জার্মানি-ব্রাজিল ফাইনালের আগে: জানতেই হবে যে ৫টি ব্যাপার

আর কয়েকটা ঘন্টা পরেই শুরু হবে অলিম্পিক ফুটবলের ফাইনাল। দুই প্রতিপক্ষ ব্রাজিল আর জার্মানি আন্তর্জাতিক ফুটবলের সফল দুই দল। খেলা বাংলাদেশ সময় শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটায়। খেলার আগে যে কয়েকটি বিষয় আপনাকে জানতেই হবে:

১) দুই দলেরই হতে পারে প্রথম: একত্রিত হবার পরে কখনোই অলিম্পিকের সোনা জেতে নি জার্মানি। একই অবস্থা ব্রাজিলেরও। তবে ব্রাজিলেরটা নিয়ে কথাটা বেশি হবার কারণ হলো স্বাগতিক হওয়াতে ব্রাজিলের জন্যে সোনার প্রত্যাশাটা বেশি। আর ব্রাজিলও বেশ গুরুত্ব দিয়ে নিজেদের সেরা তারকা নেইমারকে কোপা খেলায় নি অলিম্পিকের জন্যে। ২০১২তে লন্ডনেও ব্রাজিল পাঠিয়েছিলো দারুন একটি দল। তবে সেবার নেইমার অস্কার হাল্কদের ফাইনালে হতাশ হতে হয় মেক্সিকো চমক দেখিয়ে দিলে।

২) এক ধাঁচের শুরু: জার্মানি আর ব্রাজিল দুটো দলই গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম দুটো ম্যাচ ড্র করেছে। ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ ইরাক আর সাউথ আফ্রিকা। জার্মানির মেক্সিকো আর সাউথ কোরিয়া। ব্রাজিল দুটো খেলাই গোলশূন্য ড্র করলেও জার্মানি ঐ দুই ম্যাচে ৫ গোল দিয়েছে এবং ৫ গোল খেয়েছে।

৩) আস্তে আস্তে শক্তি পাওয়া: গ্রুপের ৩য় ম্যাচে ডেনিশদের ৪-০ তে উড়িয়ে দেবার পরে কোয়ার্টারে কলম্বিয়া আর হন্ডুরাসকে হেসেখেলে পাড়ি দিয়ে ব্রাজিল নিজের মাটিতে পরিচয় দিয়েছে শক্তিমত্তার। আর অন্যদিকে জার্মানি ফিজিকে ১০-০ গোলে উড়িয়ে কোয়ার্টারে পর্তুগালকেও ৪-০। আর সেমিতে বয়স লেভেলের শক্তিধর দল নাইজেরিয়াকে ২-০ গোলে ধরাশায়ী করেছে। ধীরে ধীরে শক্তি পেয়েছে জার্মান মেশিনও।

৪) ব্রাজিল ডিফেন্স : টুর্নামেন্টের ৫ ম্যাচে একটিও গোল জড়ায় নি ব্রাজিলের জালে। মার্কুইনহোস আর কাইয়োর ভাগ্যেই জুটছে প্রশংসা। তবে অস্বীকার করা যাবে না হোল্ডিং মিডে অগাস্তোর অবদানও। দেখা যাক প্রতিরোধটা আসল ম্যাচটায় টেকে কিনা!

৫) যত তরুণেরা: আর্সেনালের নার্বি দলের হয়ে সেরা পারফর্মার এখনো পর্যন্ত। আর ব্রাজিলের দিক থেকে লুয়ান-জেসুস-বারবোসার মত তরুণেরা দলটাকে অনেক বেশি গ্ল্যামার দিয়েছে। জেসুস প্রথম দুই ম্যাচে ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে। তবে ঝলসে উঠছেন টুর্নি যত গড়াচ্ছে। তার ঝুলিতে আছে ৩ গোল। বারবোসা ম্যাচুরিটি দেখিয়েছেন বক্সে। আর নেইমারের সাথে লুয়ানকে দেখে একদমই নতুন মনে হয় নি। এই চার তরুণের একজনই রাঙিয়ে দিতে পারেন ফাইনাল।

আর কয়েক ঘন্টার অপেক্ষা। এবার হেরে গেলে ব্রাজিলের ভক্তেরা অলিম্পিকের গায়ে অভিশাপের সিল লাগিয়ে দিবেন নি:সংশয়ে। সম্ভাব্য সবচেয়ে ভালো দল, নিজের মাঠ, দারুন ফর্ম। এখন না হলে অনেক পরে!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

one × 5 =