বিপিএল ২০১৬ – যে যেখানে গেলেন

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ‘এ’ প্লাস: মাশরাফি বিন মুর্তজা গত আসর থেকে ধরে রাখা: ইমরুল কায়েস, লিটন দাস। দেশি: আল আমিন, নাজমুল হোসন শান্ত, নাহিদুল ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মোহাম্মদ শরীফ, নাবিল সামাদ, জসিমউদ্দিন, সৈকত আলী, রাসেল আল মামুন। বিদেশি: সোহেল তানভির, ইমাদ ওয়াসিম, আসহার জাইদি, নুয়ান কুলাসেকারা, থিসারা পেরেরা, খালিদ লতিফ, শাহজাইব হাসান, জেসন হোল্ডার, রশিদ খান, রোভম্যান পাওয়েল।

লিখনের ভবিষ্যত কি?

অবশেষে একদম শেষ রাউন্ডে গিয়ে দল পেলেন লেগ স্পিনার জুবায়ের হোসেন লিখন। শেষ মুহূর্তে তাকে দলে নিলেন চিটাগাং ভাইকিংস। আজ তিনটা টিমের আইকন প্লেয়াররাও ছিলেন। তামিম বাদে বাকি কেউ তাকে নিতে আগ্রহ প্রকাশ করলোনা। যেই খালেদ মাহমুদ সুজন তাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখিয়েছিল লীগে তিনিও নিলেননা তাকে। এ থেকেই বোঝা যায়

ফিগোর ক্ষমা প্রার্থনা!

গত ২৬ সেপ্টেম্বর ছিল ইতালিয়ান কিংবদন্তী, এএস রোমার চিরসবুজ স্ট্রাইকার ফ্র্যানসেস্কো টট্টির জন্মদিন। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে অবশ্যই হাজার হাজার জন্মদিনের শুভকামনা পেয়েছেন তিনি, কিন্তু একটা শুভকামনা অবশ্যই আলাদা করে স্থান পাওয়ার যোগ্য! শুভকামনাটা এসেছে যে পর্তুগিজ কিংবদন্তী, সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ-বার্সেলোনা ও ইন্টার মিলান মিডফিল্ডার লুইস ফিগোর কাছ থেকে! শুধুমাত্র এইটুক

এমন হার মানা বড় কঠিন

আফগানিস্তানের কাছে আবার হেরেছে আমাদের প্রিয় দল। হারের কারণ? আমি অল্প কথার মানুষ, বলতে পারি সহজেই, হারের কারণ ধৈর্যের অভাব আর মুশফিকের জঘন্য কিপিং আর তার সাথে শেষ ওভারে অল্প রান হাতে নিয়েও তাসকিনের বারংবার শর্ট বলের বিলাসিতা দেখানো। প্রথমেই আমার মনে একটা বড় প্রশ্ন আসছে, উইকেটে গিয়ে যখন বুঝলেন যে

ফুটবল অভিধান: ফরোয়ার্ড ও স্ট্রাইকার- পার্থক্য এবং বিস্তারিত(পার্ট-২)

সাধারণত অনেকের মাঝেই স্ট্রাইকার এবং ফরোয়ার্ড এর মধ্যে কনফিউশন থাকে। নেট ঘাটাঘাটি করে যা পেলাম এবং নিজের অভিজ্ঞতা মিশিয়ে সকলের কনফিউশন দূর করার জন্য একটু চেষ্টা করলাম নিজে। আশা করি এই লেখাটা পড়লে যাদের ফরোয়ার্ড এবং স্ট্রাইকার নিয়ে কনফিউশন ছিল তা কিছুটা হলেও দূর হয়ে যাবে। স্ট্রাইকার একজন প্রথাগত স্ট্রাইকার সাধারণত নীচে

বিশ্বকাপ মাসকটসমূহ: কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও সৃজনশীলতার অপূর্ব নিদর্শন

মাসকট! বলতেই সবার সামনে ভেসে উঠে প্রাণোচ্ছল, উদ্দীপ্ত প্রাণী যা পুরো অনুষ্ঠান বা প্রতিযোগিতাজুড়েই মাতিয়ে রাখবে পুরো বিশ্ববাসীকে, স্বাগতিক দেশের প্রতিবিম্বকে তুলে ধরবে নিজের শাশ্বত ও স্বতন্ত্র পন্থায়। যে কোন আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার অন্যতম সেরা আকর্ষণ এই মাসকট। মাসকট হতে পারে কোন প্রাণী বা কোন ব্যাক্তি বা এমন কিছু যা স্বাগতিকদের

র‍্যাবনা? কে এর আবিষ্কারক?

