ম্যাচিওর হতে শিখুন

মুস্তাফিজকে নিয়ে যা হচ্ছে তা একটু বাড়াবাড়ি ই বটে। আরে ভাই, ছেলেটা আইপিএল জয় করে আসছে, জাতীয় কোন বড় টুর্নামেন্ট নয়। এয়ারপোর্টে মন্ত্রী নিজে গিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছে জানানো, মুস্তাফিজ কে জাতীয় বীর বলে আখ্যায়িত করা নিজেদের অপরিপক্ক মস্তিষ্কের পরিচয়। কেউ কেউ তো বলছে তাকে নাকি জাতীয় কোন পুরষ্কারে ভূষিত করা

ন্যাশনালিসম

কোন দূর দেশ বা দূর দেশের ক্লাব ট্রফি জিতলে আমরা যেভাবে আনন্দে আত্মহারা হয়ে যাই, নিজের দেশের ট্রফি অর্জনে যে কি খুশি হব সেটা ভেবে খুব ভাল লাগে। আল্লাহ যেন কিছু দেখে যাওয়ার মত তৌফিক দান করেন। অন্য দেশের ক্লাব সাপোর্ট করি, তবে অনেকের মত আনন্দে আত্মহারা হতে পারি না। দেশ

নেশার নাম রিয়াল মাদ্রিদ !

জীবনে এতটা উন্মাদ কখনও হয়েছিলাম কি ? নাহ, রোনালদোর গোলের পর লা-আনদেসিমা জয়ে ভুলে গিয়েছিলাম আমি কে, আমি কোথায় । ফুটবলে অনাসক্ত কোন মানুষ সে অবস্থায় আমায় দেখলে নেশাগ্রস্থ উন্মাদ বলতো নির্দ্বিধায় । জার্সি খুলে হযরবল উন্মাদ নৃত্য কিংবা মার্সেলোকে অনুসরণ করে জার্সি উল্টো করে পড়া । রাতটা যেন এক নেশাগ্রস্থ কাটলো । আমি

হ্যাপি থ্রি হান্ড্রেড, হেরাথ!

ছেলেবেলায় আমরা শুনতাম, পড়তাম, “তিনশ উইকেটের অভিজাত ক্লাব।” তখন ব্যাপারটি সেরকমই ছিল। এখন নেই। অভিজাত ক্লাব হয়ত তার আভিজাত্য হারায়নি। ৩০০ টেস্ট উইকেট চাট্টিখানি কথা নয়। তবে আগের মত ঠিক রোমাঞ্চ জাগায় না। মাইলফলকটি এখনও হয়ত মুড়ি-মুড়কি হয়নি। তবে আগের মত বিরলও নয়। এই তো, ২০০০ সালের আগেও এই ক্লাবের

আনদেসিমা হবে তো?

আর মাত্র কিছুক্ষণ! ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে সানসিরো কাঁপাতে প্রস্তুত মাদ্রিদের দুই ক্লাব । একদিকে ঐতিহ্যবাহী তারকাবহুল রাজকীয় রিয়াল মাদ্রিদ, অন্যদিকে পরিশ্রমী আর দৃঢ়চেতা এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ । একদিকে ১০ বারের মুকুট বিজয়ী জিদান বাহিনী, অন্যদিকে দুইবার স্বপ্নভংগের সিমিওনে বাহিনী । একদল চাইছে তাদের লা-আনদেসিমা, আরেকদল দৃঢ় প্রতিজ্ঞ প্রথমবারের মত মুকুট পড়তে

আর মাত্র কয়েক ঘন্টা

প্রতীক্ষার পালা শেষ হচ্ছে আজ। অপেক্ষা আর মাত্র কয়েক ঘন্টার। ঐতিহ্যবাহী সানসিরো আয়োজন করতে যাচ্ছে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনাল ম্যাচের যেখানে গত তিনবছরের মধ্যে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনাল খেলতে নামছে দুই স্প্যানিশ জায়ান্ট, দুই নগর প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ ও আতলেটিকো মাদ্রিদ। জমজমাট একটি ফাইনালের প্রতীক্ষায় কোটি কোটি চোখ।

স্যার গ্যারিকে মাশরাফিদের স্যালুট!

