জয় দিয়ে রিয়ালের বিদায় উদযাপন

ঘরের মাঠে জয় দিয়েই ২০১৫ কে বিদায় জানালো স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ । ঘরোয়া লীগ লা লীগার ১৭তম রাউণ্ডে রিয়াল সোসিয়াদকে ৩-১ গোলে হারায় রাফা বেনিতেজ শিষ্যরা । নিয়মিত অধিনায়ক সার্জিও রামোস ও নিয়মিত রক্ষণ প্রহরী রাফায়েল ভারানেকে ছাড়াই স্যান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে সোসিয়েদকে আতিথ্য দেয় অল হোয়াইটরা । পয়েন্ট টেবিলের তিন

বার্সার মেসির ৫০০ তম ম্যাচ

আজ বার্সেলোনার হয়ে রিয়াল বেটিসের বিপক্ষে মেসি মাঠে নামলে তা হবে বার্সার জার্সি গায়ে মেসির ৫০০ তম ম্যাচ। অভিষেকের পর থেকে ৪৯৯ ম্যাচে বার্সেলোনার হয়ে মেসি গোল করেছেন ৪২৪ টি, অ্যাসিস্ট করেছেন ১৬০ টি। বার্সার জার্সি গায়ে জিতেছেন ৩৪৯ টি ম্যাচ, পরাজিত হয়েছেন ৫৬টি ম্যাচে। আর ড্র হয়েছে ৯৪টি ম্যাচ। বার্সেলোনার

টেস্ট রাজত্ব কি হারাতে যাচ্ছে প্রোটিয়ারা ?

দীর্ঘদিন যাবত শীর্ষস্থান বাগিয়ে রাখা দক্ষিণ আফ্রিকা দলই কিন্তু প্রশ্নটির জন্ম দিয়েছে সাম্প্রতিক সময়ে । চরম ব্যর্থতার এশিয়া সফর শেষে তাদের ঘুরে দাঁড়ানোটা আবারও ভেস্তে গেল । সফরকারী ইংল্যাণ্ডের কাছে প্রথম টেস্টে ২৪১ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে হাশিম আমলার দল । প্রথম ইনিংসে ইংল্যাণ্ডের করা ৩০৩ পেরুতে না পারলেও সম্ভাবনা

মাশরাফি বাহিনী, ফিরে দেখা ২০১৫

২০১৪’র মোটামুটি শেষভাগ থেকে শুরু হলো এক অকল্পনীয় উত্থানগাথা। এমনটি নয় যে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের এর পূর্বে কোন সাফল্য ছিলোনা তবে এবারের এই উত্থান আসলেই অন্যরকম। টোটাল প্রফেশনালিজমের বহিঃপ্রকাশ এবারের এই সাফল্যে। প্রোফেশনালিজমের ছড়াছড়ি দেখা যায় মূলত যে দলগুলির মধ্যে তাদের মধ্যে অন্যতম গুণ হলো, ব্যাটিং ধসে পরলো তো

রবিনহুড লিভারপুল

রবিনহুডের নাম শোনেনি এমন মানুষের খোঁজ পাওয়া যাবে না । যে ধনীর সম্পদ লুট করে বিতরণ করতেন দরিদ্রদের মধ্যে । লিভারপুলকে তাই ইপিএল এর রবিনহুড বললে খুব বেশি ভুল হবে না বোধ করি। বক্সিং ডে তে তারই এক নজির স্থাপন করলো লিভারপুল । লেস্টারের বিপক্ষে ১-০ গোলের জয়ে তিন পয়েন্ট

এখনো আছি অতীত নিয়ে

আজ ভুটানের সাথে খেলা বাংলাদেশের। দুই দলই বাদ টুর্নামেন্ট থেকে। কে শেষ দল হবে সেটার লড়াই। আগে ভুটানকে হেসে খেলে হারালেও এখন আর সেই দিন নাই। সবাই আগায়।আর আমরা অতীত নিয়ে পড়ে থাকি, সেটা নিয়ে কলার উচিয়ে ভাব নেই। কিন্তু অধিক ব্যবহারে এখন কার প্যান্ট যে ছিড়ে গেছে কেউ দেখি না।

