ব্রাজিল বনাম ইকুয়েডরঃ ম্যাচ প্রিভিউ

১৯১৬ সালে শুরু হয়েছিলো দক্ষিন আমেরিকা মহাদেশীয় ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপ টুর্নামেন্ট যা আজকে বর্তমানে কোপা আমেরিকায় রূপ নেয় এবং এটি ফুটবল বিশ্বের খুবই উত্তেজনামুলক টুর্নামেন্ট। কারন, এই আসরে পুরো মাঠে নিজেদের আভিজাত্যের প্রমান দেয় ব্রাসিল, আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ে, প্যারাগুয়ে, কলম্বিয়া, চিলির মত শক্তিশালী দলেরা যারা উপহার দিয়েছে ফুটবল বিশ্বকে অনেক লেজন্ডারী ফুটবল প্লেয়ারদের…! আজ পূর্ন হলো সেই কোপা আমেরিকার ১০০ বছর..
.
আপাতত অন্যদের কথা বাদ দিয়ে ব্রাসিলের প্রসঙ্গে আসি.. 🙂
.
ব্রাসিল। ফুটবল ইতিহাসের এক ঐতিহাসিক দল যারা ফুটবলকে দিয়ে শিল্পের ছোঁয়া, দিয়েছে ফুটবলকে সুন্দর খেলার অ্যাখ্যা, যারা মাঠে পা দিয়ে শিল্পের মত ছবি আঁকে ফুটবল নামক তুলি, আর মাঠকে ক্যানভাস বানিয়ে… ???
.
কোপা আমেরিকার বা ল্যাটিন আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ের ১০০ বছরের পুর্তি উপলক্ষ্যে এবারের কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্টির আসর বসেছে আমেরিকায়..! ??
.
আসন্ন এই কোপা আমেরিকাকে ঘিরে ব্রাসিলিয়ান কোচ কার্লোস দুঙ্গা গত মাসে ৪০ সদস্যের দল ঘোষনা এবং পরে ২৩ সদস্যের দল ঘোষনা করছিলেন। কিন্তু দলের বর্তমান অবস্থা খুবই নাজেহাল আর ইঞ্জুরীতে ভরপুর..???
.
সিলভার অনুপস্থিতি, নেইমারের ছাড়পত্র না দেওয়া, ডগলাস কস্তার ইঞ্জুরী, কাকার কাম ব্যাক এবং আবার ইঞ্জুরী, রাফিনহার ইঞ্জুরী, লুইজ গুস্তাবোর হঠাৎ নাম প্রত্যাখান করা, ফার্মিনোর দলে না থাকা এক অনাকাংখিত ব্রাসিলকে উপহার দিচ্ছেন এবারের ১০০ বছরের কোপা আমেরিকায় কোচ কার্লোস দুঙ্গা..??
.
অলিম্পিকে ছাড়পত্র দেওয়াতে কোপায় ছাড়পত্র দেয় নি নেইমারকে বার্সা। সিলভা দলে চান্স পায় নি দুঙ্গার জন্যই। গুস্তাবোর পারিবারিক সমস্যার কারনে নাম প্রত্যাখ্যান। ডগলাস কস্তার ইঞ্জুরীতে কাকা চান্স পাওয়ার পর কাকা আবার ইঞ্জুরীতে। অলিভেইরার ইঞ্জুরীতে জোনাসের ডাক। রাফিনহার বিকল্প লুকাস মৌরা। কাকার অবর্তমানে ৪ বছর পর গানসোর দলে ফিরে আসা। মিরান্ডার সাময়িক অসুস্থ হচ্ছে ব্রাসিলের বর্তমান অবস্থা, দশা, হাল বা রূপ যাই বলেন কি না.. ???
.
কোনবারই কোপা আমেরিকার মত টুর্নামেন্টে অন্তত একটি ম্যাচেও খেলেন নি ব্রাসিলিয়ান লেজেন্ড রিকার্ডো কাকা। ০৭ এ নাম প্রত্যাখান আর ১১ তে চান্স না পাওয়া, তাই শিরোপা টাও অধরাই থেকে গেলো এই লেজেন্ডের । এবার যতটুকুই একটু চান্স ছিলো তাও ইঞ্জুরী শেষ করে দিলো। অতএব, কাকা নামক এক লেজেন্ডের কোপা শিরোপা জয় ত দুরের কথা, কোপা একটি ম্যাচেও খেলতে পারলো না..! ল ব্যালন, বিশ্বকাপ, কনফেডা, ক্লাব পর্যায়ে সকল শিরোপাতে চুমু এঁকেছেন এই লেজেন্ড শুধুমাত্র নিজ মহাদেশের চ্যাম্পিয়নশীপ শিরোপা কোপা আমেরিকা ব্যাতীত..! এ এক লেজেন্ডের সারাজীবনের আক্ষেপ.. ??
.
১০০ বছরের কোপা আমেরিকায় ফুটবল বিশ্ব এক প্রতিবন্ধী ব্রাসিলকে পাচ্ছে তা বলাই বাহুল্য। ব্রাসিলের ইতিহাসে এটাও দেখতে হলো ব্রাসিলকে.. ??
.
আর ওইদিক দিয়ে পার্ফম ও এতটা সুবিধার না। প্লেয়ারদের ট্যালেন্ট থাকলেও দুঙ্গার দলে চান্স পাচ্ছে না সেলেসাও রা..! অলিভেইরা, অগাস্টো, এলিয়াসের মত কামলা প্লেয়ার রা মাঠ কাঁপায় আর মৌরা, পাতো, ফার্মিনো, অস্কার রা হাহাকার করে দলে একটিবার চান্স পাওয়ার জন্য।। সবই দুঙ্গার আশীর্বাদ..! ???
.
তবে আশার কথা এই যে গ্যাবিগোল, কৌটি, মৌরা, অস্কার, মার্কু, গানসোদের সুযোগ দেওয়ার জন্য, তবে মুল একাদশে কারা চান্স পায় তা ই দেখার বিষয়.. ??
.
গত ৩০ এ মে পানামার বিরুদ্ধে কোপা আমেরিকার পূর্ববর্তী একটি প্রীতি ম্যাচে সেলেসাওরা ছিলো খুবই ভালো। প্রতিপক্ষ হয়তো পানামা এই জন্যই ভালো ছিলো, কিন্তু খেলেছে ভালোই ব্রাসিল..! নেইমার, কস্তার অভাবেও ব্রাসিল জিতেছিলো ২-০ তে। বল পজিশন, এটাক, পাসিং সবই ছিলো খুব ভালো। আর সবচেয়ে ভালো ছিলো অভিষেক ম্যাচে গ্যাব্রিয়েলের গোল আর পুনরায় অভিষেক ম্যাচে জোনাসের গোল..! লুকাস লিমার অসাধারন পার্ফম, কৌটিরও খুবই সন্তোষজনক পার্ফম, এলিসনের গুড কিপিং, উইলিয়ানের গতি ব্রাসিলকে পানামার মত দুর্বল দলের সাথে জিতিয়ে দিলেও কোপা আমেরিকার মত একটি টুর্নামেন্টে সব দলই যে নিজেদের ১০০% দিয়ে খেলবে তা বলাই বাহুল্য দলটি যতই ভেনেজুয়েলা বা ইকুয়েডর বা পেরু বা হাইতি যা ই হোক.. ???
.
তাই কোপা আমেরিকাকে কেন্দ্র করে দুঙ্গা ব্রাসিলকে আরও গুছিয়ে নিবে, প্লেয়ার রা আরো স্বতস্ফুর্তি হবে তা ই আশা করি..???
.
আগামী পরশু ইকুয়েডর ব্রাসিলকে যে ছেড়ে কথা বলবে তা নয়। ইদানীং ব্রাসিলের সব দুর্বল দিক ছোট ছোট দলেরা ভালো মত জেনে গিয়েছে যার কারনে দুর্বল দলের সাথে জিততেও ব্রাসিল শেষ বাঁশি শোনার আগ পর্যন্ত ঘাম ঝড়াতে হয়..! অতএব ইকুয়েডরকে ছেড়ে কথা বলার দরকার আমি ব্রাসিলের দেখি না। প্রত্যেক টা দলকে শক্তিশালী ভেবেই মাঠে নামতে হবে, যার ফলে খেলায় নিজেদের ১০০% দেয়া যায়..✌✌✌

