সিলেকশন জোকস

শুনলাম কামরুল রাব্বীকে নাকি ডাকলো শফিউলের চোটে। গুরুত্ব না দিলে বিপিএল আয়োজনের কী দরকার?? আবু জায়েদ রাহীকে এই স্লো উইকেটে বল সমানে বের করতে দেখলাম স্ট্যাম্প থেকে। লাইন লেংথের সাথে সামান্য ন্যাচারাল আউটসুইং। এদের রিপ্লেসমেন্ট ডাকার প্রসেস থ্রিলার ফিল্মের চেয়ে রোমাঞ্চকর।

খুলনা-রাজশাহী দুটো টীমকেই কেন জানি না ভালো লাগত। তবে ঢাকার সাথে বেটার ফাইনালের জন্যে অবশ্যই রাজশাহী। সাব্বির আর স্যামির ভালো দিনের সাথে মমিনুল বা ফ্র‍্যাংকলিনের ভালো কন্ট্রিবিউশন। কে জানে অনেক দারুন ফাইনালও হয়ে যেতে পারে।

মাহমুদুল্লাহ মুগ্ধতা ছড়ানো সেকেন্ড বয় থার্ড বয়। গতবার মাহমুদুল্লাহ যে টীমটা পেয়েছিলো, সেটাই মুশফিক এবার পেলো বরিশালের হয়ে। শেষ ম্যাচ আসতে আসতে “এই দল নিয়ে এটুকু আসতে পেরেছি এটাই অবাক করা” টাইপের কথা বলে মুশফিককে বিদায় নিতে হলো। আর সেই রিয়াদই এবার?? গতবারের বরিশালের চেয়েও লো কোয়ালিটি টীম। কোন বিগ হিটার নেই, টপ অর্ডারে ৬ ওভারে গেইম বানিয়ে দেওয়ার লোক নেই, কিন্তু অনফিল্ডে কুপার-শফিউল-জুনায়েদের বোলিং আর নিজের ব্যাটিং মিলিয়ে দলকে প্লে অফ পর্যন্ত।

আশা করবো পুরো টুর্নামেন্টের মত আজকেও ম্যাচের পরে নিজের খেলোয়াড়দের প্রটেক্ট করবেন। নেতা হবার জন্যে এটা জরুরি। তামিম ইকবালের মত “তার এই লেভেলে খেলার যোগ্যতা নেই” টাইপের স্টেটমেন্ট আদৌ কী ভালো আনে আমার জানা নেই। এই একটা লোকাল টুর্নামেন্ট লিডার হিসাবে মাহমুদুল্লাহ, তামিম আর মুশফিকের মধ্যে ডিফারেন্সটা বুঝিয়ে দিলো।

শেষমেশ সিলেকশন জোকসগুলা দারুন হাসায়।

কমেন্টস

কমেন্টস

মন্তব্য করুন

10 + 13 =