ফ্যান্টাসি ফুটবলের আসল মজা

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ফ্যান্টাসি ফুটবল চলছিল একই ছকে। রিয়াদ মাহরেজ,জেমি ভার্ডি,রোমেলো লুকাকু,বার্কলে,মেসুত ওজিল রা একটানা ভাল খেলে এসেছেন জন্য প্রায় সব ফ্যান্টাসি ম্যানেজার রাই তাদের নিয়ে দল বানিয়েছিলেন। ফ্যান্টাসি ফুটবলে তাদের কাছ থেকে এএকটানা ভাল পয়েন্ট পেয়ে আসছিলেন ফ্যান্টাসি ম্যানেজাররা। গতকাল ছিল নকঅাউট ভিত্তিক টুর্নামেন্ট ফ্যান্টাসি কাপের প্রথম রাউন্ড।

সঠিক পরিকল্পনা ছাড়া কিছু হয়না

আগেই বলেছি, এই দলের খেলার ইচ্ছা নিয়ে আমি সন্দিহান! এরা গেছে সরকারি টাকায় কেরালা ঘুরতে আর আমাদের রেশমি চুলের মেঘবালকেরা গেছেন নিজেদের চুল দেখাতে!!! মামুনুল, ওয়ালি ফয়সাল, রায়হান হাসান- আমাদের তিন মেঘবালক! বোলার ভাষা আর খুঁজে পাচ্ছিনা আসলে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ডিফেন্সে ইচ্ছা করে বাঁধা দেওয়া, যেটা না দিলেও চলে, সেটা বারবার

চাই কড়া কোচ

আমার বাবা খুবই কট্টরপন্থী মানুষ ছিলেন। আমাদের জন্য যখন টিচার রাখতো- বলে দিতেন আমি শুধু হাড় আর চামড়া চাই। পড়ানোর জন্য যা করা লাগে তা আপনার।তখন কেন এখনো স্টাইল মেনে নিতে না পারলেও আমরা চরম ফাঁকিবাজ দুই ভাই বোন আজ আল্লাহর রহমতে ইঞ্জিনিয়ার।উনার একটা কথা ছিলো- কোন টিচার যদি ছাত্রদের কাছে

স্ট্রাইকার কই? কই স্ট্রাইকার?

একটা জিনিস বুঝি না। ছোটবেলায় ফুটবল খেলতে গেলে এমন কাউকে দেখতাম না যে কিনা স্বেচ্ছায় ডিফেন্ডার হইতে চায়। বড় হবার পরেও যে জিনিসটা অল্প হলেও প্রযোজ্য। অন্তত ৯০% ক্ষেত্রেই তাই, সবাই স্ট্রাইকার হবে। গোলকিপার-ডিফেন্ডার ত নাই-ই, নিদেনপক্ষে মিডফিল্ডার হলেও সমস্যা নাই। সেটা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো'র মত পেটানো শরীরের কেউ হোক বা আমার

পারলো না বাংলাদেশ

প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে চার গোলের বড় পরাজয়ের পর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে টিকে থাকতে হলে জিততেই হত বাংলাদেশকে। সেই কথা মাথায় রেখে শুরু থেকেই আক্রমণ চালাতে থাকে বাংলাদেশ। নিজেদের পায়ে বল রেখে আক্রমণ চালাতে থাকলেও গোলের দেখা পায়নি প্রথমার্ধে বাংলাদেশ। জাহিদের হেড বারে লেগে ফেরত আসে,রনির গোলমিস হয়। প্রথমার্ধের শেষ সময়ে

ভুলেই যাব!

জীবনে অনেক কিছুই না পেয়ে নিজেকে নিজে "থাক ! লাগবে না ..." বলে ভুলে যেতে পেরেছি ... আমাদের একটা ন্যাশনাল ফুটবল টিম ছিলো, সেটা মাঝে মাঝে ফুটবল খেলত , আমরা জিততে চাইতাম এটাও না হয় ভুলেই যাবো ।