বার্সেলোনায় কউতিনহো : আসলেই হতে পারবেন তিনি ইনিয়েস্তার উত্তরসূরি?

gollachhut.com

তাঁকে নিয়ে লিভারপুল-বার্সেলোনার টানাটানি চলছিলো সেই গত গ্রীষ্মকালীন দলবদল থেকেই। একে তো ইনিয়েস্তার বয়স বাড়ছে, সেরকম পারফর্ম করতে পারছেন না, তাঁর উপর হুট করে নেইমারের ক্লাব ছাড়ার জন্য বার্সেলোনা একদম হন্তদন্ত হয়ে লিভারপুল মিডফিল্ডার ফিলিপ্পে কউতিনহো এর দিকে হাত বাড়িয়েছিল গত দলবদলের প্রায় পুরো সময়টা জুড়েই। সেবার সফল না হলেও এবার সফল হল বার্সেলোনা। মোটামুটি ১৪২ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে লিভারপুল থেকে এই জানুয়ারি দলবদলের বাজারের শুরুতেই বার্সেলোনায় এলেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার ফিলিপ্পে কউতিনহো, বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দামী খেলোয়াড় হিসেবে।

এই ১৪২ মিলিয়ন পাউন্ডের মধ্যে ১০৫ মিলিয়ন লিভারপুলের পকেটে সরাসরি যাবে, বাকী ৩৭ মিলিয়ন বিভিন্ন পারফরম্যান্স সংক্রান্ত শর্তপূরণ-সাপেক্ষে পাবে লিভারপুল। এর মধ্যে রয়েছে কউতিনহো বার্সার হয়ে কতগুলো ম্যাচ খেলছে, কত গোল করছে, কউতিনহো কে নিয়ে বার্সা চ্যাম্পিয়নস লিগ জিততে পারছে কি না – ইত্যাদি।

তিন তিন বার বার্সেলোনার প্রস্তাব নাকচ করে দেওয়ার পরে এবার আর লিভারপুল কউতিনহোর জন্য বার্সার প্রস্তাব নাকচ করতে পারেনি, আর সেটা পারেনি বার্সায় যাওয়ার কউতিনহোর অদম্য আগ্রহের জন্যই। নতুন খেলোয়াড় কেনার সাথে সাথেই ৪০০ মিলিয়ন ইউরো বা ৩৫৫ মিলিয়ন পাউন্ডের বাই-আউট ক্লজ যুক্ত করে দিয়েছে বার্সেলোনা।

কিন্তু কউতিনহোকে দিয়ে কি আসলেই কাজ হবে?

কউতিনহোর খেলার স্টাইল ও বার্সেলোনার খেলার স্টাইল পর্যালোচনা করলে বলা যায় কউতিনহোর পক্ষে বার্সার হয়ে ঔজ্জ্বল্য ছড়ানো আসলেই সম্ভব। ব্রাজিলিয়ান হিসেবে বল পায়ে প্রায়ই জাদুকরী মুহূর্ত সৃষ্টি করতে সক্ষম কউতিনহো খেলোয়াড় হিসেবে বেশ কয়েকটা পজিশানে খেলতে পারেন। বার্সেলোনার বর্তমান কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে এর মধ্যে বার্সেলোনাকে ৪-৪-২, ৪-৩-৩, ৪-৩-১-২ ইত্যাদি ফর্মেশানে খেলিয়েছেন, এবং এর প্রত্যেকটা ফর্মেশানেই কউতিনহো অনায়াসেই খেলতে পারবেন। কারণ লিভারপুলের হয়ে এর মধ্যে ৪-৩-৩ ফর্মেশানে লেফট উইঙ্গার, লেফট মিডফিল্ডার, ৪-২-৩-১ ফর্মেশানে লেফট মিডফিল্ডার/সেন্ট্রাল অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবে খেলেছেন তিনি। বার্সেলোনায় তাঁকে আনাও হয়েছে মূলত অ্যান্দ্রেস ইনিয়েস্তার উত্তরসূরি হিসেবে। সেটা বলা হলেও, কউতিনহোকে ভালভার্দে কোন কোন পজিশানে খেলাতে পারবেন?

  • ৪-৩-৩ ফর্মেশানে লেফট উইঙ্গার

যে পজিশনটা মূলত নেইমারের ছিল, নেইমার চলে যাওয়ার ফলে ফরাসী উইঙ্গার ওসমানে দেম্বেলেকে আনা হলেও কউতিনহোকে দিয়েও এই পজিশানে খেলানো যাবে। লিভারপুলে এই পজিশানে তিনি প্রচুর খেলেছেন।

বার্সেলোনায় কউতিনহো : আসলেই হতে পারবেন ইনিয়েস্তার উত্তরসূরি?

