিফেন্সে তর্কাতীতভাবেই অভিজ্ঞতার ঝুলি নিয়ে আসছেন কোলারভ। ৩-৫-২ বা ৪-২-৩-১ ফর্মেশানগুলোতে তাঁকে মাঝে মাঝে সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার হিসেবেও খেলতে দেখা যায়। গত মৌসুমে লিগে ২৯ ম্যাচ খেলা কোলারভ ডিবক্সে গোলের সৃষ্টি করেছেন ১৫বার, “কি পাস” প্রদান করেছেন ১৪বার। ৮৫% সফল পাস প্রদানের হারটা তাঁর বল পায়ে দক্ষতার কথাই মনে করিয়ে দেয়।

অপর ফুলব্যাক পজিশানে রিক কার্সডর্পের সাথে কোলারভ কিভাবে জুটি গড়ে রোমার মৌসুমকে সফল করতে পারেন, এখন এটাই দেখার অপেক্ষা।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

seven − five =