মৃত্যুক্ষুধার শেষ বিকেল : হুয়ান বেলমন্তের উপাখ্যান

একটা ভয়ানক হিংস্র ষাঁড়। একজন ম্যাটাডোর।এক টুকরো লাল কাপড়। মাটিতে ক্ষুর ঠোকার চাপা শব্দ। খুনের উৎসব ! স্প্যানিশ ভাষায় —‘করিদা দে তোরোস’। পর্তুগিজে—‘তাউরোমাকুইয়া’। ইংরেজিতে ‘বুলফাইটিং। খেলাটি অনেকের চোখেই, পশুহত্যার উত্সব! অনেকে মনে করেন, বুলফাইটিং ধর্মীয় আচরণবিধি পালনের সমগোত্রীয়। খ্রিস্টপূর্ব ২১০০ অব্দে প্রাচীন মেসোপটেমিয়া সভ্যতার মহাকাব্য ‘এপিক অব গিলগামেশ’। এটা নাকি পৃথিবীর

মুসলিম হও কর্মে, হিংস্র রক্তলোলুপতায় নয়!

করীম আব্দুল জব্বার নামটা কি পরিচিত লাগছে? আমি শিউর আমার ফ্রেন্ড-ফলোয়ারদের মধ্যে হাতে গোনা দুই-একজনও এই নামটা কার, জানে না।  মুহাম্মদ আলীকে যেমন সর্বকালের সেরা বক্সার ধরা হয়, করীম আব্দুল জব্বারকেও অনেকেই সর্বকালের সেরা বাস্কেটবল খেলোয়াড় হিসেবে মানে। ২০১৬ সালে ESPN তাকে মাইকেল জর্ডানের পর সর্বকালের ২য় সেরা খেলোয়াড় হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে যদিও

স্যাম বিলিংসের সৌজন্য

আজকে একটা ব্যাপার খুব ভাল্লেগছে! আমাদের ইনিংসের শুরুতে আমাদের গ্যালারির সামনে ছিলো Bairstow , পুরাটা সময় আমাদের সাথে মজা করসে , একটা পিচ্চি ছেলের সাথে বন্ধুত্ব ও পাকাই ফেললো :p বেচারা ইঞ্জুর্ড হয়ে চলে যাবার পর মাঠে নামে বিলিংস। সে আরেক খাটি সরেস! ওর নামে একবার চিয়ার ও করা হইসে

শচীনকে আইডল মেনে চলা দরকার!

মাঝেমধ্যে আফসোস হয় ইশ আমাদের যদি শচীনের মত কেউ থাকতো যার ধ্যাণ জ্ঞান সবকিছুই হবে ক্রিকেট কেন্দ্রিক! যার উপর মডেল বিজ্ঞাপন মিডিয়া এইসবের কোন প্রভাব থাকবেনা , সবসময় মাটিতে পা রাখবে এবং উন্নতি করার সুযোগ খোজে , আর কখনোই থেমে যাবেনা ! যার কাছে শুধু ক্রিকেটটাই ধর্ম কর্ম হবে! ১৫০

মোসাদ্দেকের ইতিহাস

ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম বলেই উইকেট পাওয়া বাংলাদেশের প্রথম বোলার মোসাদ্দেক... সব মিলিয়ে মোসাদ্দেক ২৪তম। আগের ২৩ জনের মাঝে আছে বিস্ময়কর কিছু নাম... অনুমান করতে পারেন? ক্লাইভ লয়েড, ইনজামাম-উল-হক, সদাগোপfন রমেশ, মার্টিন ভ্যান জার্সফেল্ড!

অসম্ভব কিছু না!

টেস্ট, ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি--কদিন আগেও তিন সংস্করণেই দলীয় সর্বোচ্চ ইনিংস ছিল শ্রীলঙ্কার। এখন ওয়ানডে রেকর্ড ইংল্যান্ডের, টি-টোয়েন্টি রেকর্ড অষ্ট্রেলিয়ার। টেস্ট আর বাকি থাকবে কেন? বাংলাদেশই রেকর্ডটা গড়ে ফেলতে পারে! ৯৫২ রান ছাড়িয়ে যাওয়া অসম্ভব কিছু নয়। এই তামিমের একটা ট্রিপল সেঞ্চুরি, মুমিনুলের ডাবল, মুশির দেড়শ, ইমরুল ও রিয়াদের সেঞ্চুরি, সাকিবের একটা ঝড়ো

