রোমায় নতুন ফরাসী স্ট্রাইকার : গ্রেগোইরে দেফরেল

এই মৌসুমেই সাসসুয়োলো থেকে রোমায় ম্যানেজার হিসেবে যোগ দিয়েছেন ইতালিয়ান ম্যানেজার ইউসেবিউ ডি ফ্রানসেস্কো। এবার সাসসুয়োলো থেকে সাথে করে নিয়ে আসলেন প্রিয় শিষ্য ফরাসী স্ট্রাইকার গ্রেগোইরে দেফরেলকেও। গত মৌসুমে সাসসুয়োলোর হয়ে এই দেফরেল ১৬টার মত গোল করেছিলেন। ২৬ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার আপাতত রোমায় যোগ দিচ্ছেন ধারে, এই মৌস্মটা ধারে কাটানোর পর ২০২২ সাল পর্যন্ত পাকাপাকিভাবে রোমাতে চলে আসবেন ১৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে।

গত মৌসুমে লিগে ৩৩ ম্যাচ খেলা এই স্ট্রাইকার গোল বরাবর যতগুলো শট নিয়েছিলেন সেগুলোর মধ্যে মাত্র ৩২.৪ শতাংশ শটকে গোলে রূপান্তরিত করতে পেরেছিলেন তিনি। সাসসুয়োলো ক্যারিয়ারে ৬২ ম্যাচে ২০টার মত গোল করেছেন মোট। ফরাসী এই স্ট্রাইকারের খেলার স্টাইলের সাথে এএস রোমারই সাবেক আরেক ফরাসী স্ট্রাইকার জেরেমি মেনেজের খেলার স্টাইলের মিল খুঁজে পান অনেকে। ড্রিবলিংয়ে ভীষণভাবে পারদর্শী এই স্ট্রাইকার খেলতে পারেন রাইট উইঙ্গার কিংবা সেন্ট্রাল অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবেও। ছোট ছোট পাসে খেলতে পছন্দ করা এই স্ট্রাইকার বল পায়ে প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডারদের ব্যস্ত রেখে বাকী সতীর্থদেরকে আক্রমণ করার জন্য উপযুক্ত পজিশানে উঠে আসতে সহায়তা করেন, প্রয়োজন অনুযায়ী নিচেও নেমে যান রক্ষণ করার জন্য। বাম পায়ের এই খেলোয়াড়ের কার্যকারিতা সবচাইতে বেশী বোঝা যায় ৪-৩-৩ ফর্মেশানে। বেশী লম্বা না হবার কারণে স্বভাবতই বাতাসে ভেসে আসা বল কন্ট্রোল করার ক্ষেত্রে অতটা পারদর্শী নন তিনি, কিন্তু তাঁর শক্তপোক্ত শরীর ও গঠন তাঁকে কাউন্টার অ্যাটাকিং স্টাইলের কার্যকরী এক স্ট্রাইকার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। এখনকার নামী স্ট্রাইকারদের মধ্যে লেস্টার সিটির ইংলিশ স্ট্রাইকার জেইমি ভার্ডির সাথে তাঁর তুলনা করা যায়, যদিও দেফরেলের তুলনায় ভার্ডি অনেক বেশী গতিশীল।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

eight + 5 =