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে চলছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ। ভিক্টোরিয়া মাত্রই হারিয়েছে প্রথম উইকেট। নতুন ব্যাটসম্যান উইকেটের কাছে যেতেই লাইন করে দাঁড়িয়ে গেলেন কলাবাগানের ফিল্ডাররা। সবাই এক যোগে ঠুকে দিলেন স্যালুট! বিব্রত ব্যাটসম্যান আরেকটু জোর কদমে হেঁটে গেলেন ২২ গজের দিকে। ব্যাটসম্যানের নাম মুমিনুল হক। মাশরাফি বিন মুর্তজার ভাষায়, ‘স্যার গ্যারি সোবার্স!’

আবারও দুইবছর পর ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি?

ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি এবারের পর থেকে হওয়ার কথা ৪ বছর পরপর। ২০২০ সালের টুর্নামেন্ট হওয়ার কথা অস্ট্রেলিয়ায়। কিন্তু এবারের ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টির সাফল্য দেখে (পড়ুন ডলারের ঝনঝানিতে ) আইসিসির মত পাল্টে গেছে। আগের মত ২ বছর পরপরই আয়োজন করার ভাবনা করছে তারা। এটা নিয়ে আজকে সম্প্রচার সংস্থা স্টার স্পোর্টসের সঙ্গে আইসিসির মিটিং।

ট্রান্সফার উইন্ডোঃ কি হতে যাচ্ছে বার্সেলোনা স্কোয়াডে?

সামার ট্রান্সফার নিয়ে যেভাবে রিউমার ছড়াচ্ছে তাতে মনে হচ্ছে বার্সা স্কোয়াডে একটা বড় পরিবর্তন আসতে পারে। এর মধ্যে যারা যারা চলে যেতে পারে তারা হল বার্ত্রা, ভারমালেন, সান্দ্রো, আদ্রিয়ানো ও ডগলাস। এরা চলে যাবে তা অনুমিত কারণ তারা প্লেয়িং টাইম পাচ্ছে না। কিন্তু সবচেয়ে শকিং নিউজ হল আলভেজ ও মাসচেরানোর

কষ্টার্জিত কোপা জয়, ডাবলে স্বস্তিতে বার্সা ফ্যানরা

গতকাল ডাবল জয়ের পর বিশ্বাস হচ্ছিল না আসলে জিতে গেছি। মাসচে লাল খাওয়ার পরপরই ইউরোপার ফাইনালের কথা মনে পরে গেল। একজন কম নিয়ে সেভিয়ার এই এটাকের বহর সামলাবো কিভাবে? মনে হচ্ছে হেরেই যাব। আমার আশংকা সত্য হতে শুরু করল, মাসচের করে যাওয়া ফাউলে টার স্টেগান দুর্দান্ত সেভ না দিলে তখনই

বাংলাদেশের বোলিং কোচিং এর ভবিষ্যৎ

এই মাসেই আমাদের সঙ্গে স্ট্রিকের চুক্তি শেষ। পেশাদার হিসেবে নতুন চাকরি তো সে খুঁজবেই। আর হয়ত ভারত তার জন্য আরও ভালো অপশন। কারণ কোচিং যারা করান নানা দেশে, তারা শুধু ক্রিকেটটাই ভাবেন না। মাঠের বাইরের জীবনটাও ভাবেন। বাংলাদেশে তো নাইট লাইফ বা খেলার বাইরে কোনো লাইফ নাই তেমন। কিংবা হতে

এবার আসল পরীক্ষা মুস্তাফিজের

গেল এক দশকে ক্রিকেট যে আপাদমস্তক বদলটা দেখেছে , তার একটা প্রধান দিক অতি অবশ্যই খেলাটার ট্যাক্টিকাল এবং টেকনিকাল দিকটাতে আরো বেশি বেশি প্রযুক্তির আনাগোণা । আমার মনে আছে, ক্রিকেটের দুনিয়াতে ২০০০ এর পরের দিকে পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক কোচ বব উলমারের নামটা আলাদাভাবে নেওয়া হত তার প্রযুক্তিগতভাবে এগিয়ে