মাসচেরানোঃ পিভট দ্য ডেস্ট্রয়ার

২০১০ সালের কথা। মাত্র বার্সেলোনা হেক্সা মিশণ শেষ করছে। ইতিহাসে প্রথম ক্লাব হিসেবে জিতে নিল পসিবিল সবগুলো ট্রফি। তারপর আমাদের নতুন করে দলের স্ট্রেন্থ বাড়ানোর দরকার ছিল। পুয়েলের হর হামেশা ইঞ্জুরির কারণে একজন ব্যাক আপ ডিফেন্ডার দরকার ছিল। মেসি বার্সা বস পেপকে সাজেস্ট করলেন মাসচেরানোর কথা। চরম মেজাজ খারাপ হয়েছিল তখন মেসির উপর। স্বদ্বেরপ্রীতি করতেছে এমনও বলেছিলাম। পেপ মেসির সাজেশনই নিলেন। লিভারপুলে প্রায়ই লাল কার্ড খাওয়া মাসচেরানোকে নিয়ে এলেন বার্সেলোনায়। কিন্তু একজন ডিএমকে খেলাবেন কোথায়? বুসি তখন ফর্মের তুঙ্গে। তাকে বসিয়ে মাসচেকে খেলানো অসম্ভব ছিল। আর এখানেই ছিল পেপের গ্রেটনেস। যারা বলে পেপ শুধু একটা ভালো টিম পেয়ে ভালো রেজাল্ট করছে তারা মাসচেরানোকে দেখুক।

পেপ তাকে নতুন করে গড়ে নিয়েছে। পেপ মাসচেরানোকে ডিফেন্সিভ মিড ফিল্ডার থেকে বানিয়ে দিলেন সেন্টার ব্যাক। আমরা পেপের পাগলামি দেখে অবাক হয়েছি। রাইভালরা হেসেছে। তাদের হাঁসিতে রশদ জুগিয়েছে মাসচেরানোর হর হামেশা ভুল করা। রেগুলার কার্ড খাওয়া। এমন কি ওনগোলও করেছে সে। কিন্তু পেপ তার উপর বিশ্বাস রেখেছে। প্রায় নিয়মিত খেলিয়েছে। তার পাসিং একুরেসি বাড়িয়েছে। পুয়েলবিহীন বার্সা ডিফেন্সকে সে ভালো ভাবেই আগলে রেখেছিল। অবশ্য আমরা না চিনলেও ম্যারাডোনাও মাসচেরানোকে চিনেছিল। তাই কোচ হওয়ার পর বলেছিল, আর্জেন্টিনা টিমে খেলবে মাসচেরানো আর অন্য ১০ জন। এতটাই বিশ্বাস ছিল তার উপর।

মাসচেরানো লেগে ছিলেন। নিজেকে উন্নতি করেছে। বার্সা আনওয়ান্টেড থেকে সবচাইতে ইফেক্টিভ প্লেয়ারে পরিণত করেছেন। গত সিজনে বার্সার বেস্ট খেলোয়াড়ও হয়েছেন। যে স্লাইডিং ট্যাকল এর জন্য হরহামেশা কার্ড খেতেন সেই স্লাইডিং ট্যাকলকে শিল্পে পরিণত করলেন। সেই ট্যাকল এর কারণেই আর্জেন্টিনা নেদারল্যান্ড কে হারিয়ে বিশ্বকাপের ফাইনালে যায়।

আপনারা বার্সার খেলা দেখলে বা আর্জেন্টিনার খেলা দেখলে খেয়াল করবেন যে গোল হওয়ার পর সবাই যখন সেলিব্রেট করে তখন কোচ মাসচেরানোকে ডাগ আউটে ডেকে নিয়ে খেলার সিচুয়েশন নিয়ে আলোচনা করেন এবং প্রয়োজনীয় ইনস্ট্রাকশন দেন। কারণ জাভির পর মাসচেরানোর মত গেম রিড খুব কম প্লেয়ার করতে পারে। আর মাসচেরানো হল বাই বর্ণ লিডার। আর্জেন্টিনা টিমের ক্যাপ্টেইন আর্‌ম ব্যান্ড মেসির হাতে থাকলেও মাঠে লিডার কিন্তু মাসচেরানোই। আর্জেন্টিনার নাজুক ডিফেন্স রাতারাতি বদলে গেল কিভাবে? সেটাও পিভট মাসচেরানোর স্পর্শে। মাসচেরানো যখন ডিফেন্সে থাকে সবসময় ডিফেন্সকে হোল্ড করে রাখে। যখন পিভট-এ খেলে তখনও ডিফেন্সকে লিড করে ফরওয়ার্ড লাইনের সাথে লিংক আপ করে। তবে মাসচেরানোর সব চেয়ে বড় স্কিল হল ডেস্ট্রয়িং এ। প্রতিপক্ষের আক্রমণ গড়ে উঠার আগেই মাসচেরানো সেখানে ইন্টারসেপ্ট করে। তাকে ডিঙ্গে খুব কম আক্রমণই ব্যাক লাইনে যায়।

আজকে পৃথিবীর আন্ডাররেটেড প্লেয়ারদের মাঝে অন্যতম এই প্লেয়ার, যাকে আদর্শ একজন টিম প্লেয়ার বলা যায় তার জন্মদিন। শুভ জন্মদিন মাসচে। আমি অন্যদের মত তোমার গোল কেন হয় না সেটা নিয়ে হাহুতাস করতে চাই না। আমি চাই তুমি একের পর এক স্লাইডিং ট্যাকল করে প্রতিপক্ষের সব আক্রমণ ডেস্ট্রয় করে যাও।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

five × two =