হাথুরা-বচন

আজকে দেওয়া কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহের কিছু অমৃত বচন…

“২০টি উইকেট নেওয়ার পথ খুঁজে বের করতে হবে আমাদের। আমাদের বোলিং আক্রমণ খুবই অনভিজ্ঞ। টেস্ট ক্রিকেটে পায়ের নিচে জমি খুঁজে পেতে চাইছে, এমন একটি দলের কাছে আমরা খুব বেশি কিছু চেয়ে ফেলছি। এটাই সত্যি।”

“এই বোলিং আক্রমণ থেকে সাকিবকে বাইরে রাখুন, বাকি চার বোলারের সম্মিলিত অভিজ্ঞতা মাত্র ১৫ টেস্ট। সাকিবও সেই আগের বোলার নেই, ২০১০ সালের সময়টায় যখন সহায়ক কন্ডিশনে প্রতিপক্ষকে গুড়িয়ে দিত। আমরা এখন দেশের বাইরে খেলছি।”

“টেস্টে উইকেট নিতে হলে ব্যাটসম্যানদের ‘সেট আপ’ করতে হবে। সেই বুদ্ধিমত্তা আসে বেশি বেশি খেললে। আমরা যত বার্তাই দেই, যত কথাই বলি, এটার জন্য সময় লাগবেই। প্রতিপক্ষেরও তো স্কিল আছে, পরিকল্পনা থাকে!”

“আমরা শিখছি ও উন্নতি করছি। যখন আমরা শক্ত অবস্থানে যাব, ‘ব্রেক থ্রু’ জয়টা পাব, আমার মতে তার পরই আমরা ভালো করতে শুরু করব।”
……………………..
ওপরের আলোচনা থেকে আমরা বুঝতে পারলাম, দোষ আমাদেরই। আমরাই বেশি প্রত্যাশা করে ফেলেছি। আমরা শিখছি। যদিও আমাদের মুখোমুখি হওয়া সবচেয়ে অনভিজ্ঞ শ্রীলঙ্কা দল এটিই এবং রঙ্গন হেরাথ বলেছেন, শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়া সেরা বাংলাদেশ দল এটি, আসলে এই সফরও আমাদের শিক্ষা সফর…
…………………………………………………………..
লেগ স্টাম্পের বাইরের বলে সাকিব ও মুশির আউট…

“উইকেট উপহার দিয়ে এসেছে, এই কথায় আমি একমত নই। কেউই উইকেট উপহার দেয়নি। ওই দুটি উইকেট ছিল পিচ থেকে স্পিন বোঝার চেষ্টার কারণে। বোলারের হাত থেকেই পড়তে পারলে ভালো পজিশনেও যাওয়া যায়।”

“ওই ছেলেটির (সান্দাকান) বোলিংয়ে ছিল অনেক বৈচিত্র, ‘রং আন’ ও চায়নম্যান করছিল। আমার মতে, আমাদের ছেলেরা পিচ করার পর বল পড়ার চেষ্টা করেছে, তাতে করে সাড়া দেয়ার সময় পেয়েছে কম। লেগ স্টাম্পের বলে রান করতে চাওয়া ব্যাটসম্যানদের সহজাত প্রবৃ্ত্তি।”
…………………………………………………………
সাকিব ও মুশির আউটের ব্যখ্যা ক্রিকেটীয় পয়েন্ট থেকে যৌক্তিক। কিন্তু কেউই উইকেট উপহার দিয়ে ফেরেনি? তাহলে মনে হয় আমি টিভিতে অন্য কোনো খেলা দেখছিলাম…!
……………………………………………………………………..
অ্যাটাকিং না ডিফেন্সিভ?

“রক্ষণাত্মক ও আক্রমণত্মক খেলার কথা যখন হচ্ছে, মূল ব্যাপারটি হলো সিদ্ধান্ত নেওয়া। এই জায়গাটিতে আমাদের উন্নতি করতে হবে, কোন বলে আক্রমণ করব, কোনটি ঠেকাব। পথ যেটাই হোক, সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আর সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে কন্ডিশন মাথায় রাখতে হবে, প্রতিপক্ষের পরিকল্পনা বুঝতে হবে ও সচেতনতা থাকতে হবে। গিয়ে আক্রমণাত্মক খেললাম আর বললাম যে এটিই আমার খেলা, এভাবে কেউ বলতে পারবে না।”
…………………………………………………………
নাউ, ইট মেকস সেন্স! কিন্তু মাইক্রোফোন-রেকর্ডারের সামনে যেমন বললেন, একই ম্যাসেজ ড্রেসিং রুমেও শক্ত ভাবে দিতে পেরেছেন কি?

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

3 × two =