পূর্বপুরুষের রক্তের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা না করি!

::: ধীমান গোস্বামী ::: '৯৯ এর বিশ্বকাপে বাংলাদেশ পাকিস্তানকে হারানোর পরদিন সকালে রঙ খেলার পাশাপাশি পেপারে দেখেছিলাম কয়েকজন বাংপাকি আবেগে আত্মহত্যাও করেছে। ওয়াকার, আকরাম, শোয়েবের আমলে প্রায় কাউকেই পাকিস্তান বাদে অন্য কোন দলকে সমর্থন করতে দেখা যায়নি। এইতো সেদিন ফেসবুক এলো আমরা সুশীল হলাম। সেসময়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটেরও উন্নতি হল। আমরা ভোল পাল্টে

বাংলাদেশ-ভারত মহারণ : দেখে নিন টসের ফল ও মূল একাদশ

আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আজকে দক্ষিণ এশিয়ার দুই পরাশক্তি ভারত ও বাংলাদেশ ও মুখোমুখি হচ্ছে ইংল্যান্ডের এজবাস্টনে। এই ম্যাচজয়ী দল সামনের রবিবার লড়বে পাকিস্তানের সাথে ফাইনালে। এই ম্যাচের মাধ্যমেই ৩০০ তম ওয়ানডে খেলতে নামছেন ভারতের অলরাউন্ডার যুবরাজ সিং। টস জিতে বল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। একনজরে দেখে নেওয়া যাক দুই

মানুষ বাঁচে আশায়

পিউর ক্রিকেট ডিসকাশন করতে গেলে বলতে হবে, আমাদের কোনভাবে আগে ব্যাট করতে হলে কতোগুলো রান আসলে ভারতের জন্যে সেইফ সেটা আমাদের জানা নেই। ৩১০/৩২০ আমাদের উঁচু সীমা। আর ৩১০/৩২০ এই যুগে খুব লাইট চেইজ। স্পেশ্যালি এমন একটা দলের জন্যে যাদের ব্যাটিং লাইনে ক্লাস আর এগ্রেশনের খুব ভালো মিক্স আছে। বল

ভারতকে গুঁড়িয়ে দিতে পারবেন ত রুবেল?

ওয়ানডে অভিষেক ২০০৯ সালে জানুয়ারিতে, শ্রীলংকানদের কাঁপিয়ে ৩৩ রানে নেন ৪ উইকেট! মিরপুরে ত্রিদেশীয় সিরিজের শ্রীলংকাকে হারাতে যা রাখে বিরাট ভূমিকা! পরের ম্যাচেই মুরালির হাতে বেদম পিটুনি খেয়ে ম্যাচ হারায় বোলার বুঝে যায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এতো ছেলেখেলা নয়! অভিষেকে নায়ক, পরের ম্যাচে খলনায়ক। উঠে এসেছে গ্রামীণফোন পেসার হান্টের মাধ্যমে! অনুসরণ করেন

আর দেখতে চাই না কেলেঙ্কারি

নিজ দেশের যখন খেলা চলে তখন আপনি কাকে সমর্থন করবেন? নিজের দেশ নাকি তার বিপক্ষ দলকে? প্রশ্নটা করা অবান্তর বেশিরভাগ মানুষের কাছেই, কেননা আমি জানি নিজ দেশের কথাই বলবেন সবাই। সত্যি বলতে এটার জন্য কোন যুক্তিতর্কের মনে হয় প্রয়োজন পরেনা। ঠিক একইভাবে আমাদের বেনিফিটের কথা চিন্তা করে গতকাল সকল বাংলাদেশীরা চেয়েছিল ইংল্যান্ডের জয়

#যদিকিছুমনেনাকরেন

এখন যেহেতু আমরা অফিশিয়ালি সেমিতে, তাই কিছু "কতা কইতাম চাই!" আমরা র‍্যাংকিংয়ের ছয় নম্বর দল হিসেবে যথেষ্ট যোগ্যতা দেখিয়েই সেমিতে গিয়েছি। হয়তো ভারত বাদ পড়ে যাবে সেমিতে যাবার আগেই। আর আমাদেরকে নিয়ে কুকথা বলা অনেক দল অলরেডি বাদ পড়ে গিয়েওছে। এই আনন্দের সময়ে সব কিছু মিলিয়ে মাত্র তিনটি কথা বলতে চাইছিলামঃ ১।

