জার্মান বুন্দেসলিগার যত অধিনায়ক এবার

আমরা বুন্দেসলিগার অনেক দল ও তাদের অধিনায়কদের সাথে পরিচিত হলেও আমরা নামের বাইরে তেমন কিছু জানি না, তাই আজকে আমার এই পোস্ট এবং আমি আপনাদের বুন্দেসলিগার অধিনায়কদের সাথে পরিচিত করিয়ে দিবো , আশাকরি সবাই পড়বেন , ধন্যবাদ ।

১. অগসবুর্গ – দলের অধিনায়ক ৩৪ বছর বয়সী অধিনায়ক ড্যানিয়েল বাইয়ার। তার প্রধান পজিশন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ড , বাইয়ার অগসবুর্গে যোগদান করেন ২০১০ সালে এবং এই পর্যন্ত ম্যাচ খেলেছেন ২৯১টি এবং তার গোল রয়েছে ৮টি

২. এফসি বায়ার্ন মিউনিখ – বায়ার্ন অধিনায়ক নিশ্চয়ই আমাদের সবার পরিচিত বিশ্বের সেরা গোলকিপার ম্যানুয়েল নয়ার । নয়ার এই পর্যন্ত বায়ার্ন এবং সালকের হয়ে ম্যাচ খেলেছেন মোট ৩৪৮ টি এবং তার মধ্যে ক্লিন শিট রাখতে সক্ষম হয়েছেন ১৭০ টি

৩. বরুশিয়া ডর্টমুন্ড – ডর্টমুন্ডের সেরা তারকা মার্কো রয়েস রয়েছেন অধিনায়কের দায়িত্বে। মার্কো রয়েস ডর্টমুন্ড একাডেমি তে যোগদান করেন ১৯৯৫ তে এবং একাডেমিতে খেলেন ২০০৫ পর্যন্ত , তার পর অন্য ক্লাব বরুশিয়া মনশেনগ্ল্যাডবাখে কিছুদিন খেলে থাকলেও আবার ২০১২ তে ফিরে আসেন তার আপন ক্লাব ডর্টমুন্ডে । ডর্টমুন্ডের হয়ে রয়েস ম্যাচ খেলেছেন ১৩৮টি এবং গোল করেছেন ৬৪ টি কিছুদিন আগেই রয়েস তার ১০০তম বুন্দেসলিগা গোল করেন র‍্যাসেনবলস্পোর্ট লাইপজিগের বিপক্ষে ।

৪. বেয়ার লেভারকুসেন – লার্স বেন্ডার লেভারকুসেন ডিফেন্সের এক অন্যতম ভরসার নাম। বেন্ডার লেভারকুসেনে যোগ দেন ২০০৯ সালে, তিনি লেভারকুসেনের হয়ে ২০৮টি ম্যাচ খেলেছেন এবং ১৮ টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

৫. বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ – লার্স স্টিনডেল হলেন এই দলের অধিনায়ক। তিনি মনশেনগ্লাডবাখে যোগ দেন ২০১৫ সালে এবং তার পরের বছরই ক্লাবের অধিনায়কের দায়িত্ব পান লারস। তিনি গ্লাডবাখের হয়ে ৯১ ম্যাচ খেলে গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ২৪ টি

৬.  আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট – ফ্রাঙ্কফুর্ট ডিফেন্সের অন্যতম ভরসা ডেভিড আব্রাহাম দলের অধিনায়ক। তিনি ২০১৫ সালে ফ্রাঙ্কফু্র্টে যোগ দেন । আব্রাহাম ফ্রাঙ্কফুর্টের হয়ে টোটাল ম্যাচ খেলেছেন ৮৯ টি এবং একটি মাত্র গোল করতে সক্ষম হয়েছেন

৭. ফ্রাইবুর্গ – মাইক ফ্রান্টয একজন জার্মান খেলোয়াড় তার প্রধান পজিশন এট্যাকিং মিডফিল্ড তিনি ২০১৪ সালে ফ্রাইবুর্গে যোগদেন এবং ১০১ টি ম্যাচ খেলে ১০ টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

৮. ফরচুনা ডুসেলডর্ফ – ২০১৮/১৯ সিজনে ২য় বুন্দেসলিগা থেকে ওঠা এই দলের অধিনায়ক ওলিভার ফিংক। তিনি ফরচুনায় যোগ দেন ২০০৯ সালে। তিনি ফরচুনার হয়ে ২২৫ টি ম্যাচ খেলে ১৮ টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

৯. হ্যানোভার ৯৬ – বুন্দেসলিগার সব থেকে তরুণ অধিনায়ক খেলেন এই দলের হয়েই। নাম তার ভাল্ডমার এন্টন। তিনি ২০১৮/১৯ সিজনে মাত্র ২২ বছর বয়সে হ্যানোভারকে নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্ব পান । তিনি হ্যানোভারের ডিফেন্সের অন্যতম ভরসা! তিনি হ্যানোভার একাডেমী তে ২০০৫ সালে এবং ২০১৫ সাল পর্যন্ত হ্যানোভারের একাডেমির দলগুলোতে খেলেন । এবং মাত্র ১৯ বছর বয়সে ২০১৫ সালে হ্যানোভারের হয়ে অভিষিক্ত হন। তিনি হ্যানোভারের হয়ে ৬৬টি ম্যাচ খেলে ৪ টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