কে প্রথম র‍্যাবনা ব্যাবহার করে, এর উৎপত্তি কোথায় এই নিয়ে প্রচুর বিতর্ক আছে আমাদের ফুটবল লাভারদের মধ্যে। তাই সকল কনফিউশন দূর করতে নিচের এই লেখাটুকু :) প্রথম র‍্যাবনাঃ ১৯৪৮ সালে আর্জেন্টিনায় অনুষ্ঠেয় এস্তুদিয়ান্তেস বনাম সেন্ট্রাল রোজারিও এর খেলায় রিকার্ডো ইনফান্তে নামক প্লেয়ার প্রথম র‍্যাবনা ফ্লিক কৌশলটি ব্যাবহার করেন বলে প্রথম কোন তথ্য

ফুটবল অভিধান: ফরোয়ার্ড ও স্ট্রাইকার- পার্থক্য এবং বিস্তারিত

শুরু করার আগে ফরোয়ার্ড ও স্ট্রাইকার কি? ছোট্ট করে বলতে গেলে ফরোয়ার্ড হল ঐসব খেলোয়াড়েরা যারা প্রতিপক্ষের গোলের সবচেয়ে নিকটে থাকে, প্রতিপক্ষের গোলের সবচেয়ে নিকটে থাকা মানেই এটা সহজেই বোধগম্য যে ফরোয়ার্ডের মূল দ্বায়িত্বই হল গোল করা এবং এখানেই শেষ নয়, গোল করা এবং গোলের সুযোগ তৈরি করাটাও ফরোয়ার্ড খেলোয়াড়দের

কাতানেচ্চিও আর বাস পার্ক এক না…

আমার কাছে কাতানেচ্চিও আর বাস পার্ক এক মনে হয় না। যদিও টিপিকাল কাতানেচ্চিও আমি দেখি নাই। তবে কিছু আরটিকেল পরে যা মনে হয়েছে তাই লেখার চেষ্টা করলাম। ভুল-ভ্রান্তি মাফ করবেন।   বিভিন্ন ফরমেশনে কাতানেচ্চিও খেলানো যায় যেমন ৩-৫-২,৪-৩-১-২ এছাড়া আরও অনেক তবে এই দুইটাই সবচে জনপ্রিয়। কিছু কিছু মিডফিল্ডে এ "sweeper" রোল(ball

কিছু ভুলের খেসারত

::::: সাদমান সাজিদ ::::: অনেকেই এই ম্যাচে ৪৯ তম ওভারে নবাগত মোসাদ্দেককে বল দেয়ায় মাশরাফির দিকে আঙুল তুলবে, অনেকে মুশফিককে কেন কিপার রাখে এই কথাও বলবে। সত্যি বলতে আমার মনে হয়েছে মাশরাফি পিচ এবং আগের ওভারগুলায় স্পিনারদের সফলতা দেখে মোসাদ্দেককে বল দিয়ে একটা বাজি খেলতে গিয়েছিল বাট কপাল খারাপ বিধায় তা

সিরিজ ভালো যাচ্ছে না

::::: কাইয়ুম জয় ::::: আসল কথা হলো সিরিজ কিন্তু ভালো যাচ্ছে না।গত ম্যাচে আফগানদের অনভিজ্ঞতা,মাশরাফির ক্যাপ্টেন্সি আর ডেথ ওভারে বোলারদের কম্পোজড বোলিংয়ে কাজ হয়ে গেসিলো কিন্তু এক জিনিস বার বার রিপিট হয় না। অভিনন্দন আফগানিস্তানকে। তারা আসলেই ডিজার্ভ করে এই জয়। তারা যে পর্যাপ্ত ম্যাচ খেলার সুযোগ পেলে যেকোনো দলকেই ধরাশায়ী করতে

শুভকামনা মোসাদ্দেক

এর চেয়ে ৩৫-৪০ ওভারে হেরে গেলেও ভালো লাগতো বেশি ... এত গুলো "ইশসসস" "যদি এমন হতো" "যদি ঐটা না হতো" এইসব হাহাকার বুকে নিয়ে হার মেনে নেওয়াটা খুব কঠিন ... so close... yet so far... ২০৯ রানের টার্গেট দিয়েও প্রায় শেষ বল পর্যন্ত গেলে "আর কয়টা রান" বেশি করার আফসোস