দুঙ্গার ব্রাজিল এক টুকরো কমেডি

নাম্বার টেন থাকবে এজ আ্যা সাব! কোপার ডেস্টিনেসন কি? বুঝা একবাক্যে সোজা। খেলতে হবে খেলছি টাইপ। সাইডলাইনে গণ্ডমূর্খ দুংগা। গুস্তাবো লিভ নিলো দুংগার সাথে মনমালিন্যতায়। দলের ইউনিটি জিরো লেভেলের। পুরা ব্রাজিল আইওয়াশ হয়ে আছে অলিম্পিকের দিকে। বাঙালী মরি ইমোশনে! না জিতা পসিবল না ! ইমোশনে জিতা যায়না ভালোবাসা যায়। ন্যাশনাল টিম, মানে বিরাট কিছু, কে আছে কে নাই ব্যাপারনা আর্জেন্টিনার মফিজরে ঠিকই থ্রেট দিবে। ফেয়ার লাক আমাদের রাইভালরা আরো চিপায়। আগের হলুদ জার্সির ডেডিকেশন ছিলো অন্য লেভেলের এখন সেটা “আচাবুয়ার বোম্বাচাক “। ক্লাবের টাকার গোলাম । বাণিজ্যকতার ছোঁয়া। আর সমর্থকরা মরে ইমোশনে!
এই টিমের সেমি মানে বিরাট কিছুই। স্টার্টার প্রায় সবি এভারেজ প্লেয়ার । চিলি, আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ের চাইতে ফার ডিস্টেন্স। কৌতি – উইলির দিকে চোখ থাকবে দুই উইং দিয়া কিছু শো করে যেনো মানইজ্জত রক্ষা করে। গ্যাবিগোলরে স্টার্টার দেখলে বেটার হতো, ফিউচার বলে কথা! এক্সপেরিমেন্টের দরকার ছিলো সামনের জন্যে। জোনাস গোল টোল দিয়া সবার আইওয়াশ করলে ফ্রেডের মত আবার সোজা কট। সেম উইশ ক্যাসমিরোর জন্যে ও এই সিজনে বল উইনিং আর প্রভাইডে অনেক মডার্ন লাগসে। আমাদের ফিউচার। মার্কুনহইস -মউরা মানে আপসোস। মার্কুনহইস এবার স্টার্টার যেহেতু থাকছে সামনে কাজে দিবে। এবার টোটাল কোপাটা আমি পার্সোনালি এজ আ্যা এক্সটেরিমেন্ট নিচ্ছি। কিছু প্লেয়ারদের দিকে চোখ থাকবে এরা সামনের জন্যে কিছু এক্সপেরিয়ান্স গেইন করুক এটা খুব করে চাচ্ছি। জিতার আশা এখন শুন্য লেভেলের। ভয়টা আরো বেশী সাইডলাইনের বিখ্যাত মহাপণ্ডিতের জন্যে। না হয় জিতাটা অকল্পনীয় ছিলো না। ভাগ্যদোষ! আফটার অল অফ শিট থিংস সবসময় দোয়া আর সমর্থন থাকবে ব্রাইট ফিউচারের জন্যে। হলুদ জার্সির মায়া বড্ড বেশী। সুযোগ পেলেই দেখতে বসে যাবো কোপা। দেখতে বসা মানে জিততে হবে আর কয়েকদিন মন খারাপ করে বসে থাকতে হবে…. চলুক।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

5 × 3 =