কুন আগুয়েরোর ভেলায় কোয়ার্টারে এক পা আলবিসেলেস্তেদের

কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে যেতে হলে আজ জিততেই হতো, এমন প্রতিজ্ঞা নিয়েই মাঠে নেমেছিলেন টাটা মার্টিনোর শিষ্যরা। প্রতিপক্ষ উরুগুয়ে হলেও তাদের বড় খেলোয়াড়, ট্রেবল জয়ী লুইস সুয়ারেজ নিষেধাজ্ঞার কবলে খেলতে পারছেন না। সে কারণেই আর্জেন্টিনা ছিলো একটু আশাবাদী। দলে এসেছে দুটি পরিবর্তন- রাইট ব্যাক পজিশনে পাবলো জাবালেতা ফিরেছেন এবং এভার বানেগাকে সরিয়ে জায়গা করে নিয়েছেন বিশ্বকাপে দুর্দান্ত মিডফিল্ড হোল্ড করা প্লেয়ার লুকাস বিগলিয়া।

খেলা শুরুর দিকে মোটেও ভালো করেনি দুদলের কেউই। তবে আস্তে আস্তে আক্রমণের ধার বাড়ে আর্জেন্টিনার। ডি মারিয়া একটি সহজ সুযোগ মিস করেন আস্তে শট নিয়ে। প্রথমার্ধের সেরা চান্স পান মেসির ডায়াগোনাল এরিয়াল পাসে সার্জিও আগুয়েরো। দুর্দান্ত হেডটা মুসালেরা ঠেকিয়ে না দিলে প্রথমার্ধে স্কোর থাকতো ১-০।

লিও মেসি রাইট উইঙ্গে থাকলেও প্রায়ই সরে এসে খেলেছেন ক্রিয়েটিভ মিডফিল্ডারের জায়গায়। পাস্তোরের সাথে তার কম্বিনেশন ভালোই ছিলো, ভালো খেলেছেন জাবালেতাও। ম্যাচের ৫৬ মিনিটে ডি বক্সের ডান প্রান্তে চরকির মতো ঘুরে দুই ডিফেন্ডারকে বোকা বাড়িয়ে ডান প্রান্তে অরক্ষিত জাবালেতার দিকে পাস বাড়িয়ে দেন পাস্তোরে। সুযোগের শুরু এখানেই। ম্যানসিটির সতীর্থ সার্জিও আগুয়েরোর দিকে তিনি বাড়িয়ে দেন নিখুঁত ক্রস। দুর্দান্ত হেডে বল জালে এবং আর্জেন্টিনা ১-০ গোলে এগিয়ে যায়। উরুগুয়ে কিছু সুযোগ তৈরি করলেও সেটা ঠেকিয়ে দেন দুর্বার প্রহরী, বিশ্বকাপ সেমিফাইনালের নায়ক সার্জিও রোমেরো।

 

11412136_1859050297654406_97147484567495060_n

পুরো ম্যাচে নিষ্প্রভ ছিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড জুটি ডি মারিয়া এবং মার্কোস রহো। ডিফেন্স গতদিনের চেয়ে কিছুটা গোছালো ছিলো। তবে রোমেরোর ফিস্টে উরুগুয়ে রিবাউন্ড গোলের সুযোগ পেয়েছে তিনবার। কাউন্টারে বল পেলেও কাজে লাগাতে পারেনি আর্জেন্টাইনরা। কাউন্টারে পাস না দিয়ে একাই বল হারানো পর্যন্ত ড্রিবলিং করতে থাকেন তারা। তা না হলে, স্কোরটা ২-০ বা ৩-০ হতে পারতো। পুরো ম্যাচে উরুগুয়ে ডিফেন্সিভ খেলেছে এবং যথেষ্ট পরিমাণ ফাউল করেছে। রেফারিং নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন- ম্যাচের হাবভাব না বুঝে খেলা থামানো কিংবা কার্ড প্রদর্শনে কিপ্টাপো দেখানোতে। সামান্য প্রতিবাদের কারণে রেফারি প্রথমার্থেই কার্ড দেখান আর্জেন্টিনা কোচ টাটা মার্টিনোকে।

11412358_1859050394321063_3259394460072141674_n

মাস্টারমাইন্ডের ম্যান অফ দা ম্যাচ হয়েছেন মেসি। তবে, তার একটুও কম ছিলেন না হ্যাভিয়ার পাস্তোরে। পরবর্তী প্রতিপক্ষ জ্যামাইকা, ম্যাচ হবে ২১ তারিখ ভোরে।

11402922_1093854727309875_8295403393467236383_o
গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হলে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ হবে সেকেন্ড বেস্ট থার্ড দেশটি। কোয়ার্টারের ম্যাচটি হবে ২৭ তারিখ ভোরে।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

thirteen − two =