বেশী আবেগী না হই

‘একজন বিশুদ্ধ নেতা ম্যাশের জন্য বিশুদ্ধ ভালোবাসা’

ঐতিহাসিক শততম টেস্ট ম্যাচে জয়ের পরে অনেককেই বলতে দেখলাম ‘ড্রেসিংরুমে মাশরাফি আসছে বলেই বাংলাদেশ জিতছে’!

অথচ খেয়াল করে দেখলাম মাশরাফি এক জায়গায় বসেই ছিলো, তার সাথে কোন ব্যাটসম্যানের কথা হতেই দেখলাম নাহ! বাংলাদেশ প্রতিপক্ষ শ্রীলংকা থেকে ভালো খেলেই জিতছে, ম্যাশ আসার আগের চারদিনও ভালো খেলেছে। আসল কথা বোলার, ব্যাটসম্যান, ফিল্ডার সবাই একসাথে ভালো খেলছে বলেই আমরা জিতছি!

নিঃসন্দেহে ম্যাশ আমাদের ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা নেতা, ওর নেতৃত্বগুণ অসাধারণ! ওর সবচেয়ে বড় গুণ সম্ভবত সিনিয়র, জুনিয়র সবার কাছ থেকে নিজেদের সেরাটা বের করে আনতে পারার ক্ষমতা! নাসিরের মতো এক সাধারণ বোলাররে মাঠেই কার্যকরী বোলার বানিয়ে দেওয়া ম্যাশের পক্ষেই সম্ভব। ম্যাশ খুব সহজেই খেলোয়াড়দের সাথে মিশে খুব সহজেই জায়গামত ব্যবহার করতে পারে।

আবার অন্যদিকে ম্যাশ কিন্তু আমাদের ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা সব খেলোয়াড় পাইছে! পাঁচ সিনিয়র সাথে মুস্তা, সৌম্য, সাব্বিরদের মতো তরুণদের দলে পেয়েছে ম্যাশ! সাকিব কিংবা এর আগের অধিনায়কদের দলের খেলোয়াড়দের অবস্থা সবাই জানে! সাকিবের নেতৃত্বর সময়ে ম্যাশ অনেকসময় ছিলো ইনজুরিতে, মুশি তখন প্রায় তেইশ গড়ের ব্যাটসম্যান, রিয়াদ তখনো নিরব ঘাতক হয়ে উঠেনি! তখন তামিম আর সাকিবের দিকেই তাকিয়ে থাকতো হতো। তবে ম্যাশের নেতৃত্বগুণ ছোট করে দেখার কোন অবকাশ নেই।

আরেক শ্রেণী আছে, ম্যাশ সাকিবে দ্বন্দ্ব লাগিয়ে ওদের চিরশত্রু বানিয়ে দেয়! অথচ সাকিবের কাছে ম্যাশ ‘বড়ভাই’ আর ম্যাশের সবচেয়ে কাছের ‘ভাই’ সাকিব!

মাশরাফিকে দূর থেকেও ভালোবাসা যায়, ভালোবাসা দেখাতে হলে নিরাপত্তারক্ষীদের চোখ ফাঁকি দিয়ে খেলা চলাকালীন সময়ে ওরে জড়িয়ে ধরে পাগলামি করার প্রয়োজন নেই।

আবেগে ব্যাপারে কিছু না বলাই শ্রেয়! আমরা আবেগী জাতি আবেগে বলেই ফেলি ম্যাশ মাঠে দাঁড়িয়ে থাকলেই ম্যাচ জিতে যাই! আসলেই? ভেবে দেখবেন তো।

ম্যাশের পর আমাদের ওয়ানডে ক্রিকেট নেতৃত্ব কে দিবে জানিনা! বিসিবি হয়তো এটা নিয়েও অনেক জল ঘোলা করবে! তবে যেই আসুক একজন অসাধারণ নেতা চাই। আর ২৫’শে মার্চ হতে শ্রীলংকার বিপক্ষে আমাদের ওয়ানডে সিরিজ শুরু, আশাবাদী ওয়ানডে আমরা দুর্দান্ত পারফর্মই করবো। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের জন্য শুভকামনা আর ‘খেলোয়াড়কানা’ রোগীদের সুস্থতা কামনা করছি।

@রিফাত এমিল

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

seventeen + four =