ইন্টার ডিফেন্সের বামদিকে ব্রাজিলিয়ান সেনানী : ডালবার্ট

গত বেশ কয়েক বছর ধরেই লেফটব্যাক সমস্যাটা ভোগাচ্ছে ইন্টার মিলানকে। সেই রোমানিয়ান ডিফেন্ডার ক্রিস্টিয়ান কিভুর চলে যাওয়ার পর জাপানিজ লেফটব্যাক ইউতো নাগাতোমো, ইতালিয়ান লেফটব্যাক ড্যানিলো ডি অ্যামব্রোসিও ও ডেভিডে স্যানটন, ব্রাজিলিয়ান লেফটব্যাক অ্যালেক্স তেয়েস, আর্জেন্টাইন লেফটব্যাক ক্রিস্টিয়ান আনসালদি, উরুগুইয়ান উইংব্যাক আলভারো পেরেইরা কাউকে দিয়েই সন্তোষজনক পারফরম্যান্স পায়নি মিলানের এই ক্লাব। নতুন কোচ লুসিয়ানো স্প্যালেত্তির অধীনে তাই এই পজিশনটা শক্তিশালী করার দিকে নজর দিয়েছে তারা। দলে আনছে ব্রাজিলিয়ান লেফটব্যাক ডালবার্ট হেনরিকে কে, ফরাসী ক্লাব নিস থেকে।

প্রতিদ্বন্দ্বী এসি মিলান, এএস রোমা বা জুভেন্টাসের মত না হলেও, আস্তে আস্তে নতুন কোচের অধীনে নিজেদের বেশ ভালোভাবেই গুছিয়ে নিচ্ছে ইন্টার মিলান। দলে সাম্পদোরিয়া থেকে এসেছেন স্লোভাকিয়ান সেন্টারব্যাক মিলনা স্ক্রিনিয়ার, এসেছেন ইতালিয়ান গোলরক্ষক ড্যানিয়েলে পাদেল্লি, ফিওরেন্টিনা থেকে এসেছেন মিডফিল্ডার যুগল বোর্হা ভ্যালেরো আর মাতিয়াস ভেচিনো। এখন গত মৌসুমে নজরকাড়া এই ডালবার্টকে নিয়েই নিজেদের ডিফেন্স ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা করছে ইন্টার।

২৩ বছর বয়সী এই লেফটব্যাক নিসের আগে খেলেছেন পর্তুগীজ ক্লাব ভিতোরিয়া গুইমারেসে। ফরাসী লিগে গত মৌসুমে ৩৩ ম্যাচ খেলা এই ডিফেন্ডারকে সাবেক ইন্টার মিলান কিংবদন্তী রাইটব্যাক মাইকনের সাথে তুলনা করে বলা হচ্ছে “বামপায়ের মাইকন”। ছয়ফুট লম্বা একজন ডিফেন্ডার হয়েও তিনি অত্যন্ত দ্রুতগতির, লম্বা হবার কারণে সেটপিস ডিফেন্ড করার সময়ে অনেক কার্যকরী একটা খেলোয়াড় হতে পারেন তিনি। গতির উপরে এতটাই নির্ভরশীল যে তিনি অনেক সময় প্রতিপক্ষকে হারানোর জন্য ড্রিবলের উপর নির্ভর করেন না। আদর্শ আক্রমণাত্মক লেফটব্যাক হলে যা হয়, হামেশাই আক্রমণে উঠে যেতে পছন্দ করেন, ফলে স্প্যালেত্তি যদি ৩-৫-২ বা ৩-৪-৩ ফর্মেশানেও খেলাতে চান ইন্টারকে লেফট উইংব্যাক পজিশানে ডালবার্ট একটা ভালো অস্ত্র হবেন। খেলতে পারেন মিডফিল্ডের বামদিকেও। রক্ষণেও বেশ পটু তিনি, নিজের দলের কাছে বল না থাকলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বলটা নিজেদের কাছে নিয়ে আসার জন্য লড়তে পছন্দ করেন।

ইন্টারের বর্তমান অন্যান্য লেফটব্যাকের তুলনায় ডালবার্টের সফল পাস প্রদানের হার সবচেয়ে বেশী, ৮৭ শতাংশ। গোল কিংবা গোলসহায়তার দিক দিয়ে আবার ইতালিয়ান লেফটব্যাক ড্যানিলো ডি’অ্যাম্ব্রোসিও অনেক এগিয়ে আছেন। গত মৌসুমে আক্রমণভাগে সফল “কি পাস” দেওয়ার দিক থেকেও ড্যানিলো ডি অ্যামব্রোসিও, ডেভিডে স্যান্টন, ক্রিস্টিয়ান আনসালদি, ইউতো নাগাতোমোর তুলনায় ডালবার্ট অনেক বেশী কার্যকরী (২১)। সফল ট্যাকল করার ক্ষেত্রেও ডালবার্ট আছেন এদের সবার উপরে, পুরো মৌসুমে ৬৭টি ট্যাকল করেছেন। প্রতিপক্ষের পা থেকে বল কেড়ে নেওয়ার ব্যাপারে আবার ডালবার্টের (৪৮) চেয়ে ডি’অ্যাম্ব্রোসিও (৬৪) বেশী দক্ষ।

মোটামুটি বলেই দেওয়া যাচ্ছে ইন্টারের ডিফেন্সে বামদিকের জায়গাটা নেওয়ার জন্য ডালবার্ট মোকাবিলা করবেন ডি’অ্যামব্রোসিওর। দেখা যাক, তাঁদের মধ্যে এই সুস্থ প্রতিযোগিতা ইন্টারের কি সুফল বয়ে নিয়ে আসতে পারে!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

4 − four =