সেই মোমেন্টামেই জিতে গেল ইংল্যান্ড!

অসম্ভব কিছু না ঘটলে অস্ট্রেলিয়া অ্যাশেজের প্রথম টেস্টটা হেরে যাচ্ছে। ২৫০ প্রয়োজন। হাতে শেষ তিন উইকেট। নিরপেক্ষ দৃষ্টিকোন থেকে চাচ্ছিলাম সেটাই। ইংল্যান্ড হারলে অস্ট্রেলিয়া আর তাদের সিরিজে ফেরার সুযোগ দিতো না। পুরো সিরিজেই দুমড়ে মুচড়ে দিতো। কিন্তু অস্ট্রেলীয় মানসিকতা খুব স্ট্রং। ওরা ফাইটব্যাক করবেই। সেটাই অ্যাশেজটা জমাবে।

ছোট্ট একটা ঘটনা বলি। প্রথম দিন মাত্র ৪৩ রানেই ৩ উইকেট হারালো ইংল্যান্ড। উইকেটে ওই মুহুর্তে ইংল্যান্ডের সেরা ব্যাটসম্যান জো রুট। শূন্য রানে দাঁড়িয়ে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিলো রুট। হ্যাডিন হাতের মধ্যে বল জমিয়েও রাখতে পারলো না। ক্লার্ক পুরানো সেনানি, মাথায় দুই হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে গেলো। সেই রুট খেললো ১৩৪ রানের নিচ্ছিদ্র ইনিংস। আর একটাও ভুল শট খেলেনি পুরো ইনিংসে। গ্যারি ব্যালান্স আর বেন স্টোকসকে নিয়ে ২৩৭ রান যোগ করে তারপর আউট হয়েছেন। ততক্ষণে ইংল্যান্ডের একটা ভালো সংগ্রহ নিশ্চিত হয়ে গেছে। ৪৩০ করলো, বিশাল লিড পেয়ে গেলো। হতে পারতো ওই মুহূর্তে রুট আউট হয়ে গেলে ইংল্যান্ড দু’-আড়াইশ’র মাঝে অলআউট হয়ে যেতে পারতো। তাতে আজকে ইংল্যান্ড হয়তো উল্টো অবস্থানে থাকতো। ক্রিকেট স্ট্রেন্থ, স্কিল, অ্যাপ্লিকেশন, ইনোভেশন, ইম্প্রোভাইজেশনের গেম। কিন্তু এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারটা হলো মোমেন্টাম। ছোট্ট একটা মুহূর্ত পুরো ম্যাচের কমপ্লেক্সন চেঞ্জ করে দেয়। একটামাত্র ক্যাচ মিস পাঁচ দিনের একটা টেস্ট জিতিয়ে দিলো ইংল্যান্ডকে। ক্রিকেট মোমেন্টামের গেম।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

14 − 8 =