আরেকটা সাকিব আর আসবেনা

বিভিন্ন পরিসংখ্যান, রেকর্ড দেখিয়ে আর নতুন করে প্রমাণ করবার দরকার নাই যে সাকিব দেশসেরা! ও সেটা অনেক আগে থেকেই হয়ে বসে আছে! পাশাপাশি সময়ের সেরা অলরাউন্ডারও বটে। আমি বড় কিছু দেখতে চাই, ওয়ানডে ক্রিকেটে কেউ অলরাউন্ডার শব্দ উচ্চারণ করলেই যেন লোকজনের মনে প্রথমে সাকিবের নাম আসে! একদম ওয়ানডে সর্বকালের সর্বসেরা অলরাউন্ডারের

প্রসঙ্গ : ৩ নং ব্যাটসম্যান

ঐতিহাসিক জয়ের আতিশয্যে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বর্তমানে প্রকটতম সমস্যাটির দিকে ফোকাস করতে চাই। চলতি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাকি ৭ দলের ৩ নং ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথ, জো রুট, কেন উইলিয়ামসন, ফাফ ডু প্লেসি, ভিরাট কোহলি, কুশল মেন্ডিস ও বাবর আজম। কী মিল রয়েছে এই ৭ জনের মধ্যে? মোটা দাগে পরিষ্কার যে এরা স্ব স্ব

কার্ডিফে সাকিব-রিয়াদের ইতিহাস রচনা

২২৪ রানের জুটি গড়ে দলকে অবশ্যম্ভাবী হারের মুখ থেকে টেনে নিয়ে এসে জয়ের বন্দরে ভেড়ানোর দুই অগ্রপথিক সাকিব আল হাসান আর মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ গতকাল রেকর্ডের অনেক পাতায় নিজেদের নামটা স্বর্ণাক্ষরে রচনা করেছেন। আজ থেকে পাঁচ বছর আগেও কি কখনো ভাবতে পারতেন যে এভাবে বাংলাদেশ রান তাড়া করে কখনো জিততে পারবে

কার্ডিফে আবারো লাল সবুজের রুপকথা

“ তুমি আমার বায়ান্ন তাস, শেষ দানেও আছি, তোমার নামে, ধরেছি আমার, সর্বস্ব বাজি” ৯০ দশকের এই ক্তুমুল জনপ্রিয় ব্যান্ডসঙ্গীতটি কালকে প্রথম মনে হল, যখন ৪২ কি ৪৩ তম ওভারে সবার চোখ ছানাবড়া করে দিয়ে বোলিঙে ম্যাশ নিয়ে এলেন সৈকত কে। আমিও ভেবেছিলাম হয়তো বল পাবে তাসকিন। কিন্তু বাজি ধরলেন অধিনায়ক, চমকে

আপনি কি একটু ফিরবেন, সাকিব?

ম্যাশ ইনজুরিতে তখন খেলতে পারতো না খেললেও খুব কম, মুশি তখন ২১ গড়ের এক সাধারণ ব্যাটসম্যান, রিয়াদ তখন বোলার নিরব ঘাতক হয়ে উঠতে পারে নাই, তামিম মোটামুটি কিছু একটা করতো, আশরাফুল প্রায় ঝরে গিয়েছিল। আমরা তখন খেলতাম প্রায় দুর্বল এক একাদশ নিয়ে। রুবেল মাত্র আসছে, স্পিনার রাজ্জাক ভালোই করতো, শুভ ছিলেন

সেমিতে উঠতে কি কি করা লাগবে বাংলাদেশের?

বেশ অনেকদিন পরে আজ অনেক হাইপড একটা ম্যাচের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ। আর সেমিফাইনালে যাবার আগে এই ম্যাচকে ঘিরে রয়েছে অনেক রকমের সমীকরণ। সেই সমীকরণের রকমফের নিয়ে একটু কথা বলি এই ম্যাচকে ঘিরে। প্রথমত জানিয়ে দেই এই গ্রুপের অবস্থা। বাংলাদেশ, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ড- চারটি দলেরই দুটো করে ম্যাচ হয়েছে। যাতে করে ইংল্যান্ডের