সেমিফাইনালে ব্রাজিল

ফুলটাইম : ব্রাজিল ২-০ কলম্বিয়া

আগেই বলেছিলাম এই ম্যাচে ফুটবল নিয়ে যতটা লড়াই হবে তারচেয়ে বেশি লড়াই হবে কলম্বিয়ার কুংফুর বিরুদ্ধে,তাই হয়েছে।খেলার শুরু থেকেই অযথা ফাউল করে খেলার গতি নষ্ট করতে থাকে কলম্বিয়া। এমনই এক ফাউল থেকে পাওয়া ফ্রি কিক থেকে অসাধারণ এক গোল করে দলকে এগিয়ে দেন নেইমার! এই গোলের পর কলম্বিয়া ফাউলের মাত্রা আরো বাড়িয়ে দেয়। এর পুরস্কার হিসেবে একগাদা হলুদ কার্ডও তাদের ঝুলিতে যায়। কলম্বিয়ার ফাউলের জন্য প্রথমার্ধের খেলা ঠিকভাবে এগুতেই পারে নি।দ্বিতীয়ার্ধে কলম্বিয়া ফাউল করা কিছুটা কমায় ফলে খেলায় গতি ফিরে। কলম্বিয়া গোল শোধের অনেক চেষ্টা করে কিন্তু রদ্রিগো কাইয়ো আর মার্কুইনহোসের অসাধারণ ডিফেন্ডিং এর কারণে কলম্বিয়া সুবিধা করতে পারে নি তাই তারা বক্সের বাইরে থেকেই উড়াধুড়া শট মারতে থাকে। দ্বিতীয়ার্ধে পেনাল্টিবক্সে কলম্বিয়ার এক প্লেয়ারের আর্মে বল হিট করলেও রেফারি ব্রাজিলকে পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত করে। তবে,৮৩ মিনিটে ভাগ্য আর ব্রাজিলকে বঞ্চিত করে নি। বক্সের বাইরে থেকে লুয়ানের অসাধারণ গোলে ২-০ তে এগিয়ে যায় ব্রাজিল (অ্যাসিস্ট নেইমার) সাথে নিশ্চিত করে সেমিফাইনাল, যেখানে তাদের জন্য অপেক্ষা করছে হন্ডুরাস (১৭ তারিখ রাত ১০ টায়) ম্যাচে অতিরিক্ত ফাউলের জন্য কেউই স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারে নি তাও যেভাবে ডমিনেটিং গেম প্লে করে আমরা জিতেছি সেটা প্রশংসনীয়। আর আমাদের ডিফেন্ডারদের প্রশংসা না করলেই না স্পেশালি কাইয়ো আর মার্কু জুটি,এই দুইজনের অসাধারণ পারফর্মেন্সের কারণেই টুর্নামেন্ট এ একমাত্র দল হিসেবে আমরা এখনো একটাও গোল খাই নি। মার্কুকে সিলভার সাথে জাতীয় দলে খেলানোটা এখন সময়ের দাবি। গোল্ড মেডেল থেকে আমরা আর মাত্র দুই ম্যাচ দূরে তাই এখন প্রতিটি পদক্ষেপ ভেবেচিন্তে নিতে হবে, একটা সামান্য ভুলই আমাদের স্বপ্ন ভেঙ্গে দিতে হবে তাই সামনের ম্যাচে আরো নীট এন্ড ক্লিন পারফর্মেন্স চাই স্পেশালি গ্যাব্রিয়েল জেসাসের কাছ থেকে।

গ্রান্দে ব্রাজিল!

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

two × 5 =