ইংল্যান্ড হটসিট – কে বসছেন এইবার?

ইউরো ২০১৬ তে দ্বিতীয় রাউন্ডেই আইসল্যান্ডের কাছে অপ্রত্যাশিত পরাজয়ে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়ার পর ইংল্যান্ড কোচের পদ থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন সাবেক ফুলহ্যাম, ইন্টার মিলান, লিভারপুল ও ওয়েস্টব্রম কোচ রয় হজসন। যথারীতি বিভিন্ন মিডিয়ায় (বিশেষত ব্রিটিশ, স্বাভাবিক!) কানাঘুষা শুরু হয়ে গেছে কে হবেন রয় হজসন, অ্যালফ র‍্যামসে, স্টিভ ম্যাকক্লারেন, ফ্যাবিও ক্যাপেলো, ববি রবসন, টেরি ভেনবলস, গ্লেন হডল, সভেন-গোরান এরিকসনদের উত্তরসূরি।

রয় হজসন
রয় হজসন

এই ব্রিটিশ মিডিয়ার নিরন্তর লাফালাফির জন্যই সেই ১৯৬৬ বিশ্বকাপ এর পর সেরকম কিছু না করতে পারলেও ইংল্যান্ড জাতীয় দল সবসময় আলোচনায় থাকেই, বিভিন্ন টুর্নামেন্টের শুরুতে, কেউ অবসর নিলে, কিংবা কোন কোচ বরখাস্ত হলে। রয় হজসনও সেরকম আহামরি কোন কোচ কখনই ছিলেন না, বারবার আজগুবি স্কোয়াড ঘোষণা, প্রশ্নবিদ্ধ খেলোয়াড় নির্বাচন করা সত্বেও তাঁকে হাই-প্রোফাইল বানিয়েছে এই ইংলিশ মিডিয়াই।
যাই হোক, ধান ভানতে শিবের গীত গাওয়া শুরু করলাম। হজসন যাওয়ার পরে যথারীতি ব্রিটিশ মিডিয়ায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে ইংল্যান্ড হটসিটে কার বসা উচিত সেটা উচিত। একনজরে দেখে নেওয়া যাক কার কার ইংল্যান্ড কোচ হবার সম্ভাবনা আছে এবার –

 

  • আর্সেন ওয়েঙ্গার

বলা হচ্ছে, ইংল্যান্ড কোচ হিসেবে রয় হজসনের স্থলাভিষিক্ত হিসেবে ফুটবল অ্যাসোসিয়েশানের সবচে পছন্দের প্রার্থী এখন আর্সেনালের কিংবদন্তী কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গারই। আর্সেন নিজেও ইংল্যান্ডের কোচ হবার বিষয়ে আগ্রহ দেখিয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। আর্সেনালের সাথে ওয়েঙ্গারের চলতি চুক্তি আছে আর মাত্র এক বছর, ওয়েঙ্গারের ইচ্ছা তাই একবছর পর ইংল্যান্ডের দায়িত্ব নেবার। কিন্তু বাধ সাধতে পারে আর্সেনাল। আর সাধবে নাই বা কেন। ১৯৯৬ সাল থেকে যে ম্যানেজারকে যারা আঁকড়ে ধরে রেখেছে, যে ম্যানেজারের হাত থেকে উঠে এসেছেন থিয়েরি অঁরি, প্যাট্রিক ভিয়েরা, টনি অ্যাডামস, রবার্ট পিরেস, ডেনিস বার্গক্যাম্পের মত কিংবদন্তীরা, সেই ম্যানেজারকে ত তাঁরা চাইলেই যেতে দিতে পারেনা, তাইনা? এখন দেখা যাক, ওয়েঙ্গারকে আটকিয়ে রাখতে পারে নাকি আর্সেনাল!

hi-res-afd255594c7ff35a66c7d6b7aa894e9b_crop_north

  • ইয়ুর্গেন ক্লিন্সম্যান

আজকের এই বিশ্বজয়ী জার্মানি দলটার স্থপতি হিসেবে সাবেক এই কিংবদন্তী স্ট্রাইকারের নাম করা হলেও অত্যুক্তি করা হবেনা মোটেও। ২০০৬ সালের বিশ্বকাপে জার্মানিকে তৃতীয় করার পেছনে এই মাস্টারমাইন্ডের ভূমিকা অনস্বীকার্য। জার্মান দলের বর্তমান কিংবদন্তী ফিলিপ লাম, বাস্তিয়ান শোয়াইনস্টাইগার, লুকাস পোডোলস্কিদের শুরুটা কিন্তু এই ক্লিন্সম্যানের হাত ধরেই। এমনকি বর্তমানে জার্মানির বিশ্বকাপজয়ী কোচ জোয়াকিম লো কিন্তু ক্লিন্সম্যানেরই সহকারী ছিলেন একসময়। মাঝে কিছুদিন বায়ার্ন মিউনিখের কোচ থাকা ক্লিন্সম্যান এখন দায়িত্বে আছেন ইউনাইটেড স্টেটস অফ আমেরিকার, যাদের জিতিয়েছেন ২০১৩ সালের কনক্যাকাফ গোল্ডকাপ। ২০০৬ সালের জার্মান ম্যানেজার অফ দ্য ইয়ার ও ২০১৩ সালে কনক্যাকাফ ম্যানেজার অফ দ্য ইয়ার হওয়া এই কোচের নামও পরবর্তী ইংল্যান্ড কোচ হিসেবে শোনা যাচ্ছে বেশ জোরেশোরেই। এখন জাতিগত বিদ্বেষ ভুলে নিজেদের জাতীয় দলের দায়িত্ব কি এক জার্মানের হাতে তুলে দেবে ইংলিশরা? দেখার বিষয় সেটাই।