  • ৪-৩-৩ ফর্মেশানে রাইট উইঙ্গার

মূলত বার্সেলোনায় এই পজিশানে মেসি খেললেও ভালভার্দে চাইলেই এখানে কউতিনহোকেও খেলাতে পারেন। উল্লেখ্য, নেইমার ও কউতিনহো দ’জনেই লেফট উইঙ্গার হিসেবে খেলতে বেশী দক্ষ হলেও ব্রাজিল দলে নেইমারের জন্য লেফট উইঙ্গার পজিশানটা ছেড়ে নিজেকে অনেক সময় উইং এর ডানদিকে খেলতে হয় কউতিহোকে। তাই তিনি এই পজিশানেও খেলতে সক্ষম।

বার্সেলোনায় কউতিনহো : আসলেই হতে পারবেন ইনিয়েস্তার উত্তরসূরি?

  • ৪-৩-৩ ফর্মেশানে লেফট মিডফিল্ডার

সোজা কথায় ইনিয়েস্তার পজিশন। বার্সেলোনায় ইনিয়েস্তা সারাজীবন যে পজিশনে খেলে এসেছেন সে পজিশানের কথা ভেবেই কউতিনহোকে আনার এত তোড়জোড় ছিল বার্সেলোনার। ৪-৩-৩ ফর্মেশানে মিডফিল্ডার-ত্রয়ীর মধ্যে একেবারে বামদিকে খেলেন ইনিয়েস্তা, আর এই জায়গায়ই হতে পারে কউতিনহোর ভবিষ্যৎ। এমনকি লিভারপুলের হয়ে নিজের শেষ মৌসুমেও এখানেই খেলছিলেন কউতিনহো।

বার্সেলোনায় কউতিনহো : আসলেই হতে পারবেন ইনিয়েস্তার উত্তরসূরি?

  • সোজা বা ফ্ল্যাট ৪-৪-২ ফর্মেশানে লেফট মিডফিল্ডার

ভালভার্দে মূলত এই মৌসুমে প্রায়ই বার্সেলোনাকে ৪-৪-২ ফর্মেশানে খেলাচ্ছেন। সেক্ষেত্রে ওয়াইড (বাম) মিডফিল্ডার হিসেবে কউতিনহোকে খেলানোই যায়।

বার্সেলোনায় কউতিনহো : আসলেই হতে পারবেন ইনিয়েস্তার উত্তরসূরি?

  • ডায়মন্ড ৪-৪-২ বা ৪-২-৩-১ ফর্মেশানে সেন্ট্রাল অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার

কউতিনহো এখন আক্রমণভাগের বামদিকে খেলতে অভ্যস্ত হলেও ভুলে গেলে চলবে না তাঁর উত্থানটা কিন্তু হয়েছল একজন সেন্ট্রাল অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবেই, ইন্টার মিলান বা এসপ্যানিওলের মত ক্লাবগুলোতে তিনি সেন্ট্রাল অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবেই খেলতেন। তাই পজিশানেও খেলতে পারাটা তাঁর পক্ষে সমস্যার কিছু নয়।

বার্সেলোনায় কউতিনহো : আসলেই হতে পারবেন ইনিয়েস্তার উত্তরসূরি?

আপাতদৃষ্টিতে কউতিনহোর দলবদলে বার্সা লাভবান হয়েছে বলে মনে হলেও কউতিনহো কি আসলেই ইনিয়েস্তার মত কিংবদন্তীসম সর্বজয়ী খেলোয়াড়ের যোগ্য উত্তরসুরি হতে পারবেন কি না, সে প্রশ্ন থেকেই যায়। কারণ পাঁচ বছর আগে লিভারপুলে যোগ দিলেও লিভারপুলের মত দলের মূল খেলোয়াড় তিনি হতে পেরেছিলেন তিনি সম্প্রতি। বিভিন্ন ইনজুরি, ফর্মহীনতার কারণে লিভারপুলের মূল খেলোয়াড় হতে তাঁর সময় লেগেছে অনেক। এমনকি তাঁর পরে লিভারপুলের মূল দলে অভিষিক্ত হয়েও তাঁর বেশ আগেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে ম্যানচেস্টার সিটিতে পাড়ি জমিয়েছেন রহিম স্টার্লিং এর মত খেলোয়াড়েরা। তাছাড়া এর আগে লিভারপুলের আক্রমণভাগের যারা শিরোমণি ছিলেন, যেমন ফার্নান্দো টরেস কিংবা লুইস সুয়ারেজ – তারা লিভারপুলের হয়ে লিগ না জিতলেও অন্তত লিভারপুলকে একদম লিগের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গিয়েছিলেন একবার করে। টরেস তো লিভারপুলের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালেও খেলেছেন। কিন্তু কউতিনহো কি লিভারপুলকে এমন কিছু দিতে পেরেছেন?

না।

এখন বার্সায় নিজেকে প্রমাণ করার পালা। পারবেন কউতিনহো?

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

nine + 3 =