বিসিএলের ফাইনালেও থাকলো দারুন ক্রিকেটের রেশ

৩ চার আর ১ ছক্কায় ৩৫ বলে ৩৯ । পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দলে তাকে নেওয়া নিয়ে ক্রিকেট মহলে কানাঘুষা কম হয় নি । যার প্রায় শতভাগই দারুন নেতিবাচকতায় পরিপূর্ণ । তবে তারপর থেকেই যেন নতুন করে শুরু করলেন আবুল হাসান রাজু । এর আগে আরেক ম্যাচে করেছিলেন ফিফটি … সাথে বোলিং এ দুরন্ত স্পেল । আর আজ ফাইনালে অনেক কঠিন হয়ে উঠা এক খেলাকে ফিনিশিং টাচ দিয়ে গেলেন তার ৩৫ বলে ৩৯ রানের এই ইনিংসে । বিসিএলের ২০১৫ আসরের চ্যাম্পিয়ন হলো আবুল হাসান-মমিনুল হকের ইসলামি ব্যাংক ইস্ট জোন !
টসে হেরে ব্যাটিং এ মুশফিক-নাসির-সাব্বিরের উত্তরাঞ্চল । ৮৮ রানে ৩ উইকেট পড়ে গেলেও নাসির আর মাহমুদুল হাসানের ১০০+ জুটিতে ২০০ পার উত্তরাঞ্চল । মাহমুদুল হাসান বিসিএলের ফাইনালে করে ফেললেন ১০৭ রানের দারুন এক সেঞ্চুরি । তখনো বেশ কয়েক ওভার বাকি । তবে নাসিরের ৯৬ ছাড়া আর ভালো কোন ইনিংস না এলে ২৯১ এর বেশি যেতে পারে নি নাসিরের দল।

বরাবরের মতোই লিটন দাশের সৌজন্যে দারুন ঝড়ের মত সূচনা ইস্ট জোনের । লিটনের ৩৭ বলে ৫০ এর সুবাদে ১৫ ওভারের আগেই ১০০ পার ইস্ট জোনের । তবে ৫ রান করে আজও বিফল তামিম ইকবাল । ফাইনালে ৭৭ বলে ৭৮ রানের ক্যাপ্টেন্স নক খেলে দিলেন মমিনুলও । তবে মাঝে বৃষ্টি নামলে লক্ষ্যটা কঠিন হয়ে দাঁড়ায় ইস্ট জোনের জন্যে । ডি এলে টার্গেট দাঁড়ায় ৪৬ ওভারে ২৭৮ । ততক্ষণে আস্তে আস্তে ফিরে গেছেন মমিনুল আর আলোক কাপালীর মতো পরীক্ষিতেরা । তবে আবুল হাসান আর আসিফ আহমেদরা মিলে ৪৫ ওভারেই টপকে গেলেন ২৭৮ রানের টার্গেট । তাতে উইকেট পড়ল ৭টি ।
৩ উইকেটে ম্যাচ জয় ।
সাথে দারুন এক টুর্নামেন্টের ফাইনালটা জিতে চ্যাম্পিয়নের মুকুট পড়ল মমিনুলের ইস্ট জোন ।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

5 × one =