একটু আছে ভেবে দেখার

মানুষ আশায় বাস করে । এমনকি খেলাধুলা নিয়ে আমাদের সাপোর্ট আর আবেগের ক্ষেত্রেও আমাদের আশাবাদী রূপটার ভূমিকা অনেক বেশি । আমাদের এ দলটা এমন এক সময়ে ভারত সফর করলো , যে সময়ে আসলে আমাদের ক্রিকেট এক কথায় উড়ছিলো । সেই হিসাব করলে আমাদের এই সিরিজে খুব ভালো কিছু করলে সেটা আলোচনায় আসার সুযোগ ছিলো কম । কিন্তু খারাপ খেললে অনেক কথা হবার সুযোগ ছিলো । আমাদের এ দল আর ভারতের এ দলে ফাড়াক ছিলো কিছু । দুই দলই শক্ত এ দল দিয়েছে । তবে আসল ফাড়াকটা অন্য একটা জায়গায় হয়ে গেছে । ওরা এমন লোকদের দলে নিলো , যারা আসলে সামনের ১-২ বছরে দলে খেলবে । আর আমরাও একই লোকদের পাঠিয়েছি । তবে আমাদের এই শ্রেণীর ক্রিকেটারদের অধিকাংশেরই জাতীয় দলে খেলার সুযোগটা আগে হয়ে গেছে বা এখনো হচ্ছে । আর ওদের বেশিরভাগ প্লেয়ার একদম ফ্রেশ । সুতরাং , সে হিসেবে আমাদের প্লেয়ারেরা ছিলো বেশি মাত্রায় মুখচেনা । ওদের এ দলটা তেমন ছিলো না ।

রনি – সৌম্য- আনামুল -মমিনুল … এই কোয়াট্রেট আমাদের ফিউচার । এরা সারাটা সিরিজ একদম বেশ ভালোভাবে ভুগলো । শেষমেষ আজকে শুরু হওয়া ৩ দিনের ম্যাচেও প্রথম দুইজনের জুটলো ডাক আর বাকি দুইজনও ডাবল ফিগার ছোঁয়ার আগেই শেষ । টপ অর্ডার নিয়মিত কলাপ্স করছে । মিডল অর্ডারে পড়ছে চাপ । একটা দুটো ভালো ইনিংসে লড়াই করার পুঁজি হচ্ছে বা ব্যবধানটা কমে যাচ্ছে কিছুদূর । ওয়ানডে সিরিজে ২-১ এ হার এলো । জেতা ম্যাচটা ছাড়া আর কোনটাতে আমাদের ব্যাটিং রঙ দেখাতে পারে নাই । তাও সেই কেবল নাসির হোসেন এর বোলিং মীরাক্কেলে একটা ম্যাচ আমাদের পক্ষে এসেছে । রোজ তো আর এগুলো হয় না । হয়ও নি । তাই সিরিজটাও জিতি নাই ।

আজকে রঞ্জি চ্যাম্পিয়ন কর্নাটকের সাথে সেই দেড়শোতেই গুটালো বাংলাদেশ । টসে জিতলেও আমাদের ব্যাটিং ধসে পড়ছে , টসে হারলেও । ভারত আর তেমন বিদেশ কই ?? এই মমিনুল বা আনামুলদের নিয়েই কিন্তু আমাদের বাইরে টেস্ট খেলতে হবে । বাইরে মানে সাউথ আফ্রিকা কিংবা ইংল্যান্ড । এরা আমাদের ফিউচার । ফিউচার না বলে তো বর্তমান বলাই ভালো । লিটন- সৌম্য – মমিনুল তো আমাদের ফার্স্ট টীম প্লেয়ার ।

ভেবে দেখতে হবে ।
এরকম ছোট ট্যুর আরো রাখতে হবে ।
এনসিএলে চারদিনের ম্যাচ যে আদর্শ কোন লংগার ভার্সন প্রিপারেশনে ক্ষেত্র না সেটাও মনে হয় আরো একবার প্রমাণ হয়ে গেল ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

15 − 3 =