একি তাহলে বদলে যাওয়া বাংলাদেশ ?

দুটো ম্যাচ জয় … পাকিস্তানের সাথে । সেই অপনেন্ট যাদের আমরা দীর্ঘ ষোল বছর কোন ফরম্যাটেই হারাতে পারি নাই । অবশ্যই তৃপ্তির !অবশ্যই গর্বের ! আবার সাথে সাথে সাথে প্রত্যাশার মাত্রাটাকে আরো একটু উঁচুতে নিয়ে যাওয়া জয় !

তবে আমার স্বল্প ক্রিকেট জ্ঞানে যা বুঝি , তা হলো জয়টা আজকের আনন্দ আর কালকের আনন্দ । তবে জয়গুলো যেভাবে এসেছে , তা বাংলাদেশকে স্বপ্ন দেখাবে অনেকদিন । কিছু জায়গায় দেখার মত কিছু ইতিবাচক পরিবর্ত্ন এসেছে টীম বাংলাদেশের খেলায় । সেগুলো নিয়ে আলাদা করে কথা না বললেই নয় ।

210931.3

তামিমের সাথে ইমরুল বা আনামুল – যেই নামুক না কেন , গত কয়েক মাসে দেখেছি এরা প্রথম পাওয়ারপ্লেতে প্রচুর ডটবল বের করে । যা মাঝে মাঝে আমাদের প্রথম পাওয়ারপ্লেতে ৪০-৩৫ এমনকি কখনো কখনো ৩০ রান নিয়েও সন্তুষ্ট থাকতে বাধ্য করেছে । তবে তামিমের সাথে সৌম্য নামায় সে প্রথমেই প্রতিপক্ষের উপরে চড়াও হয়ে চার্জটা খুব ঠিকঠাকমতো হাতে তুলে নিতে পারছে । আর যা তামিমকেও দিচ্ছে মারার লাইসেন্স। সাথে সাথে রানরেট নিয়ে চাপ না থাকায় মুশফিক-সাকিবরা মিডল অর্ডারে নেমে নিজেদের মত খেলতে পারছে ।

210935.3

একটা কথা মাথায় রাখতে হবে , একজন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানকে রান বাড়ানো আর উইকেট ধরে রাখার ডুয়াল রোল প্লে করতে হলে তার চাইতে কঠিন কিছুই নেই । মিডল অর্ডারকে জায়গা আর সময়টা দিলে সাকিব-মুশি আর নাসিরে গড়া আমাদের মিডল অর্ডার কতোটা ভালো হতে পারে সেটা সবারই জানা ।

210947.3

এর বাইরে , ম্যাশের বাইরে দুইজন পেসার নিয়মিত উইকেট পাচ্ছে – এটাও বদলে যাওয়া বাংলাদেশের সূচক । বাংলাদেশের একজন পেসার এসে সেট জুটি ভেঙে দিচ্ছে নিয়মিত । শেষ কবে দেখেছেন বলুন তো ?

এই পরিবর্তনগুলো দলের সবার মাঝে ছড়িয়ে যাক …

সামনে ভারত আর দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজেও আসুক মনে রাখার মত রেজাল্ট …

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

5 − two =