দুঙ্গার উরুগুয়ে পরীক্ষা

এই পর্যন্ত কনমেবল বাছাইপর্বে আমরা খেলেছি চারটা ম্যাচ,দুইটা ম্যাচ জিতেছি,একটা হেরেছি আর একটা ড্র করেছি । এমন কঠিন বাছাইপর্বে চার ম্যাচে সাত হয়তো অতটা খারাপ না কিন্তু সত্যি বলতে এটা মোটেও আহামরি কিছু না কারণ এই সাত পয়েন্টের মধ্যে ছয় পয়েন্টই আমরা পেয়েছি এই অঞ্চলের সবচেয়ে দূর্বল দুইটা দলের সাথে তাও হোম ম্যাচে colonthree emoticon তবে পজিটিভ কিছুও আছে,আমরা পয়েন্ট হারিয়েছি সবচেয়ে কঠিন দুই দলের সাথে তাও অ্যাওয়ে ম্যাচে wink emoticon সো সবমিলিয়ে আমাদের অবস্থা এখন পুরোপুরি মধ্যম পর্যায়ে তবে এই অবস্থা থেকে উত্তম পর্যায়ে যাওয়ার মোক্ষম সুযোগ হচ্ছে আগামী দুই ম্যাচ smile emoticon বিশেষ করে উরুগুয়ের বিপক্ষে হোম ম্যাচে জয় পাওয়া তো ফরজ unsure emoticon কিন্তু সুয়ারেজের ফিরে আসা এই কাজ আরো কঠিন করবে তবে আমার দৃঢ় বিশ্বাস আমরা যদি নিজেদের বেস্টটা দিতে পারি তাহলে প্রতিপক্ষের কি আছে কি নেই সেটা তেমন ফ্যাক্ট না grin emoticon আর একারণেই এই পোস্টে অ্যানালাইসিস করলাম কেমন হতে পারে আমাদের স্কোয়াড,ফর্মেশনই বা কি হবে আর প্লেয়িং স্টাইলটাও কি হবে smile emoticon
প্রথমেই আসি গোলকিপার পজিশনে,দিয়েগো আলভেস ফেরত আসায় অনেকেই দেখলাম চাইছেন অ্যালিসনের বদলে তাকে স্টার্টার হিসেবে দেখতে আর এব্যাপারে আমি মোটেও একমত না কারণ ব্রাজিল জার্সিতে অ্যালিসনের পারফর্মেন্স যথেষ্ট ভালো তাই এখন হুট করে তাকে সরানো খুব একটা ভালো কিছু হতে পারে না unsure emoticon
এবার ডিফেন্স লাইনআপ নিয়ে কথা বলি,রাইটব্যাক পজিশনে এতদিনে দানিলোর জায়গা পাকা হয়ে যাওয়া উচিত ছিল কিন্তু আফসোস মাদ্রিদে গিয়ে দানিলো যেনো নিজেকে হারিয়েই খুঁজছে frown emoticon তাই রাইটব্যাক পজিশনে ড্যানি আলভেসই ভরসা smile emoticon সিলভা যেহেতু দলে নেই তাই সিবি পজিশনে মিরাণ্ডা আর লুইজই ভরসা যদিও আমি নিজে এই দুইজনের উপর তেমন ভরসা রাখার জন্য কোনো যুক্তি খুঁজে পাচ্ছি না unsure emoticon আর লেফটব্যাক পজিশনে ফিলিপ লুইস থাকবে আর তার ফর্ম বেশ ভালোই যাচ্ছে smile emoticon
এবার আসি দুই ডিএম নিয়ে,সত্যি কথা বলতে এই ডিএম পজিশনে প্লেয়ার সিলেকশনে দুঙ্গা আমাকে হতবাক করে দিয়েছে confused emoticon আমরা প্রতি ম্যাচেই দুইটা ডিএম নিয়ে খেলবো এটা জানার পরেও উনি কোন আক্কেলে স্কোয়াডে অনলি দুইটা পিউর ডিএম রাখলেন?? আল্লাহ না করুক কিন্তু যদি কোনো ইনজুরি বা সাসপেনশন হয়ে যায় তখন এক্সট্রা ডিএম পাবো কই??? অথচ কোয়ালিটি ডিএম আমাদের বেশ কয়েকজন আছে আর দুঙ্গা ইচ্ছা করলেই ক্যাসেমিরো বা অ্যালানকে ডাকতে পারতো unsure emoticon যাই হউক,যা হওয়ার হয়েছে, কাল ডিএম পজিশনে গুস্তাভো আর ফার্নান্দিনহো স্টার্ট করছে এটা প্রায় শিওর আর এই দুইজনের উপর দায়িত্ব অনেক কারণ এইসব বিগ ম্যাচে ডিএমরা অনেককিছু ঠিক করে দেয়,এই দুইজন ভালো খেললে মিডফিল্ড ইনশাআল্লাহ আমাদের দখলে থাকবে smile emoticon

