“অহংকার পতনের মূল সারসত্য এই”

  ওয়েঙ্গারকে স্পেশালিষ্ট ইন ফেইলার বলার আগে আপনার ভেবে নেয়া উচিত ছিল আপনারো দুর্দিন দেখতে হতে পারে। যাই হোক মরিনিয়ো, ভালো থাকবেন আর যেখানেই যান না কেন অ্যাটলিস্ট ভাড়ামি না করে সামাজিক কৃষ্টি মান্য করে মুখ চালাবেন। :) আর যাই হোক অভিশপ্ত হতে হবে না :) অল্প বয়সেই ঢের সাফল্য পেয়েও মাটিতে পা

অভিনন্দন চট্টগ্রামকে

এই টুর্নামেন্ট এ জেতার থেকে হারানোর বেশি ছিলো। তাও ভালো শেষ রক্ষা হলো। দক্ষিন এশিয়ার সেরা দলের সি দলের সাথে বাংলাদেশের দুই নং দল (শেখ রাসেল হিসেবে) জেতাতে আনন্দ যেরকম হওয়ার হচ্ছে না।এটা যদি ব্রাদার্স অথবা মুক্তিযোদ্ধা হতো তাহলে ঠিক হতো। ইস্ট বেংগল আমাদের পিছিয়ে পড়াটাই চোখে আংগুল দিয়ে দেখিয়ে গেলো। অভিনন্দন চট্টগ্রামকে।

দেশের দলের জয়

ফুটবল বা ক্রিকেট যাই হোক মাঠ ভর্তি দর্শক সবসময় উপহার দিয়ে আসছে চট্টগ্রাম, তারপরেও এখানে ম্যাচ দিতে সব সময় অবহেলা করে আয়োজকরা। চিনে খালি ঐ খা খা করা বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম আর মিরপুর। হোয়াটেভার, আবাহনী না মোহামেডান এটা দেখার দরকার নাই, নামে চট্টগ্রাম আছে মানেই অন্ধ সমর্থন ও সেই দলের শিরোপা জয়

ঘরেই থাকলো ট্রফি- আবাহনী উড়িয়ে দিলো ইস্ট বেঙ্গলকে

সব কটা জানালা, খুলে দাও না, আমি গাইবো, গাইবো, বিজয়েরই গান! আসলে কি লিখবো, বুঝতেই পারছি না! এত আনন্দ! আনন্দে মানুষ নাকি কিছু সময়ের জন্য ভাষা হারিয়ে ফেলে, আমার অনেকটা সেই অবস্থা। চট্টগ্রাম আবাহনী যেভাবে গোল খেয়েও ৩-১ গোলে ফাইনাল জিতে গেলো ওপার বাংলার দৈত্য ইস্টবেঙ্গল এর বিপক্ষে, তাতে কি আর

বছরটা খালি গেলো না অবশেষে….

অভিনন্দন চট্টগ্রাম আবাহনীকে.... অভিনন্দন শেখ রাসেলকে.... অভিনন্দন মানিক ভাইকে... বছরটা খালি গেলো না অবশেষে....

ফুটবলই বাঙ্গালীর প্রথম ভালোবাসা!

ইন্টারন্যাশনাল ক্লাব টুর্নামেন্ট। ওপারের দাদাদের হারিয়ে চ্যাম্প্যিয়ন হোস্ট চিটাগং আবাহনী। কিংসলের কাঁধে বাঁধা বাংলাদেশের পতাকা। ট্রফি দিতে স্টেজে চিটাগং এর নামী দামি কেউ বাকি রাখে নাই উঠতে। প্রধানমন্ত্রী ভিডিও চ্যাটে এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের সাথে কানেকটেড। সেই কথা শুনার জন্যে আবার হাজার ৪০ মানুষ স্টেডিয়ামেও বইসা আছে। সাধেই ফুটবল বাঙালির প্রথম

