ভারত হওয়াতে ফাইনালের চেয়ে বেশি কিছু !

‘সময় থেমে যাওয়া’ বাস্তবে এমন কোন কিছুর অস্তিত্ব কি আসলেই আছে ? বাস্তবে আমি অবশ্য বিশ্বাস করতাম না। এক মিনিট মানে ৬০ সেকেন্ড , ১ ঘন্টা মানে ৬০ মিনিট আর ১ দিন মানে ২৪ ঘন্টা সময়ের থেমে যাওয়াযাওয়ির আবার কী আছে ?
ক্রিকেট আমাকে বৈরাগী করে দিলো । আসলেই বুঝতে সাহায্য করলো, সময় বাস্তবেও থেমে থাকে । সময়ের আসলেও থেমে থাকার ক্ষমতাটা আছে । একবার না ! বেশ কয়েকবার ! তাসকিনের বলে উমর আকমলের ক্যাচটা উপরে উঠার সময় ঘড়ি থেমে ছিলো । আমিরের বলে সাকিব স্কুপ খেলে যে বলটায় বোল্ড হয়ে গেলো , সে বলটা পিচ করার সময়টায় ঘড়ি থেমে ছিলো । আনোয়ার আলী বলে রিয়াদের স্ট্রাইকটা বাতাসে ভেসে বাউন্ডারি রোপে যাবার মুহূর্তটাতে সময় অনন্তকালের জন্যে থেমে ছিলো ।
এমন ম্যাচ বারবার আসে না !
এমন রাত বারবার আসে না !
এমন শেষ বারবার আসে না !
এশিয়া কাপে আমাদের সামনে এখনো আরো চল্লিশ ওভারের খেলা বাকি । সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ৪০ ওভার । সবচেয়ে দামি ৪০ ওভার । দ্যা বিগ ফাইনাল । ম্যাচটা ভারতের সাথে হওয়াতে ফাইনাল শুধু ফাইনাল থাকছে না । ভারত-বাংলাদেশের দ্বৈরথের পরিসংখ্যান ভারতকে অন্ধের মত এগিয়ে রাখবে । কিন্তু শুধু ম্যাচ জয়ের সংখ্যা দুটো দলের মধ্যে দ্বৈরথের আসল মাত্রাটা বোঝাতে পারবে না কোনভাবেই । বাংলাদেশ বড় টুর্নামেন্টে ভারতকে হারিয়েছে ২বার । একবার ২০০৭ এর ক্রিকেট বিশ্বকাপে আরেকবার ২০১২ এর এশিয়া কাপে । দুটোবারই বাংলাদেশের কাছে হার ভারতকে দুটো বড় টুর্নামেন্ট থেকে ছিঁটকে দিয়েছে । আর এরপরে ২০১৫ এর অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপে মেলবোর্নের অনেক বিতর্কের ম্যাচ শুধু দ্বৈরথের ঝাঁজটাই বাড়িয়েছে । বিশ্বকাপের পরে ওডিআই সিরিজে ভারতকে পেয়ে ওভাবে হারানো, মাঠে আমাদের একেকজন খেলোয়াড়ের বডি ল্যাংগুয়েজ কিংবা গ্যালারিতে দর্শককূলের মওকা মওকা বিদ্রূপ- সবকিছুই একটাই কথা বলেছে – “সামনে আরো খেলা হবে !”
এবারের এশিয়া কাপ টি২০ এর প্রথম ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচটার ফলাফল বলতে পারবে না ম্যাচের একটা অংশ কতোটা স্নায়ুচাপ পোহাতে হয়েছে ম্যাচের জয়ী দল ভারতকেও । কোহলি-রায়না-ধাওয়ানদের মত টি২০ স্পেশ্যালিস্টদের চটজলদি ফিরিয়ে দিয়ে ম্যাচের শুরুকে রাঙিয়ে দিতে পারলেও ফিল্ডিং-বোলিং আর ব্যাটিং এর বাকি অংশ মিলিয়ে ভারতের টি২০ পেশাদারিত্বের কাছে আর ঠিক পেরে উঠে নি বাংলাদেশ ।
ফাইনালের আগে নিখাদ ক্রিকেটের বিশ্লেষণে গেলে বলবো, ভারতের সাথে ম্যাচটা জিততে হলে বাংলাদেশের ব্যাটিংটা ক্লিক করতে হবে সবার আগে । পাকিস্তানের সাথেও আমাদের ব্যাটিং শেষ সময়টা ছাড়া তেমন ক্লিক করলো কোথায় ? একটা ম্যাচ উইনিং ইনিংস দিয়ে ভারতের সাথে ম্যাচ বের করা অনেক কষ্ট হয়ে যাবে । সৌম্যের দারুন কিছু শট এসেছে পাকিস্তানের সাথে । তবে উইকেটে তাকে থিতু লাগে নি একটা মুহূর্তের জন্যে । তামিম উইকেটের ভেতরে ঢোকা বলে ঠিক কতবার লেগবিফোর হয়েছেন তা তিনি নিজেও জানেন না । মুশফিক আর সাকিব এখনো সেভাবে ক্লিক করে নি বলেই প্রেসার শিফট হয়েছে নিচের দিকে । ব্যাটিং নিয়ে অনেক অনেক প্রশ্ন আর ভারতের সাথে জিততে গেলে সবগুলো প্রশ্নের উত্তর মিলতে হবে একই সাথে ।