দরকার শুধু বারুদটা জ্বালিয়ে দেওয়ার

আজ প্রথম আলোতে বাংলাদেশের নতুন বোলিং কোচ ক্যারাবিয়ান লিজেন্ড কোর্টনি ওয়ালশ এর সাক্ষাৎকার পড়তে পড়তে খেয়াল করলাম কখন যেন চোখের কোণ ভিজে গেছে, অদ্ভুত এক ভালোলাগায় মনটা ভরে গেছে ... উনি মুখে যতটুকু বললেন তার অর্ধেকও যদি একজন "প্রফেশনাল কোচ" নয় বরং একজন "মেন্টর", "ফাদার ফিগার" হিসেবে মুস্তাফিজ-তাসকিন-রুবেল-আল আমিনদের ভেতর

আশা নিয়ে বাঁচতে শিখুন!

::::: ড্র্যাক্সলার নাবিল ::::: যদি নিজের জীবন নিয়ে হতাশা থেকে উল্টাপাল্টা কিছু করার ইচ্ছা জাগে তবে মনে রাখবেন , এই পৃথিবীতে লিভারপুল ফ্যানস এখনো বেঁচে আছে :) আমরা লিভারপুল ফ্যানরা চোখের সামনে হাতের মধ্যে থাকা ২৪ বছরের অধরা লিগ টাইটেল হারাইতে দেখছি , ২০১৩-১৪ সালে । সেই সিজনটা স্বপ্নের মতো ছিল ,

রাজনীতি আর ফুটবলে শেষ কথা বলিয়া কিছু নাই

ম্যানচেস্টার সিটির ফ্যানদের উচিত সকাল বিকাল পেপ গার্দিওলা নামক লোকটার পা ধুয়া পানি উঠতে বসতে খাওয়া। এই লোকটা না থাকলে বাকী দুনিয়ার লোকজন (পড়ুন গার্দিওলা হেইটার ও মরিনহো লাভার) মনে হয় না কিয়ামতের আগেও 'স্বীকার' করত সিটিতে যে আদৌ কোন 'লিজেন্ড' থাকতে পারে। দ্যাট অকওয়ার্ড মোমেন্ট হোয়েন পিপল স্টার্ট হোয়াইনিং লাইক

মাল একখান!

মরিনহো হইলো ট্রান্সপোর্টের মতো।যখন আপনি রিকশায় থাকবেন, তখন মনে হবে প্লাস্টিক (প্রাইভেট কার) খারাপ।যখন আপনি কারে থাকবেন, তখন মনে হবে রিকশাই যাবতীয় জ্যামের মূল কারণ। আসলে মরিনহোর ব্যাপারটা হচ্ছে পার্সপেক্টিভ। সে যখন আপনার বিপক্ষে থাকবে, তখন তারে আপনার অমানুষ মনে হবে। আবার যখন সে আপনার বিরুদ্ধে থাকবে না, তখন তার জোকস

ইউ মে হেইট দেম, বাট কান্ট আন্ডারএস্টিমেইট দেয়ার স্পিরিট!

১৯৫৪ সালে হাঙ্গেরির লিজেন্ড পুসকাস ইনজুরি নিয়ে নেমেও দলকে জিতাতে পারেননি বিশ্বকাপ। প্রতিপক্ষ জার্মানি। ১৯৭৪ সালে ডাচ লিজেন্ড ইয়োহান ক্রুইফ প্রথমে গোল করেও দলকে জিতাতে পারেননি বিশ্বকাপ। প্রতিপক্ষ জার্মানি। ১৯৯০ সালে দশজনের আর্জেন্টিনা আনতে পারেনি ম্যারাডনার দ্বিতীয় বিশ্বকাপ। প্রতিপক্ষ জার্মানি। ২০১৪ সালে টানা চারবারের বর্ষসেরা লিওনেল মেসি দলকে এনে দিতে পারেননি বিশ্বকাপ। এবারেও প্রতিপক্ষ

ন্যাশনালিসম

কোন দূর দেশ বা দূর দেশের ক্লাব ট্রফি জিতলে আমরা যেভাবে আনন্দে আত্মহারা হয়ে যাই, নিজের দেশের ট্রফি অর্জনে যে কি খুশি হব সেটা ভেবে খুব ভাল লাগে। আল্লাহ যেন কিছু দেখে যাওয়ার মত তৌফিক দান করেন। অন্য দেশের ক্লাব সাপোর্ট করি, তবে অনেকের মত আনন্দে আত্মহারা হতে পারি না। দেশ