১০. হার্থা বার্লিন – জার্মানির রাজধানীর এই ক্লাবের অধিনায়ক ভেদাদ ইবিসেভিচ তিনি একজন বসনিয়ান খেলোয়াড় । তিনি ২০১৫ সালে স্টুটগার্ট থেকে হার্থা তে যোগ দেন তিনি ৮৭ ম্যাচ খেলে ২৯ টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

১১. মাইঞ্জ – নিকো বুনগার্ট হলেন এই দলের অধিনায়ক। তিনি মাইঞ্জের হয়ে তার ১১তম মৌসুম খেলছেন । তিনি মাইঞ্জে যোগ দেন ২০০৮ সালে এবং ২০১৬ সালে মাইঞ্জের অধিনায়ক নির্বাচিত হন । তিনি মাইঞ্জের হয়ে ১৯২ টি ম্যাচ খেলেছেন এবং ৯ টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

১২. র‍্যাসেনবলস্পোর্ত লাইপজিগ – বুন্দেসলিগার তরুণ অধিনায়কদের একজন লাইপজিগের অধিনায়ক উইলি ওরবান , তার বয়স মাত্র ২৪ এবং তিনি লাইপজিগের হয়ে তার ৪র্থ সিজন খেলছেন । ইতিমধ্যে তিনি লাইপজিগের হয়ে ৮৬ টি ম্যাচ খেলেছেন এবং ৭টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

১৩. হফেনহেইম – হফেনহেইমের অধিনায়কের দায়িত্বে আছেন কেভিন ভগট । হফেনহাইমের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই খেলোয়াড় হফেনহাইমের ডিফেন্সে খেলে থাকেন , তিনি হফেনহেইমে যোগ দেন ২০১৬ সালে এবং ইতিমধ্যে তিনি ৬৬টি ম্যাচ খেলে ফেলছেন কিন্তু তার গোলের খাতা এখনো খুলতে পারেন নি । আশাকরি তিনি সামনের ম্যাচগুলোতে গোল করে তার নামের পাশে গোলের সংখ্যাটি যোগ করবেন।

১৪. শালকে ০৪ – বুন্দেসলিগার অন্যতম সেরা ক্লাবগুলোর একটি শালকে ০৪ এবং তাদের অধিনায়ক ও বুন্দেসলিগার অন্যতম সেরা গোলরক্ষকদের একজন। এই গোলকিপারের নাম রালফ ফেহেরমান তিনি শালকের একাডেমির সেরা একজন খেলোয়াড়। তিনি শালকে একাডেমিতে যোগ দেন ২০০৩ সালে এবং একাডেমিতে খেলেন ২০০৭ পর্যন্ত তার পর তিনি শালকের বিভিন্ন ডিভিশনের দলে খেলেন ২০০৯ পর্যন্ত । তারপর অন্য ক্লাবে খেলে থাকলেও ২০১১ তে আবার ফিরে আসেন তার ছোটবেলার ক্লাবে এবং শালকের হয়ে মোট ১৫৮টি ম্যাচ খেলেছেন। ২০১৮/১৯ সিজনে আবার অধিনায়কের দায়িত্ব পেয়েছেন ।

১৫. স্টুটগার্ট – ক্রিস্টিয়ান গেন্টার স্টুটগার্টের একাডেমির এই মিডফিল্ডার স্টুটগার্টের হয়ে অভিষিক্ত হন ২০১০ সালে এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পান ২০১৩ সালে, বর্তমানে ১০ম মৌসুম খেলছেন এই মিডফিল্ডার। তিনি স্টুটগার্টের হয়ে ২৮৩ ম্যাচ খেলে ৩৮ টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

১৬. ভেরডার ব্রেমেন – মাক্স ক্রুসের ভেরদার ব্রেমেনের একাডেমির এই স্ট্রাইকার ব্রেমেন একাডেমিতে যোগ দেন ২০০৬ সালে এবং ব্রেমেনের বিভিন্ন ডিভিশনের দলে খেলেন ২০০৯ পর্যন্ত তারপর অন্য ক্লাবে খেলেন ২০১৬ পর্যন্ত । ২০১৬ তে আবার ফিরে আসেন তার ছোটবেলার ক্লাব ব্রেমেনে । ব্রেমেনের হয়ে তিনি ইতিমধ্যে ৫৩ ম্যাচ খেলে ২১ টি গোল করেন ।

১৭ ভলসফবুর্গ – ভলফসবুর্গের অধিনায়ক ফরাসি মিডফিল্ডার ২৭ বছর বয়সি খেলোয়াড় জসোয়া গুইলাভোগুই , তিনি ভলফসবুর্গের মিডফিল্ড কন্ট্রোল করেন । ১০৫ ম্যাচে খেলে তিনি ৬টি গোল করতে সক্ষম হন ।

১৮. নুরেনবেয়ার্গ – হান্নো বেহ্রেন্স তিনি গত বছর নুরেনবেয়ার্গের বুন্দেসলিগার উঠে আসায় একটি বড় রোল খেলেছেন এবং গত সিজন নুরেনবেয়ার্গের প্রতিটি মিনিট খেলেছেন এবং ১৪টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন । তিনি নুরেনবেয়ার্গে যোগদেন ২০১৫ সালে এবং ৯৮ ম্যাচ খেলে ২১ টি গোল করতে সক্ষম হয়েছেন ।

::: আরাফাত আলিফ :::

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

16 + twenty =