বাংলাদেশের প্রতি কৃতজ্ঞ থাকা উচিত শচীনের

সাইটস্ক্রিনের সামনে পিছে অনেক মানুষের নড়াচড়া, ব্যাটিং করাতে তাতে সমস্যা হচ্ছে ব্যাটসম্যানের। অনেকবার কমপ্লেইন করার পরেও ঠিক হলো না। ব্যাটসম্যান আউট হবার পরে ফেরার সময় রাগে গজড়াতে গজড়াতে স্বাগতিক দেশের ক্রিকেট বোর্ডের প্রধানকে পেয়ে বললেন, “ম্যাচ আয়োজনের ব্যাসিক দিকগুলো ঠিক না রাখতে পারলে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনই করার যোগ্যতাই রাখে না! ”

জায়গার নাম ঢাকা, সাল ১৯৯৮, ব্যাটসম্যানের নাম শচীন টেন্ডুলকার আর টুর্নামেন্টের নাম সিলভার জুবিলি ইন্ডিপেন্ডেন্স কাপ।
-(টেন্ডুলকারের অটোবায়োগ্রাফি Playing it my way থেকে)

আর ভাগ্যেরও পরিহাস দেখেন। টেন্ডুলকারের এই লম্বা ক্যারিয়ারে নিজের সর্বোচ্চ ২৪৮ রানের টেস্ট ইনিংস ২০০৪ সালে পেলেন এই বাংলাদেশে। সাথে যোগ করুন, অনেকদিন ধরে আসি আসি করে না আসা শততম আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরিটাও ২০১২ সালের এশিয়া কাপে পেয়ে গেলেন এই “অযোগ্য” বাংলাদেশেই।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

9 + 5 =