শেখর ধাওয়ান ছাড়া ভারতের টপ অর্ডারের সবার টিটোয়েন্টি ইন্টারন্যশনালের স্ট্রাইকরেট ১৩০ ছাড়ানো আর এভারেজ ৩০ এর উপরে । এর মধ্যে বিরাট কোহলির ৫১ এভারেজেকে এই ফরম্যাটে অমানবিক ট্যাগ লাগানোই যায় । তার অন্যপাশে আমাদের টিটোয়েন্টি রেকর্ড আর সাকিব-মুশির এখনকার ব্যাটের ফর্ম সাথে যোগ করলে ভারতের পাল্লাটা ব্যাটিং এর ক্ষেত্রে ‘একটু’ নয়, বেশ ভারি লাগবে !
তবে এটা একটা ফাইনাল । ৪০ ওভারের ম্যাচে ভালো খেলা দলটাই ট্রফি জিতে নেবে । আর খেলাটা এই ফরম্যাটের বলে ফেবারিটের তকমা আর তার ওজন আরো হালকা বলতেই হবে । মুস্তাফিজকে মিস করতেই হবে বাংলাদেশকে । ভারতের মত ডেডলি ব্যাটিং লাইনকে ফেইস করার আগে তো অবশ্যই । তাসকিন-আলামিনের ডুয়ো প্রথম ৬ ওভারে ভারতের উপরে ঠিক কোন মাত্রায় চেপে বসে তার উপরে অনেকটা নির্ভর করছে বাংলাদেশের ভালো মন্দ । তবে মাহমুদুল্লাহ আর সাব্বির বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনাপের মধ্যে সবচেয়ে ভালো টাচে আছেন । সাব্বির এখন আর প্যাকেজ টাইপের খেলোয়াড় নেই । বরং ওয়ান ডাউনের সাব্বির দলের ব্যাটিং লাইনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় । স্লগ ওভারে ভালো ব্যাটিং এর জন্যে বাংলা দেশ তাকিয়ে থাকবে সাইলেন্ট কিলার রিয়াদের দিকে ।

পেসারদের ক্লিক করা আর ব্যাটসম্যানদের টুর্নামেন্টের সেরা খেলাটা খেলে দেওয়া – আপাতত বাংলাদেশের সবচেয়ে দরকারি জবলিস্ট এই দুটোই । আর এর বাইরে খেলাটা উপভোগ করাটা অনেক দরকারি টাস্ক । স্রেফ একটা এশিয়া কাপের ফাইনালের আগে উত্তেজনায় তাসকিনের হাতে ফটোশপে ধোনির কাটা মুন্ডু বসিয়ে দিয়ে ফাইনালের উত্তাপ বাড়ানো কিংবা সিচুয়েশনকে খুবই আকর্ষণীয় করার চিন্তাভাবনা যে জাতির মধ্যে এখনো ঘোরে ফেরে , সে জাতির ব্যাপারে বাইরে থেকে দেখা মানুষ একটাই সাজেশন দেবে । তোমাদের দল এশিয়া কাপের মত টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার লায়েক হয়ে গেছে , কিন্তু তোমাদের চিন্তাভাবনা এখনো টুর্নামেন্টে এক ম্যাচ জেতা মিনোসের মতই রয়ে গেছে ।
415712-sabbir-rahman-afp

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

five × 2 =