আসল উত্তর মিলবে আর্জেন্টিনা ম্যাচে

ল্যাটিন বাছাইপর্বের টেবিলটার দিকে তাকালে আর ফুটবলের অল্পবিস্তর খবর রাখলে আপনি বুঝে যাবেন এই সিচুয়েশনে সর্বমোট ৩টা দলের সাথে আপনি জয় ছাড়া অন্য কিছু ভাবতেই পারেন না । দল তিনটা হলো পেরু, বলিভিয়া এবং ভেনিজুয়েলা । এই তিনটার মধ্যে একটার সাথে আমাদের খেলা ছিলো আজ । তাও আবার হোমগ্রাউন্ডে।
জয় প্রত্যাশিত ছিলো ।
জয় এসেছে ৩-১ গোলে ।
আগের ম্যাচের মতোই দলের হয়ে সেরা পারফর্মার উইলিয়ান । আর মার্সেলোর জায়গায় ফেলিপে লুইস নেমে বেশ ভালো খেলা দিয়ে দিলো । রিকার্ড অলিভিয়েরার বয়সটা বেশি । তার মুভমেন্টে বয়সের ছাপ স্পষ্ট । একটা হেডারের গোল দেখে একদম মাতামাতি করার মত বোকামি করবেন না । ফ্রেড স্পেনের সাথে কনফেডের ফাইনালে জোড়া গোল করেছিলো । ফ্যাবিয়ানো এমনকি বিশ্বকাপে গিয়েও গোল পাচ্ছিলো ।

CRP3xzCUcAAWUkX

কিন্তু এক্সপেকটেশন যদি রোনালদোর লেভেলে নিয়ে যান , তাহলেই বোকা বনে যাবেন । তাহলেই যেই আপনি আজ তাকে নিয়ে কথা বলছেন , তার পক্ষে কথা বলছেন , সেই আপনিই সবচেয়ে বেশি গালাগাল দেবেন । ফ্রেডকে নিয়ে উচ্ছ্বাস যাদের বেশি ছিলো , তারাই ট্রলটা বেশি করেছে । তারদেল্লিকে নিয়ে মেতেছিলেন আর্জেন্টিনার সাথে দুই গোল দেখে । তাকেই আজ চাইনিজ মাল বলে গালি দেন ।
কেন থিয়াগো সিলভাকে দরকার ?
যে গোলটা খেলাম সেটার ধরন দেখলেই বুঝবেন আসলে কেন ঐ মানুষটাকে দরকার। কর্নারের গোলটা হলো সেটা পরের কথা । কিন্তু আগের কথা হলো স্কোরারকে কোন রকম মার্কিং কেন সহ্য করতে হলো না ? ডিফেন্ডার থিয়াগো সিলভার চাইতেও লিডার থিয়াগো সিলভাকে বেশি দরকার । যিনি দানি আলভেজকে ঠিক জায়গায় না থাকলে তার গেইম সেন্স দিয়ে ঠিক জায়গায় গাইড করবেন । লুইজের কাছে থেকে সবচেয়ে সেরা খেলাটা বের করে আনতে পারবেন । কর্ণারের সময় মার্কিং জোনগুলো একদম মাঠেই ঠিকঠাক করে নেবেন ।
চিন্তার কথাঃ
১) এলিয়াসকে বাদ দেওয়ার নাম নেই ।
২) অস্কারের ফর্ম কোথায় জানি না হারিয়ে গেছে । নেইমারের বাইরে কুতিনিয়ো আর অস্কার – এরা সবচেয়ে বড় ফিয়ার ফ্যাক্টর ছিলো ।

2076402_heroa

আর ম্যাচের শেষটায় কাকাকে ব্রাজিলের হয়ে মাঠে ফিরতে দেখা ভালো ছিলো । তবে বড় একটা দলের সাথে না হলেও প্যারাগুয়ে বা ইকুয়েডরের লেভেলের কারোর সাথে ঢেকুর তোলা একটা পারফরম্যান্সের আগে “ওকে” উচ্চারণ করলে আপনাকে আমি অতি আশাবাদী বলবো ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

twenty − 10 =