ইয়ুর্গেন ক্লিন্সম্যান
ইয়ুর্গেন ক্লিন্সম্যান
  • লঁরা ব্লাঁ

সদ্য পিএসজি থেকে চাকরিচ্যুত ফরাসী এই ম্যানেজার বেশ ভালোভাবেই আছেন ইংল্যান্ডের ম্যানেজার হবার দৌড়ে। সাবেক এই ফ্রান্স জাতীয় দলের কোচ কোচিং করিয়েছেন আরেক ফরাসী ক্লাব বোর্দোকেও। বোর্দো বা পিএসজির হয়ে বেশ ক’বার ট্রফির স্বাদ পাওয়া ব্লাঁ তুলনামূলক ভাবে ফ্রান্সের হয়েই সেরকম কিছু করতে পারেননি। তাঁর অধীনে ২০১২ ইউরোতে স্পেইনের কাছে হেরে গিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই ছিটকে পড়ে ফরাসীরা। পরে নিজেই ফরাসী কোচের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ান ব্লাঁ। তবে দুইবার লিগ ওয়ান ম্যানেজার অফ দ্য ইয়ার ও একবার ফ্রেঞ্চ ম্যানেজার অফ দ্য ইয়ার ব্লাঁ কে বেশ ভালোভাবেই বিবেচনায় রাখতে পারে ইংলিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশান।

লরাঁ ব্লাঁ
লরাঁ ব্লাঁ
  • গ্যারেথ সাউথগেট

গড়পড়তা ফুটবলানুরাগীদের কাছে এই নামটা সেরকম পরিচিত না হলেও ফুটবল অ্যাসোসিয়েশানের কাছে এই নামটা বেশ পরিচিতই। সাবেক এই ইংল্যান্ড ডিফেন্ডার বর্তমান ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২১ দলের কোচ। ফলে সাউথগেট এফএ বা ইংলিশ জাতীয় দলের রীতিনীতি, নিয়মকানুন – বেশ ভালোভাবেই জানেন, তাঁর মানিয়ে নেওয়ার কোন বিষয় নেই। এমনকি বর্তমান তরুণ ইংলিশ খেলোয়াড়েরাও মূলত সাউথগেটের হাত ধরেই মূল দলে উঠে এসেছেন/আসছেন। কিন্তু শোনা যাচ্ছে এফএ একবছরের জন্য ভারপ্রাপ্ত কোচ হিসেবে তাঁকে নিয়োগ দিতে চায়, এই একবছরে এফএ ওয়েঙ্গার বা ক্লিন্সম্যানের মত হাইপ্রোফাইল কোন কোচকে রাজী করাবে ইংল্যান্ড ম্যানেজার হবার জন্য। আর এতেই বেঁকে বসেছেন সাউথগেট। ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব চাচ্ছেন না তিনি। তা যাই হোক, পরবর্তী কোচ হিসেবে তাই সাউথগেটও আছেন দৌড়ে।

গ্যারেথ সাউথগেট
গ্যারেথ সাউথগেট

মূলত এই কয়জনই এখন পর্যন্ত বলা যেতে পারে ইংল্যান্ডের ম্যানেজার হবার দৌড়ে এগিয়ে আছেন। বাকী যাদের মধ্যে থেকে এফএ ম্যানেজার নির্বাচন করলেও করতে পারে তাঁরা হলেন –

 

  • গ্যারি নেভিল (ইংল্যান্ড সহকারী কোচ, সাবেক ভ্যালেন্সিয়া কোচ)
  • স্লাভেন বিলিচ (ওয়েস্টহ্যাম কোচ, সাবেক ক্রোয়েশিয়া কোচ)
  • এডি হাউ (বোর্নমাথ কোচ)
  • অ্যালান পার্ডিউ (ক্রিস্টাল প্যালেস কোচ, সাবেক সাউদাম্পটন, ওয়েস্টহ্যাম, নিউক্যাসল ইউনাইটেড কোচ)
  • গ্লেন হডল (সাবেক ইংল্যান্ড, চেলসি, টটেনহ্যাম হটস্পার, সাউদাম্পটন কোচ)
  • ব্রেন্ডান রজার্স (সেল্টিক কোচ, সাবেক লিভারপুল ও সোয়ানসি সিটি কোচ)

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

5 × 2 =