এক ‘গ্রেট’ ক্যারেক্টারের কথা

নিজের প্রথম দুই টেস্টেই সেঞ্চুরি করা গ্রেগ ব্লিউয়েটের জন্মদিন আজ। জন্মদিন অ্যাডাম ব্যাখারের। দারুণ সম্ভাবনা নিয়েও যাদের ক্যারিয়ার থেকে গেছে অপূর্ণ। ম্যাথু হেইডেন, মাইকেল ভনের জন্মদিন আজ। হেইডেনের আগ্রাসন, দাপুটে ও মেজাজি ব্যাটিং, ভনের আভিজাত্যমাখা পুল, স্কয়ার ও কাভার ড্রাইভ, আহ...! উইফ্রেড রোডসের জন্মদিন আজ। প্রায় ৪০ হাজার ফার্স্ট ক্লাস রান,

লিগ্যাসি কন্টিনিউস…

২০ বছর বয়সী রিয়াল মাদ্রিদ যুবদলের অধিনায়ক এনজো জিদানকে যুবদল থেকে মূল স্কোয়াডে নিয়ে এসেছেন রিয়াল মাদ্রিদ কোচ রাফায়েল বেনিতেজ। বহুদিন ধরেই রিয়াল মাদ্রিদের যুবদল কাস্তিয়ার হয়ে নজরকাড়া পারফর্ম করে যাচ্ছিল এনজো। নাম শুনেই বুঝে গেছেন, এনজো ফরাসী ফুটবল কিংবদন্তী জিনেদিন জিদানের ছেলে!

রবার্ট পিরেস – আর্সেনালের উড়ন্ত উইঙ্গার

আহসানুল হক - ফ্রান্সের রাইমস শহরে ১৯৭৩ সালের ২৯ অক্টোবর পর্তুগিজ বাবা ও স্প্যানিশ মায়ের সংসারে জন্ম নেন রবার্ট ইম্যান্যুয়াল পিরেস। ফুটবল পাগল বাবার উৎসাহে ১৫ বছর বয়সে যোগ দেন রাইমস এর একাডেমি তে। প্রতিভার স্বাক্ষর রাখতে দেরি করেন নি। অচিরেই যোগ দেন আরেক ফ্রেঞ্চ ক্লাব 'এফসি মেতজ' এ। ১৯৯৩ সালে সিনিয়র

স্মরণে গ্যারিঞ্চা

সর্বকালের সেরা ফুটবলার। "দ্যা ড্রিবল মাষ্টার গারিঞ্চা"-কে নিয়ে বিখ্যাত কিছু উক্তি.. ♥ . বিঃদ্রঃ- যারা গারিঞ্চাকে চিনেন না, তারা পড়বেন ভালো করে.." kiki emoticon . ওয়েলস জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার ম্যাল হপকিন্সের বিখ্যাত উক্তি দিয়েই শুরু করা যেতে পারে- "তিনি ছিলেন এমন এক ফুটবলার, যিনি দারুণ কসরত ও জাদুকরী খেলায় সবাইকে মোহিত করতেন। হয়তো

শুভ জন্মদিন হেইডেন

শুভ জন্মদিন ম্যাথু হেইডেন । অস্ট্রেলিয়ার সোনালি প্রজন্মের দলটার ওপেনার । সেই জেনারেশনে অস্ট্রেলিয়ার অনেক অপশন থাকাতে দলে নিয়মিত হতে হতে একটু দেরি হয়ে যায় আপনার । কিন্তু তাতে আক্ষেপের কী আছে ? ২০০৭ বিশ্বকাপটাকে একদম আগাগোড়া একপেশে করে দেবার অপবাদটা আপনাকে নিতেই হবে । টেস্ট আর ওয়ানডে মিলে মাত্র ২৫০ এর মতো

এখন শক্তির জায়গা পেস

মাসুদ পারভেজ রুবেল - বাংলাদেশ দল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরজের জন্য স্কোয়াড ঘোষণা করেছে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, স্কোয়াডে ৬জন পেসারঃ মাশরাফি, তাসকিন, আল-আমিন, মুস্তাফিজুর, শফিউল ও কামরুল ইসলাম রাব্বি আর স্পেশিয়ালিস্ট স্পিনার দুইজনঃ সানি ও যুবায়ের। সাথে তিন স্পিনিং অলরাউন্ডার সাকিব, নাসির এবং মাহমুদোল্লাহ। সময় পাল্টেছে বলতেই হয়। বিঃদ্রঃ রুবেল হোসেন ইঞ্জুরড।