ইকুয়েডরের সাথে ম্যাচের জন্য ব্রাসিলের একাদশ সম্পুর্ন আমার মতেঃ-

——————-এলিসন————————-
——–আলভেজ–মার্কু-গিল-লুইস———–
——–ক্যাসমিরো-লিমা-অস্কার—————-
———-উইলি-জোনাস-কৌটি—————–

কিন্তু এই একাদশ যে পাচ্ছি না তা ২০০০০০০০০% শিউর..! লিমার জায়গায় অগাস্টো, অস্কারের জায়গায় এলিয়াস..! (সম্ভাবনা বেশী) ???
.
এই হলো আর কি ব্রাসিলের অবস্থা.. ???
.
এবার আসি ইকুয়েডরের সাথে ব্রাসিলের পরিসংখ্যানেঃ-

পরশু সকাল ৮টায় ব্রাসিলের মুখোমুখি হবে ইকুয়েডর..!
.
এর আগে ব্রাসিল আর ইকুয়েডর পরস্পরর ২৯ বার মুখোমুখি হয়েছে। তন্মধ্যে ব্রাসিল জিতেছে ২৪ টি ম্যাচ, ইকুয়েডর জিতেছে ২টি আর ড্র হয়েছে ৩ টি ম্যাচ..! ব্রাসিলের সর্বোচ্চ জয় ৯-১ এ (১৯৪৫) এবং ইকুয়েডরের সর্বোচ্চ জয় ১-০ (২০০১, ২০০৪)। ব্রাসিল গোল দিয়েছে ৮৯ টি, ইকুয়েডর দিয়েছে ২৩টি গোল।। ?????

পরিসংখ্যান যা ই হোক, প্রত্যেক টা দলকে গুরুত্ব দিয়ে খেলতে হবে ব্রাসিলকে। তা না হলে জিতার সম্ভাবনা ০। ??
.
সবার শেষে এটাই আশা রাখি যে, দুঙ্গার দল, আমাদের প্রানপ্রিয় ব্রাসিল নিজেদের সেরাটা দিয়ে, সুন্দর খেলে, বীরের বেশে জয়ী হয়ে, নেইমার, কস্তা, সিলভার অভাবকে বুঝতে না দিয়ে কোপা আমেরিকার ১০০ বছরের পুর্তির শিরোপা জয়ের মিশনে এগিয়ে যাবে তা ই কামনা করি.. ???

‪#‎গ্রান্দে_ব্রাসিল‬ ???
‪#‎ফোর্সা_সেলেসাও‬???
‪#‎AHM80‬

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

3 × two =