হালি খেতে এখন কেমন লাগে???

হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। হালিই লিখেছি। আমরা যখন মিউনিখের কাছে বা চেল্টার কাছে ৪ টা গোল খেয়েছিলাম তখন অনলাইনে আসতে পারি নাই আপনাদের অত্যাচারে। ভাবখানা এমন ৪ টা গোল আপনারাই দিয়েছেন। অথচ গত এক দশকের হিসাব করে দেখেন। কতগুলা হালি আপনারা আমাদের কাছ থেকে খেয়েছেন গুনে দেখেন। মনে রাইখেন, বার্সা হয়তো আজকে হালি খাইছে। কিন্তু কালকে আপনাদেরকে হালি ভরে দেয়ার এবিলিটি লাগে। আরেকটা কথা হল কার্‌মা ইজ আ বিচ এন্ড শি অলয়েজ বাইটস অন দ্য এস!

এবার আসল কথায় আসি। আর সেটা হল অনেকদিন পর বার্সাকে এমন আগ্রাসী ফুটবল খেলতে দেখলাম। রিয়াম মাদ্রিদকে নিয়ে জাস্ট ছেলেখেলা করেছে। সবার কাছে অতিমানবীয় ম্যাচ খেলেছে ব্রাভো। হ্যাঁ, নিঃসন্দেহে অতিমানবীয় ম্যাচ খেলেছে ব্রাভো। ৩ টা শিউর গোল ঠেকিয়ে দিয়েছে। কিন্তু আমার কাছে ম্যান অভ দ্য ম্যাচ ছিল সার্গি রবার্তো। পিচ্চি পোলাডা একলাই মাদ্রিদ ডিফেন্সের আন্ডারওয়ার খুলে দিছে। নেইমারের গোলটা মনে করে দেখেন। ওখানে ওর অফ দ্য বলের মুভমেন্টটা মনে করে দেখেন। জাস্ট ওর অফ দ্য বলের মুভমেন্টের কারণে নেইমার স্পেস পেয়ে গেছিল। সেখান থেকে গোল। তবে গোল আরো ৪ টা হওয়া উচিত ছিল। হালি হালি করা লোকজনকে ২ হালি ভরে দেয়া উচিত ছিল। মুনির এর জন্য সেটা হল না। ছেলেটা বারবার হতাশ করে চলেছে। আশা করি তাড়াতাড়ি খারাপ সময় পার করে ফিরে আসবে।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

4 × 2 =