12596326_1691150904432443_1593734246_n

এবার প্লেমেকার পজিশন, অনেক ওয়েবসাইট বলছে এই পজিশনে রেনেটোকে রাখা হবে কারণ দুঙ্গা নাকি উইনিং কম্বিনেশন ভাঙ্গবে না আর আগের ম্যাচে রেনেটো গোল করেছিলো unsure emoticon কিন্তু প্রবলেম হচ্ছে রেনেটো এখন চায়না মাল তারউপর রেনেটোর নাকি হালকা ইনজুরি প্রবলেম আছে unsure emoticon তাই আমি চাই এই পজিশনে অস্কার স্টার্ট করুক,নেইস্কার জুটিকে জাতীয় দলে দেখিনা প্রায় একবছর হতে চললো frown emoticon তাছাড়া যেহেতু আমরা ফলস নাইন সিস্টেমে খেলবো তাই এই পজিশনে ভালো একজন গোলস্কোরার থাকাকা দরকার smile emoticon
এবার রাইট উইং পজিশন, হেটাররা যতই চিল্লাক এই পজিশনে উইলিয়ান মাস্ট স্টার্টার, সত্যি কথা বলতে গেলে গতবছর জাতীয় দলে সেরা খেলোয়াড় ছিল উইলিয়ান তাও কিছু পাবলিক উইলিকে দেখতে পারেনা squint emoticon সে যাই হউক এই ম্যাচে উইলির উপরেও দায়িত্ব থাকবে অনেক
এবার লেফট উইং পজিশন, এই পজিশনে দ্য বিস্ট ডগলাস কস্তাই স্টার্ট করতে যাচ্ছে তা নিশ্চিত তবে অনেকেই দেখলাম চাইছেন ডগলাস যেনো স্টার্ট না করে আর নেইমার যাতে লেফটউইং এ স্টার্ট করে confused emoticon তাদের খোঁড়া যুক্তি নেইমার নাকি ফলস নাইনে নিজের সেরাটা দিতে পারবে না unsure emoticon শুধু নেইমার এর সেরাটা দেওয়ার কথা ভাবলেই হবে,দলের সেরাটা দেওয়ার কথা কি ভাবা লাগবে না??? লাস্ট দুই ম্যাচ যারা দেখেছেন তারা ভালোই জানেন যে ওই দুইম্যাচে ডগলাস এর ইফেক্ট কতটা ক্রুশিয়াল ছিল ইনফ্যাক্ট পেরুর বিপক্ষে এক গোল আর এক অ্যাসিস্ট নিয়ে ম্যাচসেরা ছিল ডগলাস আর আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ডগলাস শুরু থেকে খেললে ফলাফল অন্যরকম হতে পারতো unsure emoticon তাই লেফটউইং এ ডগলাস এর খেলা নিয়ে ডাউট থাকা উচিত না আর দলের বাকিদের একটু অ্যালার্ট থাকা উচিত দ্য বিস্টের অস্থির সব ক্রসগুলোর একটু সদ্ব্যবহার করার জন্য wink emoticon

12671878_456248344499806_2096738118489424620_o

এবার ফলস নাইন পজিশনে আসি,এই পজিশনে আমাদের সেরা অস্ত্র নেইমার স্টার্ট করবে কিন্তু অনেকেই ডাউট ফিল করছেন এই পজিশনে কি নেইমার নিজের বেস্টটা দিতে পারবে?? তাদের জন্য বলছি জাপানের বিপক্ষে যেই ম্যাচে নেইমি চার গোল করেছিলো সেই ম্যাচেও কিন্তু নেইমি এই পজিশনে খেলেছিলো আর দলের এমন কঠিন পজিশনে নিজের পজিশনের ব্যাপারে এতটুকু স্যাক্রিফাইস আমরা আশা করতেই পারি smile emoticon তবে অতি দুঃখের সাথে বলতে হচ্ছে গতবছর ব্রাজিলের হয়ে নেইমির পারফর্মেন্স একদম জঘন্য ছিল,অথচ গতবছর বার্সার হয়ে নেইমি নিজের সেরা সময় পার করেছেন unsure emoticon বার্সার হয়ে নেইমি কি করলো তাতে আমাদের কিচ্ছু যায় আসে না কিন্তু জাতীয় দলের হয়ে সেই আগের নেইমিকে আমরা সবাই দেখতে চাই smile emoticon আশা করছি বছরের প্রথম ম্যাচেই নেইমি আমার তার সেই পুরনো ঝলক দেখাবে smile emoticon আর ফলস নাইনে পজিশন ইন্টারচেঞ্জ খুব গুরুত্বপূর্ণ এটা করতে পারলে নেইমির তেমন প্রবলেম হওয়ার কথা না smile emoticon
সবশেষে একটাই কথা,যেই স্টাইলেই খেলি আর যেই প্লেয়ার নিয়েই খেলি উরুগুয়ের বিপক্ষে হোম ম্যাচে জয়ভিন্ন অন্যকিছু ভাবা যাবেনা,হোম ম্যাচের ২৭ পয়েন্ট খুবই ক্রুশিয়াল,এই ২৭ পয়েন্টের মধ্যে এক পয়েন্ট লুজ করা মানেই দশধাপ পিছিয়ে পড়া unsure emoticon তাই সাবধানে থাকতেই হবে
গ্রান্দে ব্রাজিল

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

17 + 19 =