ক্রিকেটের জন্মভূমিতে জমকালো আয়োজন

আমি কিন্তু ট্রফি দেখছি কেন উইলিয়ামসনের হাতে!
কোন সময় ভবিষৎবাণী করিনা। ক্রিকেটের প্রতি আমার অনুরাগ সেই ছোট্ট বেলা থেকে, কিন্তু কখনো এমন কথা প্রকাশ করিনি, মনে যা ছিল তা ভিন্ন কথা। এবার বলেই দিলাম। কেন উইলিয়ামসনের বুদ্ধিদীপ্ত অধিনায়কত্ব, ব্যাটসম্যান হিসাবে তার নির্ভরযোগ্যতা, চাপের মুখে অবিচল থাকা আর দলে সব্যসাচীর সমাহার- সব মিলে কালো টুপিওয়ালা কিউই রাই আমার ফেভারিট। বিরাট কোহলী অভিযোগ করতে পারেন এমন বললে, কিন্তু ভারতের থেকে কিউই দল বেশি ব্যালান্সড। প্রস্তুত অসিদের চার পেসার, ইংলিশ কন্ডিশনে তাদের আগুনগোলা সামলাতে ত্রাহি মধুসূদন অবস্থা হবে বিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের। ব্রিটিশরা বলতে পারেন, হুম! আমাদের দেশে এসে আমাদের কাছ থেকে ট্রফি নিয়ে যাওয়া? এত সহজ নয়! আছে লাল সবুজের পতাকাবাহী, মাশরাফি-সাকিব বাহিনী। কে জানে, বাঘের গর্জনে কাঁপবে কিনা ব্রিটিশ ক্রিকেট তীর্থ? সব মিলিয়ে জমজমাট এক আয়োজন। মিনি বিশ্বকাপ বলুন আর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি- আমার কাছে বিশ্বকাপের থেকেও এটা বেশি আকর্ষণীয় মনে হয়।

বিশ্বকাপ হয় এক দেড় মাস ধরে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, মাত্র ১৮ দিন। ফেলুদার গল্পের মতো, “রস একটুও টসকে যাবার সুযোগ নেই, পরতে পরতে উত্তেজনা”- এখানে একটি ম্যাচও অগুরুত্বপূর্ণ নয়, এটাই আসল কথা। মাত্র ৫ টি ম্যাচ জিতলেই চ্যাম্পিয়ন! সম্ভবনা এক দিক থেকে সবারই সমান বলতে হবে। নিজের দিনে যে দল ভালো করবে, জয়ের মালা তার গলাতেই উঠবে। ২০১৩ সালে এটাকে বলা হয়েছিলো ৫০ ওভারের ক্রিকেটের লিটমাস টেস্ট, উত্রে গিয়েছিলো সে যাত্রায়। এবারো উত্রে যাবে আশা করা যায়। মানুষ এখন চায় কম সময়ে বিনোদন, তাই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির টি টুয়েন্টি সংস্করণ আরও জনপ্রিয় হতো বলেই মনে হয়।

আমাদের সম্ভবনা? আমি আসলে বেশি কিছু আশা করতে চাই না। কিউইদের হারিয়েছে আইরিশ কন্ডিশনে, মানলাম। তবে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে আমাদের যে পারফরম্যান্স, তাতে ভয় করে আশা করতে। বিশেষত তাসকিন- সম্ভবনাময় এই পেসার যেন দানছত্র খুলে বসেছেন! তাকে অনুরোধ করি, ইওরকারে মনোযোগ দিন, লাইন লেংথ ঠিক করুন। রুবেল হোসেন যেমন আশার আলো দেখাচ্ছেন।

লর্ডসে ২০১০ সালে লাঞ্চের আগেই সেঞ্চুরি করে অনার্স বোর্ডে নিজের নাম লিখতে বলা তামিম, ঘূর্ণি জাদুর সাকিব, ব্যাট হাতে নির্ভরযোগ্য মুশফিক, সাথে তরুণ মসাদ্দেক আর মিরাজ- দলটি ভালো। তিন নম্বরে সাব্বির কতটা কি করতে পারবেন তার উপর নির্ভর করবে অনেক কিছু। অধিনায়ক মাশরাফির নিজের পারফরমেন্স নিয়েও ভাবতে হবে, নিজে পারফর্ম না করলে কিভাবে উজ্জীবিত করবেন দলকে?

ক্রিকেট আনন্দে অবগাহনের আমন্ত্রন সবাইকে, আর লাল সবুজের জন্য শুভকামনা!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

3 + 18 =